রাহুল গান্ধী, পিকে-র ফোনে আড়িপাতার অভিযোগ | বিশ্ব | DW | 20.07.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ভারত

রাহুল গান্ধী, পিকে-র ফোনে আড়িপাতার অভিযোগ

ভারতে পেগাসাস বিতর্ক আরো তীব্র হলো। রাহুল গান্ধী, প্রশান্ত কিশোর, অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের ফোনে পেগাসাস ব্যবহার করে আড়িপাতার অভিযোগ।

রাহুল গান্ধীর ফোনে আড়িপাতার অভিযোগ।

রাহুল গান্ধীর ফোনে আড়িপাতার অভিযোগ।

গত লোকসভা ভোটের আগে রাহুল গান্ধী, প্রশান্ত কিশোর বা পিকে এবং তৃণমূল নেতা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের ফোনে পেগাসাস দিয়ে আড়িপাতার অভিযোগ উঠল। শুধু তারাই নন, দুই কেন্দ্রীয় মন্ত্রী প্রহ্লাদ প্যাটেল ও তার স্ত্রী এবং অশ্বিনী বৈষ্ণবের ফোনও আড়িপাতার তালিকায় আছে। তৃণমূলের অভিযোগ, পশ্চিমবঙ্গে বিধানসভা নির্বাচনের আগে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ফোনেও আড়িপাতা হয়।

যে ১৭টি সংবাদমাধ্যম পেগাসাস প্রজেক্ট-এ আছে, তার মধ্যে ভারতীয় সংবাদসংস্থা হলো দ্য ওয়্যার। তারা জানিয়েছে, ভারতে পেগাসাস ব্যবহার করে আড়িপাতার জন্য তিনশ ফোন নম্বরের একটি ভেরিফায়েড তালিকা আছে। তাতে রাহুল গান্ধীর দুইটি ফোন নম্বর আছে। ২০১৮ সালের মাঝামাঝি থেকে ২০১৯ সালের মাঝামাঝি পর্যন্ত তাতে আড়িপাতা হয়েছিল বলে অভিযোগ। তাছাড়া রাহুলের ঘনিষ্ঠ অলঙ্কার সওয়াই ও সচিন রাওয়ের ফোনেও আড়িপাতা হয় বলে অভিযোগ।

নিশানায় ছিল পিকে এবং অভিষেকের ফোনও। প্রশান্ত কিশোরের ফোন পরীক্ষা করে দেখা গেছে, সেখানে পেগাসাস ব্যবহার করা হয়েছে। লোকসভা ভোটের আগে তার ফোন হ্যাক করা হয়। তারপর পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা ভোটে এবং সম্প্রতি রাহুল গান্ধীর সঙ্গে বৈঠকের সময়েও তার ফোন হ্যাক হয় বলে অভিযোগ। পিকে বলেছেন, তিনি ওই সময়ের মধ্যে পাঁচবার ফোন বদল করেছেন। তারপরেও তার ফোন হ্যাক করা হয়েছে। কংগ্রেসের অভিযোগ, বিজেপি আসলে ভারতীয় জনতা পার্টি নয়, ভারতীয় জাসুস পার্টি। জাসুস মানে গুপ্তচর। তৃণমূলের দাবি, মমতা যখন পিকে, সুব্রত বক্সী, অভিষেকের সঙ্গে মিটিং করেছেন, তার যাবতীয় খবর বিজেপি-র কাছে চলে গেছে। অথচ, তারা কেউ মোবাইল ব্যবহার করেননি। তৃণমূলের দাবি, পেগাসাস ব্যবহার করে সেই বৈঠকের খবর তুলে নেয়া হয়।

Israel | NSO Group

ইসরায়েলে পেগাসাস নির্মাতা এনএসও-র অফিস।

সোমবার থেকেই সংসদের বর্ষা অধিবেশন শুরু হয়েছে। প্রথম দিনেই ফোনে আড়িপাতা নিয়ে বিরোধীরা সোচ্চার হয়েছে। তাদের চেঁচামিচিতে লোকসভা ও রাজ্যসভা একবার মুলতুবি হয়ে যায়। মঙ্গলবারও লোকসভায় মুলতুবি প্রস্তাব এনেছে কংগ্রেস ও তৃণমূল কংগ্রেস। তার মানে সব কাজ মুলতুবি করে ফোনে আড়িপাতা নিয়ে আলোচনা করতে হবে। রাজ্যসভাতেও বিরোধীরা একই প্রস্তাব এনেছে। সেখানে তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী আড়িপাতা নিয়ে সরকারি বিবৃতি দেবেন।

তবে বিজেপি-র দাবি, পেগাসাস ব্যবহার করে আড়িপাতার অভিযোগ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। সাবেক তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ সাংবাদিক সম্মলেন করে বলেছেন, ''সরকার বা বিজেপি-র বিরুদ্ধে আড়িপাতার কোনো প্রমাণ নেই। আর অ্যামনেস্টির মতো সংগঠনের ভারত-বিরোধী মনোভাব ও ভূমিকা সকলেই জানেন।'' পশ্চিমবঙ্গে বিজেপি-র মুখপাত্র শমীক ভট্টাচার্য বলেছেন, ''পেগাসাস নিয়ে মিথ্যা কথা বলা হচ্ছে। মুকুল রায় বিজেপি-তে আসার পর তার ফোনে আড়িপাতার অভিযোগ করে মামলা করেছিলেন। এখন তৃণমূল নেতাদের মুখে অন্য কারো বিরুদ্ধে এই অভিযোগ মানায় না।''

জিএইচ/এসজি(পিটিআই, এএনআই, এনডিটিভি)