‘যারা গৃহের রানি, তারাই হচ্ছে গৃহিণী′ | পাঠক ভাবনা | DW | 20.11.2017
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

মতামত

‘যারা গৃহের রানি, তারাই হচ্ছে গৃহিণী'

‘সংসার সুখের হয় রমনীর গুণে' – ‘‘এটা চিরকালের সত্য৷ মা, বোন, স্ত্রী ও কন্যা ছাড়া দুনিয়া তাই অচল৷'' ডয়চে ভেলে থেকে প্রকাশিত ‘গৃহিণী' বিষয়ক লেখাগুলো পড়ে ফেসবুকে এ মন্তব্যটি করেছেন এক পাঠক৷ অনেকেই তাঁর সঙ্গে একমত৷

গৃহিণীরা তাঁদের শ্রমের প্রাপ্য মর্যাদা কতটা পাচ্ছেন, তার উত্তরে পাঠক মোহাম্মদ দাউদ আমাদের ফেসবুকে জানিয়েছেন, ‘‘সব কিছু কেন অর্থ দিয়ে বিচার হবে? আপনাকে যে লালন-পালন করে বড় করলো, তাঁকে আপনি আর কত দিয়েছেন! আমার মা তো চাকরি করেনি৷ কিন্তু বাবা সব টাকা-পয়সাই মায়ের হাতে দিত, যার মূল্য ছিল ভালোবাসা৷ এটা টাকা দিয়ে কখনো কেনা যায় না৷''

সালেক মাহমুদ তো সেই চির পরিচিত প্রবাদ বাক্যটির পুনরাবৃত্তি করেছেন, ‘‘সংসার সুখের হয় রমনীর গুণে৷'' তিনি আরো লিখেছেন, ‘‘এটাই চিরকালের সত্য৷ মা, বোন, স্ত্রী ও কন্যা ছাড়া দুনিয়া তাই অচল৷''

গৃহিণীকে তার প্রাপ্য মূল্য দেওয়া কখনই সম্ভব নয়৷ তবে তাঁকে যা দেয়া যায় তা হচ্ছে সম্মান, শুধুই ‘সম্মান'৷ এই মন্তব্য ডয়চে ভেলের পাঠক আনিসুর রহমানের৷

আবদুল্লাহ আল-মামুনও খুব সুন্দর করে জানিয়েছেন তাঁর মনের কথা৷ লিখেছেন, ‘‘যারা গৃহের রানি, তারাই হচ্ছে গৃহিণী!  রানির মজুরি হয় নাকি?''

এছাড়া ‘অমূল্য' – এই একটি মাত্র শব্দের মধ্য দিয়েই গৃহিণীদের কাজের প্রতি সম্মান জানিয়েছেন পাঠক মোহাম্মদ আলী৷

সংকলন: নুরুননাহার সাত্তার

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

নির্বাচিত প্রতিবেদন