রাশিয়া বিশ্বকাপে এশিয়ার রেকর্ড | বিশ্ব | DW | 22.04.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

ফুটবল

রাশিয়া বিশ্বকাপে এশিয়ার রেকর্ড

রাশিয়া বিশ্বকাপে এবার এশিয়া অঞ্চল থেকে সর্বোচ্চ পাঁচটি দেশ খেলার সুযোগ পেয়েছে৷ তবে সাম্প্রতিক সময়ে খারাপ ফলাফল আর কোচ পরিবর্তনের কারণে দলগুলো বিশ্বকাপে কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে পারে৷

default

কোচ কার্লোস কাইরোসের সঙ্গে ইরানের জাতীয় দলের কয়েকজন ফুটবলার

ফুটবলে এমনিতেই এশিয়ার দেশগুলোর অবস্থান ভাল নয়৷ পাঁচটি দেশের মধ্যেফিফা ফিফা ব়্যাংকিংয়ে ইরানের অবস্থান সবচেয়ে ভালো, এবং সেটি হচ্ছে ৩৬৷ এশিয়া অঞ্চলের বাকি চারটি দেশ হচ্ছে অস্ট্রেলিয়া (৪০), জাপান (৬০), দক্ষিণ কোরিয়া (৬১) আর সৌদি আরব (৭০)৷

এর মধ্যে একমাত্র ইরানের কোচ পর্তুগিজ কার্লোস কাইরোস দলের সঙ্গে আছেন সাত বছর ধরে৷ বাকি চার দেশের কোচ হিসেবে এখন যাঁরা আছেন, তাঁরা একবছর আগেও অন্য জায়গায় ছিলেন৷ অর্থাৎ ঐ চার দেশই সাম্প্রতিক সময়ে নতুন কোচ নিয়োগ দিয়েছে৷ এর মধ্যে সবশেষ পরিবর্তন এনেছে জাপান৷ বসনিয়ার কোচ ভাহিদ হালিলহোদিচকে সরিয়ে আকিরা নিশিনোকে কোচ নিয়োগ দিয়েছে দেশটি৷ বিশ্বকাপের আগে নিজ দলের কৌশল ঠিক করার জন্য মাত্র তিনটি প্রস্তুতিম্যাচ দেখার সুযোগ পাবেন নিশিনো৷ অবশ্য ইতিমধ্যে তিনি তাঁর লক্ষ্যের কথা জানিয়ে দিয়েছেন৷ অন্তত নকআউট পর্বে উঠতে চান জাপান কোচ৷ এজন্য তাদের খামেস রদ্রিগেজের কলম্বিয়া, সেনেগাল আর রবার্ট লেভান্ডোভস্কির পোল্যান্ডের গ্রুপ টপকাতে হবে৷

জাপানের প্রতিবেশী দক্ষিণ কোরিয়া গত জুনে জার্মান কোচ উলি স্টিলিকেকে বহিষ্কার করে৷ কারণ তখন কাতারের সঙ্গে হারের পর দেশটির টানা নয়বারের মতো বিশ্বকাপে খেলার সুযোগ হাতছাড়া হবার উপক্রম হয়েছিল৷ পরে এশিয়ার চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জেতা কোচ শিন তায়-ইয়ংকে নিয়োগ দেয় দক্ষিণ কোরিয়া৷ তিনি দলকে ইরান ও উজবেকিস্তানের বিপক্ষে পরের দুই ম্যাচে ড্র করাতে সহায়তা করেন৷ ফলে দক্ষিণ কোরিয়ার বিশ্বকাপ নিশ্চিত হয়৷ তবে গতমাসেই শিনের দল নর্দার্ন আয়ারল্যান্ড আর পোল্যান্ডের কাছে হেরেছে৷বিশ্বকাপেদক্ষিণ কোরিয়ার গ্রুপে আছে জার্মানি, মেক্সিকো আর সুইডেন৷

এবার আসি সৌদি আরব আর অস্ট্রেলিয়ার কথায়৷ এই দুই দেশের সাবেক কোচেরা অবশ্য নিজেরাই দল ছেড়েছেন৷ এর মধ্যে সৌদি আরবের ডাচ কোচ বেয়ার্ট ফান মারভিক পক্ষ পরিবর্তন করে অস্ট্রেলিয়ার কোচ হয়েছেন৷ তাঁর নেতৃত্বে সকারুরা প্রথম ম্যাচে বিশ্বকাপে খেলার সুযোগ না পাওয়া নরওয়ের কাছে ৪-১ গোলে হারলেও পরের ম্যাচে কলম্বিয়ার বিপক্ষে গোলশূন্য ড্র করতে সমর্থ হয়েছে৷ বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়ার গ্রুপের অন্য দলগুলো হচ্ছে ফ্রান্স, ডেনমার্ক ও পেরু৷

এদিকে, মারভিক চলে যাওয়ার পর মেসিদের সাবেক কোচ এডগার্ডো বাউজাকে কোচ নিয়োগ দিয়েছিল সৌদি আরব৷ তবে তাঁর স্থায়িত্ব হয়েছিল মাত্র তিন মাস৷ এরপর আন্তোনিও পিজ্জি সৌদিদের দায়িত্ব পান৷ তাঁর নেতৃত্বে প্রথম ম্যাচে ইউক্রেনের বিপক্ষে গোলশূন্য ড্র করতে সমর্থ হয় সৌদি আরব৷ তবে পরের ম্যাচে শক্তিশালী বেলজিয়ামের কাছে ৪-০ গোলে হেরে যায় তারা৷ রোমেলু লুকাকু দু'টি গোল করেন৷ বিশ্বকাপের উদ্বোধনী ম্যাচে রাশিয়ার সঙ্গে খেলবে সৌদি আরব৷ তারপর উরুগুয়ে আর মিশরের সঙ্গে খেলা আছে তাদের৷

বিশ্বকাপে এশিয়ার দলগুলোর মধ্যে ইরানকে নিয়ে সবচেয়ে বেশি প্রত্যাশা সমর্থকদের৷ তবে তাদের গ্রুপে আছে স্পেন, পর্তুগাল আর মরক্কো৷ ফলে শক্তিশালী এই গ্রুপ থেকে পরবর্তী রাউন্ডে যাওয়াটা ইরানের জন্য কঠিনই হবে বলে মনে করা হচ্ছে৷

জেডএইচ/ডিজি (রয়টার্স)

রাশিয়া বিশ্বকাপে সত্যিই কি কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখে পড়বে এশিয়ার দলগুলো? জানান নীচের ঘরে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন