যুক্তরাজ্যে যাতায়াত বন্ধ করল ইউরোপ | বিশ্ব | DW | 21.12.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

করোনা ভাইরাস

যুক্তরাজ্যে যাতায়াত বন্ধ করল ইউরোপ

যুক্তরাজ্যে নতুন ধরনের করোনার প্রকোপ। যাতায়াত বন্ধ করল জার্মানি সহ ইউরোপের একাধিক দেশ।

যুক্তরাজ্যের সমস্ত বিমান বাতিল করে দিল জার্মানি। একই সঙ্গে বাতিল করা হলো দক্ষিণ আফ্রিকার সঙ্গে যোগাযোগও। যুক্তরাজ্যে করোনা ভাইরাসের একটি নতুন ধরনের স্ট্রেইন পাওয়া গিয়েছে। যা দ্রুত সংক্রমিত হচ্ছে। এ বিষয়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা সতর্ক করার পরেই সেখানে যাত্রা বন্ধ করেছে জার্মানি। ইউরোপের আরো বেশ কিছু দেশও একই সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

যুক্তরাজ্যে করোনার একটি নতুন ধরন খুঁজে পাওয়া গিয়েছে। বিশেষজ্ঞদের বক্তব্য, সাধারণ করোনার চেয়ে অনেক দ্রুত ছড়াচ্ছে নতুন এই করোনার স্ট্রেইনটি। যে কারণে যুক্তরাজ্যের মানুষকে নতুন করে সতর্ক করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। দেশের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের সঙ্গেও বৈঠক করেছে।

নতুন করোনা ভাইরাসের কথা শোনার পরেই ইউরোপের বিভিন্ন দেশ যুক্তরাজ্যের সঙ্গে যাতায়াত বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। রোববার জার্মানির স্বাস্থ্যমন্ত্রী প্রথমে টুইট করে বিমান বন্ধের ঘোষণা করেন। পরে সরকারের মুখপাত্রও সে কথা জানান। বলা হয়েছে, রোববার সকাল ছয়টা থেকে এই নিয়ম কার্যকরী করা হয়েছে। আপাতত ১ জানুয়ারি পর্যন্ত এই নিয়ম প্রযোজ্য হবে। তারপর পরবর্তী সিদ্ধান্ত জানানো হবে।

শুধু যুক্তরাজ্য নয়, দক্ষিণ আফ্রিকার সঙ্গেও যোগাযোগ বন্ধ করেছে জার্মানি। বলা হয়েছে, খুব প্রয়োজন না হলে কেউ যেন দক্ষিণ আফ্রিকা না যান। কারণ সেখানেও করোনার সংক্রমণ নতুন করে দ্রুত ছড়াতে শুরু করেছে। সম্প্রতি যুক্তরাজ্য এবং দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে যাঁরা জার্মানিতে এসেছেন ফেডারেল পুলিশ তাঁদের উপর কড়া নজর রাখছে। তাঁদের চলাফেরায় নিয়ন্ত্রণ আনা হয়েছে। কেউ অসুস্থ হয়ে পড়ছেন কি না, সে দিকেও লক্ষ্য রাখা হচ্ছে।

শুধু জার্মানি নয়, ফ্রান্স, বেলজিয়াম, ইটালি, নেদারল্যান্ডস সকলেই আপাতত যুক্তরাজ্যে যাতায়াত বন্ধ রেখেছে। ফরাসি বন্দর থেকে যুক্তরাজ্যে পণ্য পাঠানো বন্ধ রাখা হয়েছে। সমস্ত ট্রাক দাঁড়িয়ে আছে বন্দর এলাকায়। তারই মধ্যে রোববার জার্মান চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেল, ফরাসি প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল মাক্রোঁ, ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের প্রেসিডেন্ট উরসুলা ফন ডেয়ার লাইয়েন বৈঠক করেছেন। যুক্তরাজ্যের নতুন স্ট্রেইন থেকে ইউরোপকে কী ভাবে রক্ষা করা যায়, তা নিয়ে আলোচনা হয়েছে। সব ঠিক থাকলে আগামী ২৭ ডিসেম্বর থেকে ইউরোপের বিভিন্ন দেশে ভ্যাকসিন দেওয়া শুরু হবে বলে জানিয়েছে সরকার। তারই মধ্যে যুক্তরাজ্যের নতুন ভাইরাস কপালে ভাঁজ ফেলেছে সকলের।

এসজি/জিএইচ (রয়টার্স, এপি)

সংশ্লিষ্ট বিষয়