রক সংগীতের প্রতীক জেনিস জপলিন | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 20.01.2011
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

রক সংগীতের প্রতীক জেনিস জপলিন

রক সংগীতের ইতিহাসে এক উজ্জ্বল তারকা জেনিস জপলিন৷ বলা যায় ষাট দশকে তিনিই প্রথম প্রতিষ্ঠিত মহিলা রক সংগীতশিল্পী৷ বিশ্বব্যাপী সাড়া জাগিয়েছিলেন অসাধারণভাবে৷ ১৯ জানুয়ারি ছিল তাঁর ৬৮ তম জন্ম বার্ষিকী৷

default

যখন গান গাইতেন জেনিস জপলিন

রক সংগীতের মহাকাব্যে এক বিপ্লবী নায়িকা জেনিস জপলিন৷ গীতিকার, সুরকার ও গায়িকা৷ স্বল্পস্থায়ী জীবনের অল্প সময়ে সংগীতে ভিন্ন আঙ্গিক এবং তাঁর খসখসে সুরেলা কণ্ঠ মুগ্ধ করেছে অসংখ্য সংগীতানুরাগীদের৷ তাঁর সংগীত শুধু রক সংগীতেই নয় অন্যান্য সংগীত অঙ্গনেও আজও আদর্শ হয়ে আছে৷

জেনিস জপলিনের জন্ম ১৯৪৩ সালের ১৯ জানুয়ারি, অ্যামেরিকার টেক্সাস রাজ্যের পোর্ট আর্থারে৷ ছোটবেলা থেকেই ব্লুজ ও লোকসংগীতের প্রতি তাঁর ছিল গভীর অনুরাগ৷ বিখ্যাত কৃষ্ণাঙ্গ ব্লুজ ও লোক সংগীত গায়িকা ওডেটা হোমস ও বেসি স্মিথ ছিলেন তাঁর আদর্শ৷ তাদের গান শুনে শুনেই সংগীতে তাঁর স্বশিক্ষা৷ হাই স্কুল শেষ করার পর ১৭ বছর বয়সে বাড়ি ছেড়ে বেরিয়ে পড়েন জেনিস৷ তাঁর লক্ষ্য ছিল তিনি গায়িকা হবেন৷ এক বছর পর তিনি চলে আসেন লস অ্যাঞ্জেলেসে৷ এখান থেকেই শুরু হয় সংগীত জগতে তাঁর অগ্রযাত্রা৷ কয়েক বছরের মধ্যে ব্লুজ রক সংগীতের শ্বেতাঙ্গ রাণী হিসেবে খ্যাতি ছড়িয়ে পড়ে তাঁর৷

Woodstock Festival 1969

অনেক কারণেই জপলিন ও তার দল ছিল আলোচনায়

১৯৬৬ সালে সান ফ্রান্সিস্কোতে বিখ্যাত ‘বিগ ব্রাদার অ্যান্ড হোলডিং কোম্পানি' ব্যান্ডে গায়িকা হিসেবে যোগ দেন জেনিস৷ শুরু হয় তাঁর সাফল্যের অগ্রযাত্রা৷ ১৯৬৭ সালে আন্তর্জাতিক ‘মন্টেরে পপ ফেস্টিভ্যাল'এ অংশ গ্রহণ তাঁকে এনে দেয় বিশ্ব খ্যাতি৷ ১৯৬৯ সালে ঐতিহাসিক ‘উডস্টক ফেস্টিভ্যাল' এর অন্যতম আকর্ষণ ছিলেন জেনিস জপলিন৷ সেখানে তিনি তৎকালীন হিপি তৎপরতা ও তার সংস্কৃতি এবং শান্তির প্রতি সমর্থন জানান জোরালো কণ্ঠে৷

রক, ব্লুজ আর লোক সংগীতের সংমিশ্রণে এক নতুন আঙ্গিকের সুদক্ষ ও সৃজনশীল সংগীত সৃষ্টি করতে পেরেছিলেন জেনিস জপলিন৷ তিনি রক সংগীত জগতে রেখে গেছেন সংগীত কর্মের এক বিরাট সম্ভার৷ কিন্তু সংগীত ও সাফল্যের পাশাপাশি মাদকাসক্ত ছিল তাঁর নিত্যদিনের সাথী৷ এবং তারই পরিণতি, ১৯৭০ সালের ৪ অক্টোবর, মাত্র সাতাশ বছর বয়সে লস অ্যাঞ্জেলেসের এক হোটেল রুমে মৃত্যু বরণ করেন এই সংগীত প্রতিভা৷

প্রতিবেদন: মারুফ আহমদ

সম্পাদনা: সঞ্জীব বর্মন

বিজ্ঞাপন