ম্যার্কেল, সোশ্যাল ডেমোক্র্যাটদের জনপ্রিয়তা কমছে | বিশ্ব | DW | 12.10.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

জার্মানি

ম্যার্কেল, সোশ্যাল ডেমোক্র্যাটদের জনপ্রিয়তা কমছে

জার্মান চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেলের জোট সরকারের জনপ্রিয়তা নেমে এসেছে ৪১ শতাংশে৷ তাঁর দল সিডিইউ ২৬ এবং সোশ্যাল ডেমোক্র্যাটদের জনপ্রিয়তা ১৫ শতাংশ৷ দ্বিতীয় অবস্থানে আছে গ্রিন পার্টি৷

বাভারিয়া নির্বাচনের মাত্র তিন দিন আগে প্রকাশ হলো ডয়েচলান্ডট্রেন্ডের এই নিয়মিত জরিপের সবশেষ ফল৷

জোট সরকারের তিন দল, ম্যার্কেলের খ্রিস্টীয় গণতন্ত্রী দল সিডিইউ, বাভারিয়া রাজ্যের খ্রিস্টীয় সামাজিক ইউনিয়ন সিএসইউ এবং সামাজিক গণতন্ত্রী দল এসপিডি সেপ্টেম্বরের তুলনায় তিন শতাংশ করে সমর্থন হারিয়েছে৷

১৭ শতাংশ সমর্থন নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে উঠে এসেছে পরিবেশবাদী দল গ্রিন পার্টি৷ এসপিডিকে ছাড়িয়ে বাভারিয়ার নির্বাচনেও এখন পর্যন্ত দ্বিতীয় স্থান দখলের আভাস দিচ্ছে দলটি৷

বাডেন-ভ্যুর্টেমবার্গ এবং হেসে রাজ্যে এরই মধ্যে সরকারে আছে দলটি৷

এএফডির পেছনে এসপিডি

১০০৮ জন ভোটারের মতের ভিত্তিতে এ জরিপ প্রকাশ করেছে জার্মানির এআরডি টেলিভিশন৷ জরিপে দেখা যাচ্ছে, উগ্র ডানপন্থি দল অলটারনেটিভ ফর ডয়চলান্ড এএফডিকে সমর্থন করেন ১৬ শতাংশ মানুষ৷

তাঁদের চেয়ে পিছিয়ে ১৫ শতাংশ ভোটারের সমর্থন পেয়েছে এসপিডি৷

১০ শতাংশ করে সমর্থন পেয়েছে বামপন্থি লেফট পার্টি এবং ব্যবসাপন্থি ফ্রি ডেমোক্র্যাট পার্টি এফডিপি৷

জার্মান মন্ত্রিসভার গত ছয় মাসের অবস্থা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন ভোটাররা৷ জরিপে অংশ নেয়া ভোটারদের ৫৬ শতাংশ সরকারের এই অবস্থার জন্য দায়ী করেছেন ম্যার্কেলকেই, ৩১ শতাংশ দায়ী করেছেন সেহোফারকে৷

Infografik D-Trend Current government situation EN

নিরাপত্তা ইস্যুতে অর্ধেক ভোটারের সমর্থন পেয়েছে সরকার, অভিবাসন নীতিতে সমর্থন মিলেছে এক-তৃতীয়াংশের৷ তবে তিন চতুর্থাংশ ভোটার সার্বিকভাবে সরকারের কর্মকাণ্ডে বিরক্ত৷

বিশেষ কিছু ইস্যুতে সমর্থন কমেছে সবচেয়ে বেশি৷ ডিজেল কেলেঙ্কারিতে সরকারের ভূমিকা পছন্দ করেননি ৮২ শতাংশ ভোটার৷ ভাড়া ও নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের দাম বৃদ্ধির মধ্যে বাসস্থান নির্মাণের উদ্যোগকেও সমর্থন করেন না ৭৯ ভাগ ভোটার৷

Infografik D-Trend Satisfaction with government policy EN

সরকারের জলবায়ু পরিবর্তন নীতিকে অপর্যাপ্ত মনে করেন ৭৪ শতাংশ মানুষ৷ বিশেষ করে তীব্র প্রতিবাদ সত্ত্বেও হামবাখে বন কেটে উন্মুক্ত কয়লা খনি সম্প্রসারণের উদ্যোগকে ভালো দৃষ্টিতে দেখছেন না জার্মান ভোটাররা৷

এডিকে/এসিবি (ডিপিএ, রয়টার্স, ইপিডি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন