রাশিয়ার সঙ্গে ক্ষেপণাস্ত্র চুক্তি বাতিল করবে যুক্তরাষ্ট্র | বিশ্ব | DW | 21.10.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

যুক্তরাষ্ট্র-রাশিয়া

রাশিয়ার সঙ্গে ক্ষেপণাস্ত্র চুক্তি বাতিল করবে যুক্তরাষ্ট্র

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, রাশিয়ার সঙ্গে ঠান্ডা যুদ্ধের সময় করা পরমাণু চুক্তি থেকে নিজেদের সরিয়ে আনবে যুক্তরাষ্ট্র৷ রাশিয়া বারবার চুক্তির শর্ত লঙ্ঘন করছে বলে অভিযোগ করেছেন তিনি৷

শনিবার নেভাডা রাজ্যে এলকো শহরে মধ্যবর্তী নির্বাচনের প্রচারণা সমাবেশ শেষে এ কথা জানান ট্রাম্প৷ তবে রাশিয়া চুক্তির কী কী শর্ত ভঙ্গ করেছে তার বিস্তারিত বলেননি তিনি৷

‘‘(রাশিয়া) বহু বছর ধরে করছে৷ আমি বুঝতে পারছি না, প্রেসিডেন্ট ওবামা কেন এ বিষয়ে আওয়াজ তোলেননি বা চুক্তি থেকে সরে আসেননি,'' বলেন ট্রাম্প৷

‘‘আমরা তাদের চুক্তির শর্ত এভাবে ভঙ্গ করে যেতে দিতে পারি না৷ তাই চুক্তি থেকে সরে এসে আমরাও পরমাণু অস্ত্র তৈরি করব৷''

সরাসরি না বললেও ট্রাম্প ইঙ্গিত দিয়েছেন যে, যেহেতু রাশিয়া ও চীন নতুন পরমাণু চুক্তি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে, তাই যুক্তরাষ্ট্রও বিষয়টি নিয়ে নতুন করে ভাববে৷

‘‘যতক্ষণ পর্যন্ত রাশিয়া ও চীন আমাদের কাছে আসে এবং বলে যে, আসুন সুবুদ্ধির পরিচয় দিই এবং কেউই আমরা পরমাণু অস্ত্র তৈরি না করি, আমরা আমাদের অস্ত্র বানিয়ে যাবো৷ রাশিয়াও বানিয়ে যাবে, চীনও বানিয়ে যাবে আর আমরা চুক্তি মেনে যাব, তা তো হয় না,'' বলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট৷

১৯৮৭ সালে ঠান্ডা যুদ্ধের সময় চীন ও রাশিয়া এই ঐতিহাসিক চুক্তি করে৷ চুক্তিতে সই করেন দুই দেশের দুই নেতা রোনাল্ড রিগান ও মিখাইল গর্বাচেভ৷ চুক্তি অনুযায়ী, দুই দেশের কেউই স্থল থেকে পরিচালিত ৫শ' থেকে সাড়ে ৫ হাজার কিলোমিটার (৩০০ থেকে ৩,৪০০ মাইল) দূরত্বে আঘাত হানতে পারে এমন ক্রুজ মিসাইল ব্যবহার, তৈরি ও পরীক্ষা না করার বিষয়ে একমত হয়৷ চুক্তির পর দুই দেশ মিলিয়ে কমপক্ষে ২ হাজার ৬শ' মিসাইল নষ্ট করে৷

এদিকে, ওয়াশিংটনের এমন মন্তব্যের জবাব দিয়েছে মস্কো৷ তারা বলছে, যুক্তরাষ্ট্র নিজেদের বিশ্বের একমাত্র সুপারপাওয়ার হিসেবে দেখতে চায় বলেই চুক্তি থেকে সরে আসতে চাচ্ছে৷

‘‘এককেন্দ্রিক বিশ্ব গড়ার স্বপ্নই এমন সিদ্ধান্তের পেছনে কাজ করেছে৷ এই স্বপ্ন সত্যি হবে? না৷'' মস্কো থেকে পরিচালিত রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা আরআইএ নভোস্টিতে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তার বরাত দিয়ে এ কথা লেখা হয়েছে৷

পরে রাশিয়ান সেনেটর আলেক্সেই পুশকভ টুইট করে এই সিদ্ধান্তকে ‘‘বিশ্বের কৌশলগত স্থিতিশীলতার ওপর দ্বিতীয় বড় আঘাত'' বলে উল্লেখ করেন৷ তাঁর মতে, আগের আঘাতটি এসেছিল যখন ২০০১ সালে ওয়াশিংটন অ্যান্টি-ব্যালাস্টিক মিসাইল চুক্তি থেকে নিজেদের সরিয়ে নেয়৷

জেডএ/এসিবি (এপি, এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন