যুক্তরাষ্ট্র অভিমুখে অভিবাসন প্রত্যাশীদের কাফেলা | বিশ্ব | DW | 22.10.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

অভিবাসন

যুক্তরাষ্ট্র অভিমুখে অভিবাসন প্রত্যাশীদের কাফেলা

গুয়াতেমালা থেকে মেক্সিকো সীমান্তে ঢুকে পড়েছে কয়েক হাজার মধ্য আমেরিকান অভিবাসন প্রত্যাশী৷

গুয়াতেমালা থেকে বাধা পেরিয়ে মেক্সিকো সীমান্তে ঢুকে পড়া কয়েক হাজার মধ্য আমেরিকান অভিবাসন প্রত্যাশী যুক্তরাষ্ট্র অভিমুখী যাত্রা অব্যাহত রেখেছে৷

অন্তত তিন হাজার মানুষের ওই কাফেলা কয়েক ঘণ্টা গুয়াতেমালা সীমান্ত বরাবর হেঁটে রোববার মেক্সিকোর টাপাচুলা শহরে পৌঁছায়৷ মেক্সিকোর কয়েকশ' দাঙ্গা পুলিশ প্রধান মহাসড়কে অবস্থান নিলেও তাঁদের আটকাতে পারেনি৷

এই অভিবাসন প্রত্যাশীদের অধিকাংশই এসেছেন হন্ডুরাস থেকে৷ তাঁদের অনেকে সীমান্তরক্ষী বাহিনীর নজরদারির মধ্যে মেক্সিকোতে ঢুকলেও কেউ কেউ আসেন অবৈধভাবে সাঁতরে বা ভেলা দিয়ে নদী পার হয়ে৷

স্থানীয় মেক্সিকানরা তাঁদের খাবার, পানি ও কাপড় দিয়ে সহায়তা করে৷

অভিবাসন প্রত্যাশীদের এই যাত্রার নিন্দা জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প৷ তাঁরা পিছু না হটলে যুক্তরাষ্ট্র-মেক্সিকো সীমান্ত বন্ধ করে দেওয়ার হুমকিও দিয়েছেন তিনি৷

তিনি টুইটারে লিখেলেছন, ‘‘এই অবৈধ বহিরাগতরা যাতে আমাদের দক্ষিণাঞ্চলীয় সীমান্ত অতিক্রম করতে না পারে সেজন্য সম্পূর্ণ প্রচেষ্টা নেওয়া হচ্ছে৷''

‘‘তাঁদের প্রথম মেক্সিকোতে আশ্রয়ের আবেদন করতে হবে এবং তাঁরা তা করতে ব্যর্থ হলে তখন যুক্তরাষ্ট্র তাঁদের ফেরাবে৷''

এই কাফেলার নেতাদের একজন রদ্রিগো আবেজা বার্তা সংস্থা এপিকে বলেন, ‘‘আমরা এখনো জানি না আমরা ওই সীমান্ত (যুক্তরাষ্ট্রের) পর্যন্ত যেতে পারব কিনা৷ তবে যত দূর পর্যন্ত যেতে পারি, সেই চেষ্টা আমরা অব্যাহত রাখব৷''

যুক্তরাষ্ট্র সীমান্ত পর্যন্ত যেতে তাঁদের অন্তত দুই হাজার কিলোমিটার পথ পেরোতে হবে৷

সীমান্তে অচলাবস্থা

মেক্সিকান কর্তৃপক্ষ শনিবার গুয়াতেমালা থেকে জনতার ওই কাফেলাকে তাদের সীমান্তে ঢুকতে দিতে অস্বীকার করে৷ মাত্র ৬৪০ জনকে সীমান্ত পেরিয়ে আসার অনুমতি দেয়৷ কেউ অবৈধভাবে ঢুকলে তাঁকে ফেরত পাঠানোর হুঁশিয়ারিও দেওয়া হয়৷

এর মধ্যেই সীমান্ত পাড়ি দেয় কয়েক হাজার মানুষ৷ রোববার গুয়াতেমালার সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়, আরো হাজারখানেক অভিবাসন প্রত্যাশী মেক্সিকো সীমান্তের পথে রয়েছেন৷

মেক্সিকোর স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে বলেছে, কেন্দ্রীয় সরকার ও চিয়াপাস স্টেট কর্তৃপক্ষ আশ্রয় প্রার্থনা করে আবেদনকারীদের খাবার, ওষুধের পাশাপাশি কাউন্সেলিং সেবা দিচ্ছে৷

অপরদিকে তাঁদের নিজ দেশ হন্ডুরাসে ফিরিয়ে দেওয়ার জন্য বাসের একটি বহর প্রস্তুত রেখেছে গুয়াতেমালা সরকার৷ প্রাথমিক খবরে তিন শতাধিক মানুষের ওই প্রস্তাবে রাজি হওয়ার কথা বলা হয়েছে৷

 

‘রাজনীতি' দেখছেন ট্রাম্প

যুক্তরাষ্ট্রে মধ্যবর্তী নির্বাচনের মাত্র সপ্তাহ দুয়েক আগে অভিবাসীর এই কাফেলা এবং যুক্তরাষ্ট্রের সীমান্ত নিরাপত্তাকে রাজনৈতিক ইস্যু করতে চাইছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প৷

শনিবার নেভাডায় এক সমাবেশে তিনি বলেন, ‘‘ডেমোক্র্যাটরা এই কাফেলা চায়৷ তারা কাফেলা পছন্দ করে৷''

অভিবাসনপ্রত্যাশীদের আটকে দেওয়ার চেষ্টা জন্য মেক্সিকো কর্তৃপক্ষের প্রশংসাও করেন ট্রাম্প৷ তবে তাঁদের যাত্রা না আটকালে ওই অঞ্চলে সহায়তা কমানো, সেনা মোতায়েন এবং যুক্তরাষ্ট্র-মেক্সিকো সীমান্ত বন্ধ করারও হুমকি দেন তিনি৷

গত সপ্তাহে হন্ডুরাসের সান পেড্রো সুলা থেকে অভিবাসনপ্রত্যাশীদের এই যাত্রা শুরু হয়৷ গুয়াতেমালা হয়ে মেক্সিকোর পথে ছুটে চলার সঙ্গে সঙ্গে তাঁদের বহর বড় হতে থাকে৷

এএইচ/এসিবি  (এপি/এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন