যৌনবৈষম্য রোধে পর্নোগ্রাফি বানাতে চায় এসপিডি | জার্মানি ইউরোপ | DW | 15.06.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

জার্মানি

যৌনবৈষম্য রোধে পর্নোগ্রাফি বানাতে চায় এসপিডি

জার্মানির জোট সরকারের একটি দল সামাজিক গণতন্ত্রী বা এসপিডি৷ তাদের বার্লিন শাখা সম্প্রতি একটি প্রস্তাব তৈরি করেছে৷ এতে তারা মূলধারার পর্নোগ্রাফিতে বিদ্যমান যৌনবৈষম্য রোধের লক্ষ্যে পর্নোগ্রাফি তৈরির প্রস্তাব দিয়েছে৷

সরকারি প্রচারমাধ্যমের সহায়তা এসব পর্নোগ্রাফি বিনামূল্যে প্রচারেরও প্রস্তাব করেছে তারা৷

এই পরিকল্পনার মাধ্যমে রাজনৈতিক দলটি সেইসব টিনএজারদের কাছে পৌঁছাতে চায়, যারা অনলাইনে পর্নোগ্রাফি দেখে, কিন্তু প্রায় সময়ই পছন্দের বিষয়টি খুঁজে পায় না৷

যেমন ২০ বছরের শিক্ষার্থী ফ্রানৎসি জানান, তিনি ১৩ বছর বয়স থেকে পর্নোগ্রাফি দেখছেন৷ ‘‘মেয়েরা এত শব্দ করে যে, আমার মনে হয়েছিল, যৌনমিলনের সময় আমি যদি তেমন শব্দ না করি তাহলে আমার পার্টনার হয়ত ভাবতে পারে যে, আমি উপভোগ করছি না৷ কারণ আমার পার্টনারও নিশ্চয় পর্নোগ্রাফি দেখেছে এবং সে তেমন আওয়াজই প্রত্যাশা করবে,'' বলেন তিনি৷

ফ্রানৎসি আরও জানান, মূলধারার পর্নোগ্রাফিতে দেখায় যে, ছেলেরা মেয়েদের মুখে ও স্তনে বীর্যপাত করে৷ আর মেয়েদের নির্দিষ্ট কিছু কাজ করতে হবে বলে ধারণা দেয়৷ ‘‘যেমন, আমার বান্ধবীদের অনেকেই মনে করত যে, ওরাল সেক্সটা বোধ হয় মেয়েদেরই সম্পাদন করতে হয়৷ আর মেয়েদের সন্তুষ্টির চেয়ে ছেলেদের সন্তুষ্টি পাওয়ার বিষয়টি বেশি গুরুত্বপূর্ণ বলে ধারণা দেয়া হয়,'' মূলধারার পর্নোগ্রাফি সম্পর্কে এই অভিযোগ তাঁর৷

ফ্রানৎসির মতো তরুণীদের আরও বাস্তব ও বিভিন্ন ধরণের প্রাপ্তবয়স্ক মুভির সন্ধান দিতে বার্লিনের এসপিডি সরকারি খরচে ‘ফেমিনিস্ট পর্নোগ্রাফি' তৈরির প্রস্তাব দিয়েছে৷ এতে বলা হয়, ‘‘মূলধারার পর্নোগ্রাফিতে যৌন ও বর্ণবৈষম্য দেখা যায়৷ ফলে ব্যবহারকারীর উপর একটা নেতিবাচক প্রভাব পড়তে পারে৷ তরুণদের মধ্যে একটা সম্পূর্ণ অবাস্তব প্রত্যাশা তৈরি করে৷''

প্রস্তাবের খসড়া তৈরির সঙ্গে জড়িত ছিলেন ফেরিকে টোম৷ প্রস্তাবটি পাস হবে কিনা, সে ব্যাপারে তিনি নিশ্চিত নন৷ দলের পুরনো প্রজন্মদের কাছ থেকে অনুমোদন পাওয়া কঠিন হবে বলেই মনে করছেন তিনি৷

ইয়ানে পাউলিক/জেডএইচ

নির্বাচিত প্রতিবেদন