যেভাবে কার্বন নিরপেক্ষ হতে চায় অ্যামাজন | বিশ্ব | DW | 20.09.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বিশ্ব

যেভাবে কার্বন নিরপেক্ষ হতে চায় অ্যামাজন

অ্যামাজনের প্রধান জেফ বেজোস ২০৪০ সালের মধ্যে তাঁর কোম্পানিকে কার্বন নিরপেক্ষ করার অঙ্গীকার করেছেন৷ কীভাবে তিনি তা করবেন বৃহস্পতিবার সেটি জানিয়েছেন৷

২০১৫ সালের প্যারিস চুক্তিতে ২০৫০ সালের মধ্যে কার্বন নিরপেক্ষ অবস্থার লক্ষ্য নির্ধারণ করা হয়৷ এর দশ বছরে আগেই অ্যামাজনকে কার্বন নিরপেক্ষ করার অঙ্গীকার করলেন বেজোস৷ তিনি বলেন, ‘‘অ্যামাজনের মতো এত বড় অবকাঠামোর কোম্পানি, যারা বছরে এক হাজার কোটি আইটেম ডেলিভারি দিয়ে থাকে, তারা যদি দশ বছর আগে প্যারিস চুক্তির লক্ষ্য পূরণ করতে পারে তাহলে যে কোনো কোম্পানিরই তা পারার কথা৷''

বেজোস জানান, তিনি অনেক বৈশ্বিক কোম্পানির প্রধান নির্বাহীদের সঙ্গে কথা বলেছেন৷ তাঁরাও কার্বন নিরপেক্ষ হওয়ার ব্যাপারে আগ্রহ দেখিয়েছেন৷

অ্যামাজন যা করবে

  • ডেলিভারি দেয়ার জন্য এক লাখ ইলেকট্রিক গাড়ি কিনবে অ্যামাজন৷ ২০২১ সালে প্রথম গাড়ি রাস্তায় নামবে৷ বাকিগুলো নামবে ২০৩০ সালের মধ্যে৷
  • মার্কিন পরিবেশবাদী সংস্থা নেচার কনজারভেন্সির সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে পুনর্বনায়ন প্রকল্পে ১০০ মিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ করবে অ্যামাজন৷
  • সম্প্রতি চালু করা ‘সাসটেনেবিলিটি' কর্মসূচির আওতায় প্যাকেজিং ও ডেলিভারি কাজে জ্বালানি সাশ্রয়ী পদ্ধতি ব্যবহার করা হবে৷ এছাড়া কোম্পানির বিভিন্ন ভবনেও জ্বালানি সাশ্রয়ের চেষ্টা করা হবে৷
  • ২০২৪ সালের মধ্যে ৮০ শতাংশ নবায়নযোগ্য জ্বালানি ব্যবহারের লক্ষ্য নির্ধারণ করা হয়েছে৷ ২০৩০ সালের মধ্যে এই লক্ষ্যমাত্রা শতভাগে উন্নীত করা হবে৷ এজন্য অ্যামাজনের বিভিন্ন ভবনে বায়ু ও সৌরবিদ্যুৎ প্রকল্পে বিনিয়োগ করা হবে৷

গ্রিনপিস অ্যামেরিকার কর্মকর্তা গ্যারি কুক অ্যামাজনের ঘোষণার প্রশংসা করেছেন৷ তবে কীভাবে এই লক্ষ্য পূরণ করা হবে সে ব্যাপারে বিস্তারিত জানানো হয়নি বলে মন্তব্য করেন তিনি৷

জেডএইচ/কেএম (এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন