রানা প্লাজায় ক্ষতিগ্রস্তদের ১ কোটি ডলারের সহায়তা দেবে প্রাইমার্ক | বিশ্ব | DW | 19.03.2014
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বিশ্ব

রানা প্লাজায় ক্ষতিগ্রস্তদের ১ কোটি ডলারের সহায়তা দেবে প্রাইমার্ক

সাভারে রানা প্লাজা ধসে ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তায় আরও এক কোটি ডলার দেবে ব্রিটেনের পোশাক বিক্রেতা প্রতিষ্ঠান প্রাইমার্ক৷ বাংলাদেশের পোশাক শ্রমিক নেতা সিরাজুল ইসলাম রনি বলেন, এর ফলে অন্যান্য ক্রেতারাও এগিয়ে আসবেন৷

প্রাইমার্ক-এর পোশাক সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান নিউ ওয়েভ বটমস-এর অবস্থান ছিল রানা প্লাজার তৃতীয় তলায়৷ তাদের কাজে যুক্ত ছিলেন মোট ৫৮১ জন পোশাক শ্রমিক৷ এক কোটি ডলারে মধ্যে ৯০ লাখ ডলার দেওয়া হবে প্রাইমার্ক-এর পোশাক তৈরির কাজে সে সময় নিয়োজিত এই ৫৮১ জন শ্রমিক এবং তাঁদের পরিবারকে৷ বাকি ১০ লাখ ডলার দেওয়া হবে যৌথ তহবিলে৷ প্রসঙ্গত, প্রাইমার্ক এর আগে ক্ষতিপূরণ হিসাবে ২০ লাখ ডলার দিয়েছিল৷

প্রাইমার্ক ও আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থা বা আইএলও-র মধ্যে এ চুক্তি কার্যকর হবে ক্ষতিপূরণ তহবিল বিষয়ক সমন্বয় কমিটির বৈঠকের পর৷

Bangladesch Überlebende nach 17 Tagen gerettet

প্রাইমার্ক এর আগে ক্ষতিপূরণ হিসাবে দিয়েছিল ২০ লাখ ডলার, এবার দেবে ১ কোটি ডলার

সমন্বয় কমিটিতে বাংলাদেশ সরকার, কারখানা প্রতিনিধি এবং শ্রমিক অধিকার রক্ষায় কর্মরত প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রতিনিধিরাও অংশ নেবেন৷ প্রাইমার্ক-এর মুখপাত্র বলেন, রানা প্লাজা ধসের বছরপূর্তির আগেই তাঁরা শ্রমিকদের পাশে দাঁড়াতে চান৷ তাঁরা আহত এবং নিহত শ্রমিক ও তাঁদের পরিবারদের সহায়তায় আন্তরিক এবং প্রতিশ্রুতিবদ্ধ৷ তাঁদের সহায়তা করা হবে নগদ অর্থে৷

রানা প্লাজা ধসে আহত ও নিহতদের পরিবারকে দীর্ঘ মেয়াদে সহায়তা দেওয়ার জন্য আইএলও-র উদ্যোগে চার কোটি ডলারের একটি তহবিল গঠনের চেষ্টা চালানো হচ্ছে৷ এর আগে ইনডিটেক্স ম্যাংগো, মাসকট, প্রিমিয়ার ক্লথিংসহ বেশ কয়েকটি কোম্পানি সহায়তার অঙ্গীকার করেছে৷ তবে তা প্রয়োজনের তুলনায় তা এক-চতুর্থাংশেরও কম৷ তবে এবার বৃহত্‍ খুচরা বিক্রেতা কোম্পানি প্রাইমার্ক অর্থ দেয়ার বিষয়ে চুক্তি করায়, অন্যান্য কোম্পানিও দ্রুত এগিয়ে আসবে বলে আশা করছেন বাংলাদেশ গার্মেন্টস শ্রমিক ঐক্য পরিষদের আহ্বায়ক সিরাজুল ইসলাম রনি৷

তিনি ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘আমার জানামতে একমাত্র প্রাইমার্ক ছাড়া আর কোনো প্রতিষ্ঠান এখনো অনুদান দেয়নি৷ কিছু প্রতিষ্ঠান প্রতিশ্রুতির মধ্যেই সীমবদ্ধ আছে৷''

তিনি বলেন, ‘‘ক্রেতাদের দায়বদ্ধতা আছে, তাঁরা সেখান থেকে সরে যেতে পারেন না৷ বাংলাদেশের তৈরি পোশাক শিল্পের মালিকরা যেমন ব্যবসা করেন, বিদেশি ক্রেতারাও ব্যবসা করেন৷ তবে তাঁদের ব্যবসায় অবশ্যই সামাজিক দায়বদ্ধতা থাকতে হবে৷'' সিরাজুল ইসলাম রনি বলেন, ‘‘প্রাইমার্ক শুধু অনুদান দিলেই হবে না৷ ক্ষতিগ্রস্তরা শ্রমিকরা অনুদানের অর্থ যাতে ঠিকমত পান, তাও নিশ্চিত করতে হবে৷''

আইএলও-র উদ্যোগে গঠিত চার কোটি ডলারের তহবিল থেকে রানা প্লাজা ধসে ক্ষতিগ্রস্ত ৩,৬০০ জন শ্রমিকের মধ্যে সকলেরই এই সহায়তা পাওয়ার কথা৷ তাই আগামী এপ্রিল মাসে রানা প্লাজা ধসের এক বছর পূর্তির আগেই নতুন করে আবারো দীর্ঘমেয়াদি সহায়তার কাজ শুরু হতে পারে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন