রিফাত হত্যা: মিন্নিসহ ছয় আসামির ফাঁসির রায় | বিশ্ব | DW | 30.09.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ

রিফাত হত্যা: মিন্নিসহ ছয় আসামির ফাঁসির রায়

বাংলাদেশের বরগুনার আলোচিত রিফাত শরীফ হত্যা মামলার রায় দিয়েছে আদালত৷ রিফাতের স্ত্রী আয়শা সিদ্দিকা মিন্নিসহ ছয় আসামিকে ফাঁসির আদেশ দেয়া হয়েছে৷ বেকসুর খালাস পেয়েছেন চার আসামি৷

বরগুনার জেলা ও দায়রা জজ মো. আছাদুজ্জামান বুধবার দুপুরে চাঞ্চল্যকর এ হত্যা মামলার রায় ঘোষণা করেন বলে জানিয়েছে বাংলাদেশে ডয়চে ভেলের কনটেন্ট পার্টনার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম৷

২০১৯ সালের ২৬ জুন বরগুনা জেলা শহরের কলেজ রোডে প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যা করা হয় রিফাতকে৷ ওই ঘটনার একটি ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পড়লে দেশজুড়ে আলোচনা শুরু হয়৷ দুই জুলাই হত্যাকাণ্ডের প্রধান সন্দেহভাজন সাব্বির আহম্মেদ ওরফে নয়ন বন্ড পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে নিহত হন৷

রায়ে আদালত বলেছে, মিন্নি যে তার স্বামীকে হত্যার ‘ষড়যন্ত্রে’ যুক্ত ছিলেন, প্রসিকিউশন তা ‘প্রমাণ করতে পেরেছে’৷

তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় মিন্নির বাবা মোজাম্মেল হক কিশোর সাংবাদিকদের বলেন, ‘‘আমরা ন্যায়বিচার পাইনি। আমার মেয়ে ষড়যন্ত্রের শিকার৷ আমরা আপিল করব৷’’

মিন্নির আইনজীবী মাহবুবুল বারী আসলাম বলেছেন, ‘‘আমরা বলেছিলাম, রাষ্ট্রপক্ষ অভিযোগ প্রমাণ করতে ব্যর্থ হয়েছে৷ আমরা এই রায়ে সংক্ষুব্ধ৷’’

অন্যদিকে রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন মামলার বাদী রিফাতের বাবা আবদুল হালিম দুলাল৷ তিনি বলেন, ‘‘মিন্নিসহ ছয় আসামির সর্বোচ্চ শাস্তি হয়েছে৷ আমরা এই রায়ে সন্তুষ্ট৷’’

মামলায় রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) ভূবন চন্দ্র হাওলাদার বলেন, ‘‘সাক্ষ্য প্রমাণে আমরা অভিযোগ প্রমাণ করতে সক্ষম হয়েছি বলেই আদালত ছয়জনকে মৃত্যুদণ্ডের রায় দিয়েছেন৷’’

এদিকে মৃত্যুদণ্ড পাওয়া অন্য আসামিরা হলেন, রাকিবুল হাসান ওরফে রিফাত ফরাজী (২৩), আল কাইয়ুম ওরফে রাব্বি আঁকন (২১), মোহাইমিনুল ইসলাম সিফাত (১৯), রেজোয়ান আলী খান হৃদয় ওরফে টিকটক হৃদয় (২২) এবং মো. হাসান (১৯)৷ পাশাপাশি ছয় আসামির সবাইকে ৫০ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়েছে৷

খালাস পেয়েছেন মুসা (২২), রাফিউল ইসলাম রাব্বি (২০), সাগর (১৯) ও কামরুল হাসান সায়মুন (২১)৷ 

হত্যাকাণ্ডের পর পুলিশ ২৪ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দিয়েছিল৷ তাদের মধ্যে ১০ জনের বিচার হয়েছে জজ আদালতে৷ অপ্রাপ্তবয়স্ক হওয়ায় বাকি ১৪ জনের বিরুদ্ধে বরগুনার শিশু আদালতে আলাদাভাবে বিচার চলছে৷

এফএস/এসিবি (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)

বিস্তারিত আসছে....

গতবছর ৩০ আগস্টের ছবিঘরটি দেখুন...

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন