যুদ্ধবিরতি ঘোষণা করতে পারল না জাতিসংঘ | বিশ্ব | DW | 19.05.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ইসরায়েল

যুদ্ধবিরতি ঘোষণা করতে পারল না জাতিসংঘ

ইউরোপীয় ইউনিয়ন যুদ্ধবিরতির বিবৃতি প্রকাশ করেছে। কিন্তু অ্যামেরিকার আপত্তিতে জাতিসংঘ তা প্রকাশ করতে পারেনি।

অ্যামেরিকার ভেটো, বহু আলোচনার পরেও ইসরয়ালে এবং হামাসের লড়াইয়ে যুদ্ধবিরতির বিবৃতি ঘোষণা করতে পারল না জাতিসংঘ। মঙ্গলবার জাতিসংঘে এ নিয়ে দীর্ঘ বৈঠক হয়। কিন্তু শেষপর্যন্ত ঐক্যমত্যে পৌঁছানো যায়নি।

জাতিসংঘে এ দিনের বৈঠকে ১৫টি দেশ আলোচনায় বসেছিল। এর মধ্যে নিরাপত্তা পরিষদের পাঁচটি দেশ রয়েছে। নিয়ম অনুযায়ী, কোনো বিবৃতি প্রকাশ করতে গেলে নয়টি দেশকে পক্ষে ভোট দিতে হয়। স্থায়ী সদস্য দেশগুলির কেউ ভেটো দিলে বিবৃতি প্রকাশ করা যায় না।

মঙ্গলবারের বৈঠকে বিবৃতির বিরুদ্ধে ভেটো দেয় অ্যামেরিকা। ফলে তা প্রকাশ করা যায়নি। অ্যামেরিকার ঠিক বিপরীত অবস্থান নিয়েছিল ফ্রান্স। যুদ্ধবিরতির পক্ষে সওয়াল করে তারা। একই সঙ্গে মিশরকে মধ্যস্থকারী হিসেবে ব্যবহারের কথা বলা হয়। কিন্তু বৈঠকে সেই সিদ্ধান্তও নেওয়া যায়নি।

ইউরোপীয় ইউনিয়ন অবশ্য দ্রুত যুদ্ধবিরতি ঘোষণার পক্ষে। ব্লকের ২৭টি দেশ যুদ্ধবিরতির বিবৃতি প্রকাশ করেছে। তবে ইউরোপীয় ইউনিয়নের পররাষ্ট্র পলিসির প্রধান জোসেফ বরেল জানিয়েছেন, হাঙ্গেরি ওই প্রস্তাবে সই করতে রাজি হয়নি। জার্মান চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেল এবং জর্ডনের রাজা দ্রুত যুদ্ধবিরতি ঘোষণা করে ঘটনার রাজনৈতিক সমাধানের রাস্তা খোঁজা উচিত বলে মত প্রকাশ করেছেন।

সোমবার ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহুর সঙ্গে ফোনে কথা বলেছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। মার্কিন প্রশাসনের মুখপাত্র জানিয়েছিলেন, যুদ্ধ থামিয়ে আলোচনার কথা বলেছিলেন বাইডেন। কিন্তু মঙ্গলবার প্রকাশ্য বিবৃতিতে আপত্তি জানায় অ্যামেরিকা।

এদিকে ইসরায়েল এবং হামাসের লড়াই অব্যাহত। মঙ্গলবার ভোরেও গাজা লক্ষ্য করে গোলাবর্ষণ করেছে ইসরায়েল। হামাসও ইসরায়েলে রকেট ছুড়েছে। তারই মধ্যে সোমবার ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বিবৃতি দিয়েছেন। সেনার এয়ারফোর্স বেস দেখতে গিয়ে তিনি বলেছেন, হামাসকে উচিত শিক্ষা দেওয়া হচ্ছে। তিনি বলেছেন, 'হামাস এবং ইসলামিক জিহাদ ভাবতেও পারেনি তারা এত বড় ধাক্কা খাবে।' যুদ্ধবিরতির প্রশ্ন নেই বলেও জানিয়ে দিয়েছেন তিনি।

নিউ ইয়র্ক টাইমসের একটি রিপোর্ট দাবি করেছে, হামাসের শীর্ষ নেতৃত্বের সঙ্গে তাদের কথা হয়েছে। হামাস জানিয়েছে, যুদ্ধবিরতিতে আপত্তি নেই। কিন্তু যুদ্ধবিরতির যে শর্ত ইসরায়েল চাপাতে চাইছে, তাতে তাদের আপত্তি আছে। তাদের দাবি, ইসরায়েল বলেছে, হামাস গোলাবর্ষণ থামানোর দুই-তিন ঘণ্টা পরে ইসরায়েল বিবেচনা করবে, তারা গোলাবর্ষণ থামাবে কি না। হামাস চায়, একইসঙ্গে দুই দেশ যুদ্ধবিরতিতে যাবে।

এসজি/জিএইচ (রয়টার্স, এপি, নিউ ইয়র্ক টাইমস)