যুক্তরাষ্ট্রের জন্য হুমকি চীন ও রাশিয়া: পেন্টাগন | বিশ্ব | DW | 20.01.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

যুক্তরাষ্ট্র

যুক্তরাষ্ট্রের জন্য হুমকি চীন ও রাশিয়া: পেন্টাগন

একটি কৌশলপত্রে চীন ও রাশিয়াকে মূল সামরিক প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে ‘চিহ্নিত' করেছে যুক্তরাষ্ট্র৷ যুক্তরাষ্ট্রের এমুন আচরণকে ‘সাম্রাজ্যবাদী' বলে আখ্যায়িত করেছে রাশিয়া৷ চীন বলছে, এটা তাদের ‘স্নায়ুযুদ্ধের মানসিকতা'৷

শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা বিভাগ ‘জাতীয় প্রতিরক্ষা কৌশল' শিরোনামের একটি নথি প্রকাশ করে৷ সেখানে চীন ও রাশিয়াকে সবচেয়ে বড় সামরিক হুমকি বলে উল্লেখ করে নিজেদের সামরিক সক্ষমতা বাড়ানোর সুপারিশ করা হয়েছে৷

‘‘দিন দিন এটা স্পষ্ট হয়ে উঠছে যে, চীন ও রাশিয়া এমন একটি কর্তৃত্বপূর্ণ মডেলে পুরো বিশ্বের ওপর তাদের নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করছে, যেখানে জাতিগুলোর অর্থনৈতিক, কূটনৈতিক ও নিরাপত্তা বিষয়ক সিদ্ধান্তে তারা হস্তক্ষেপ করতে পারে৷'' প্রকাশিত নথির ১১ পৃষ্ঠার সংস্করণে এমনটিই লেখা ছিল৷

নতুন কৌশলে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা নীতিতে একটি মৌলিক পরিবর্তন আনার কথা বলা হয়েছে৷ ২০০১ সালের নাইন ইলেভেনের পর মধ্যাপ্রাচ্যসহ বিভিন্ন দেশে সন্ত্রাস দমনে যুক্তরাষ্ট্রের সেনা মোতায়েন ও যুদ্ধ করাই গুরুত্বপূর্ণ ছিল এতদিনের প্রতিরক্ষা কৌশলে৷ কিন্তু সে জায়গা থেকে কিছুটা সরে আসার কথা বলা হচ্ছে এখন৷

Afghanistan Mattis und Stoltenberg bei Ghani PK in Kabul

জেমস ম্যাটিস

কৌশলপত্রটি প্রকাশের সময় দেশটির প্রতিরক্ষা সচিব জেমস ম্যাটিস বলেন, ‘‘চীন একদিকে তার লুটেরা অর্থনীতি দিয়ে প্রতিবেশীদের গ্রাস করে ফেলতে চাইছে, অন্যদিকে দক্ষিণ চীন সাগরে সামরিক প্রভাব বাড়াচ্ছে৷''

রাশিয়া সম্পর্কে বলেন, ‘‘রাশিয়া তার নিকটতম রাষ্ট্রগুলোর সীমানা লঙ্ঘন করেছে৷''

ম্যাটিস ঘোষণা দেন, ‘‘আমরা সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে বিভিন্ন দেশে যে যুদ্ধ চালাচ্ছি, তা চালিয়ে যাবো, কিন্তু এখন থেকে আমাদের মূল লক্ষ্য সন্ত্রাসবাদ নয়, বড় শক্তিগুলোর সঙ্গে পাল্লা দেয়া৷''

গেল ডিসেম্বরে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পও অনেকটা একই সুরে কথা বলেছিলেন৷

এদিকে, যুক্তরাষ্ট্রের এমন প্রতিরক্ষা কৌশলের পর আবারো স্নায়ুযুদ্ধের আভাস পাচ্ছে চীন৷ তারা একে যুক্তরাষ্ট্রের স্নায়ুযুদ্ধের মানসিকতা বলে উল্লেখ করেছে৷  রাশিয়া বলেছে, যুক্তরাষ্ট্রের সাম্রাজ্যবাদী চরিত্রই কেবল সামনে আসছে৷

জেডএ/ এসিবি (রয়টার্স, এএফপি, এপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়