রানা প্লাজায় নিহতদের সম্মানে বিশেষ স্কার্ফ | বিশ্ব | DW | 25.04.2016
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

রানা প্লাজায় নিহতদের সম্মানে বিশেষ স্কার্ফ

রানা প্লাজায় নিহতের স্মরণে একটি স্কার্ফ কিনবেন? পুরনো সিল্ক, সুতা আর শাড়ি ব্যবহার করে হাতে তৈরি এ সব স্কার্ফ বিক্রির টাকা দিয়ে সহায়তা করা হবে নিহতদের পরিবারের সদস্যদের৷ এই উদ্যোগ সাড়া জাগিয়েছে৷

ইংরেজিতে #প্রজেক্ট১১২৭ লিখে টুইটার বা ইন্সটাগ্রামে সার্চ করলেই বেশ কিছু ছবির দেখা মেলে৷ গলায় স্কার্ফ জড়িয়ে ছবির তোলা এই মানুষেরা ব্যতিক্রমী এক উদ্যোগে সামিল হয়েছেন৷ উদ্দেশ্য হাতে তৈরি ১১২৭টি স্কার্ফ বিক্রি করা৷ ভাবছেন, এই সংখ্যা কেন? তিন বছর আগে ঢাকার অদূরে সাভারে রানা প্লাজা ধসে নিহত হন ১১২৭ ব্যক্তি৷ তাদের সম্মান জানাতে এই উদ্যোগ৷ পাশাপাশি এ সব স্কার্ফ বিক্রির টাকা দিয়ে সহায়তা করা হবে ক্ষতিগ্রস্ত পোশাক শ্রমিকদের পরিবারের সদস্যদের৷

২০১৩ সালের ২৪ এপ্রিল সাভারে ইতিহাসের সবচেয়ে বড় গার্মেন্ট ফ্যাক্টরি দুর্ঘটনার পর স্কার্ফ বিক্রির এই উদ্যোগ শুরু করেন ক্যানাডার ডিজাইনার লাওরা সিগ্যাল৷ ভারত এবং দক্ষিণ অ্যামেরিকার কারিগরদের নিয়ে কাজ করেন৷ রানা প্লাজায় নিহতের স্মরণে তৈরি স্কার্ফগুলো হাতে বুনেছেন ভারতের কারিগররা৷

এখানে উল্লেখ করা প্রয়োজন, #প্রজেক্ট১১২৭ সম্প্রতি শুরু হওয়া কোনো প্রকল্প নয়৷ বরং ২০১৪ সালে শুরু হয় এই উদ্যোগ৷ চলতি বছর ভোগ ম্যগাজিন এই উদ্যোগে সামিল হলে বিষয়টি আরো বেশি প্রচার পায়৷ ভারতের অভিনেত্রী লিসা রায়ও এই উদ্যোগের পক্ষে টুইটারে ছবি প্রকাশ করেছেন৷

উল্লেখ্য, সাভারে রানা প্লাজা ধসের পর গোটা বিশ্বে এই নিয়ে আলোড়ন সৃষ্টি হলেও পরিস্থিতি খুব একটা বদলেছে বলে মনে করছে না আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থাগুলো৷ হিউম্যান রাইটস ওয়াচ সম্প্রতি জানিয়েছে, ইউনিয়ন করার সুযোগ থাকলে রানা প্লাজা দুর্ঘটনায় এত প্রাণহানি ঘটতো না৷ কেননা, ভবনটি ধসে পড়ার শঙ্কা আগেই তৈরি হয়েছিল৷ তাসত্ত্বেও শ্রমিকরা ঐক্যবদ্ধভাবে কিছু করার সুযোগ পায়নি, মনে করে মানবাধিকার সংস্থাটি৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন