যুক্তরাজ্যের সামনে অনেক ‘অপশন’ | বিশ্ব | DW | 22.03.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ব্রেক্সিট

যুক্তরাজ্যের সামনে অনেক ‘অপশন’

লন্ডনের তিন বছরের সিদ্ধান্তহীনতার পর বৃহস্পতিবার যুক্তরাজ্যের সামনে বেশ কয়েকটি পথ খুলে দিয়েছেন ইউরোপীয় ইউনিয়নের নেতারা৷ সিদ্ধান্ত নেয়ার জন্য কয়েক সপ্তাহ সময়ও দিয়েছেন৷

বৃহস্পতিবার দু-একটি বৈঠকের পর ইউরোপীয় কাউন্সিল জানিয়েছে যে, ব্রিটেনকে বেরিয়ে যাবার সময় ২৯ মার্চ থেকে ২২ মে পর্যন্ত দেয়া হলো, যদি টেরেসো মে আগামী সপ্তাহে সংসদে চুক্তি বাতিলের পক্ষে সংখ্যাগরিষ্ঠ ভোট আদায় করতে পারেন৷ এর আগে দু'বার ব্যর্থ হয়েছেন তিনি৷

তাই আবারো যদি তিনি ব্যর্থ হন, তাহলে ১২ এপ্রিলের মধ্যে তাদের ঠিক করতে হবে যে তারা কী করতে যাচ্ছেন৷

‘‘ব্রিটিশ রাজনীতিকদেরই এখন একটি স্পষ্ট উত্তর তৈরি করতে হবে,’’ বলেন ফ্রেঞ্চ প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল মাক্রোঁ৷ আগামী ২৩ থেকে ২৬ মে ইউরোপীয়ান পার্লামেন্টের নির্বাচন৷ এর আগেই সিদ্ধান্ত নিতে হবে বলে জোর দেন মাক্রোঁ৷

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী টেরেসা মে গত তিন বছর ধরে জনগণকে বলে আসছিলেন যে, ২০১৯ সালের ২৯ মার্চের মধ্যে ইইউ ত্যাগ করবেন৷ তিনিও এই বিলম্বকে ইতিবাচকভাবে দেখছেন৷

‘‘আগামী সপ্তাহে ব্রেক্সিট চুক্তি পাস করা খুবই জরুরি হয়ে পড়েছে, যাতে আমরা বিনা বাধায় নিয়ম মেনে বেরিয়ে আসার পথে আর কোনো অনিশ্চয়তা না থাকে৷’’

এদিকে, ইইউ প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড টুস্কও স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেছেন যে, অন্তত একটি পরিষ্কার ‘ডেডলাইন’ তৈরি করা গেছে৷

‘‘আমি খুবই সন্তুষ্ট যে, এখনো অনেকগুলো অপশন আছে,’’ বলেন তিনি৷

সব মিলিয়ে আগামী সপ্তাহে সুরাহা না হলে, ব্রিটেনকে ১২ এপ্রিলের মধ্যেই সিদ্ধান্ত নিতে হবে যে, এই ব্লক থেকে হুট করে বেরিয়ে যেতে চায়, না কি সময় নিয়ে নিয়মতান্ত্রিক উপায়ে বেরুতে চায়৷ তারা চাইলে ইউরোপের নির্বাচনেও অংশ নিতে পারে৷

জেডএ/ডিজি (এপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন