যৌন হয়রানির অভিযোগ স্বীকার করে ব্রিটিশ প্রতিরক্ষামন্ত্রীর পদত্যাগ | বিশ্ব | DW | 02.11.2017
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ব্রিটেন

যৌন হয়রানির অভিযোগ স্বীকার করে ব্রিটিশ প্রতিরক্ষামন্ত্রীর পদত্যাগ

ব্রিটেনের প্রতিরক্ষামন্ত্রী মাইকেল ফ্যালন পদত্যাগ করেছেন৷ যৌন হয়রানির অভিযোগ স্বীকার করে সরে দাঁড়ালেন তিনি৷ সম্প্রতি ব্রিটেনের বেশ কয়েকজন সংসদ সদস্যের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ ওঠে৷ ফ্যালকনই প্রথম পদত্যাগ করলেন৷

বুধবার প্রধানমন্ত্রী টেরেসা মে'র কাছে পাঠানো পদত্যাগপত্রে মাইকেল ফ্যালন বলেন, ‘‘আমার আগের কিছু ঘটনা ছাড়াও সাম্প্রতিক সময়ে আরও বেশ কয়েকজন এমপি'র বিরুদ্ধে এ ধরনের অভিযোগ উঠেছে৷ এসবের বেশিরভাগই মিথ্যা, তবে আমি স্বীকার করছি, যাদের প্রতিনিধিত্ব করতে পেরে আমি গর্বিত, সেই সেনাবাহিনীর একজনের কাছ থেকে যেমন আচরণ প্রত্যাশা করা হয়, আমার আচরণ তার চেয়ে নিম্নমানের ছিল৷''

প্রতিরক্ষামন্ত্রী পদত্যাগপত্র গ্রহণ করেছেন টেরেসা মে৷ পদত্যাগ গ্রহণ করে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন,‘‘ আপনি নিজের অবস্থান, পেশা এবং নারীদের কথা ভেবে যেভাবে এ সিদ্ধান্ত নিলেন তার প্রশংসা করি আমি৷''

অভিযোগের ঝুলি

যৌন হয়রানির অভিযোগে ৪০ জন এমপির নামের তালিকা সম্প্রতি প্রকাশ করে একটি অনলাইন৷ অভিযোগ যথাযথভাবে যাচাইয়ের পরই নামগুলো প্রকাশ করা হয়েছে কিনা তা অবশ্য জানা যায়নি৷ 

এরইমধ্যে তালিকায় নাম ওঠা ব্যক্তিদের ব্যাপারে তদন্তের নির্দেশ দিযেছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী৷ 

সম্প্রতি লেবার পার্টির এক কর্মী জানান, ২০১১ সালে  এক অনুষ্ঠানে ধর্ষণ করা হয় তাঁকে৷ তবে লেবার পার্টির পক্ষ তখন ঐ ঘটনা ফাঁস না করার  পরামর্শ দিয়ে বলা হয়েছিল, এমন ঘটনা জানাজানি হলে তাঁর রাজনৈতিক ক্যারিয়ার ‘ধ্বংস' হয়ে যেতে পারে৷

এএম/এসিবি (এপি, ডিপিএ, রায়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন