মোদী-মমতা বৈঠক, রাজ্যের নামবদল নিয়ে কথা | বিশ্ব | DW | 27.07.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ভারত

মোদী-মমতা বৈঠক, রাজ্যের নামবদল নিয়ে কথা

বিধানসভা নির্বাচনে জিতে আসার পর দিল্লি এসে প্রধানমন্ত্রী মোদীর সঙ্গে বৈঠক করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

ফাইল চিত্র।

ফাইল চিত্র।

মঙ্গলবার প্রায় আধঘণ্টা ধরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে বৈঠক করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পশ্চিমবঙ্গে জিতে আসার পর এই প্রথমবার প্রধানমন্ত্রী-মুখ্যমন্ত্রী বৈঠক হলো। বৈঠকের পর মমতা জানিয়েছেন, তিনি প্রধানমন্ত্রীর কাছে আরো টিকা চেয়েছেন। তিনি বলেছেন, ''পশ্চিমবঙ্গ জনবহুল রাজ্য। তাই জনসংখ্যার কথা মাথায় রেখে পশ্চিমবঙ্গকে টিকা দেয়া উচিত। জনসংখ্যার তুলনায় উপযুক্ত সংখ্যক টিকা রাজ্য পাচ্ছে না।''

মমতা জানিয়েছেন, তিনি পশ্চিমবঙ্গের নামবদলের প্রসঙ্গ প্রধানমন্ত্রীর কাছে তুলেছিলেন। তার বক্তব্য, ''অনেক দিন হলো বিষয়টি কেন্দ্রের কাছে পড়ে আছে। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, তিনি ভেবে দেখবেন।'' রাজ্য সরকার পশ্চিমবঙ্গের নামবদল করে বঙ্গ রাখার প্রস্তাব করেছে।  মুখ্যন্ত্রীকে প্রশ্ন করা হয়, পেগাসাস নিয়ে কি কোনো কথা হয়েছে? মমতার জবাব, নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে তার কী কথা হয়েছে, তা বিস্তারিতভাবে বলা সম্ভব নয়। তবে তিনি চান. প্রধানমন্ত্রী একটি সর্বদলীয় বৈঠক ডাকুন এবং সুপ্রিম কোর্টের তত্ত্বাবধানে তদন্ত হোক।

তবে এদিন রাহুল গান্ধী বিরোধী দলের নেতাদের সঙ্গে পেগাসাস নিয়ে বৈঠক করেছেন। সেখানে বিএসপি, ডিএমকে, এনসিপি, সিপিএম সহ কয়েকটি দলের নেতারা ছিলেন।

জোটের নেতৃত্ব নিয়ে মমতা বলেছেন, ''জনতাই এর নেতৃত্ব দেবেন। ২০২৪-এর এখনো দেরি আছে। তার আগে উত্তর প্রদেশ, পাঞ্জাব সহ কয়েকটি রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচন আছে। সেখানে বিরোধীরা একটা কৌশল নিয়ে যাতে লড়ে তার চেষ্টা হচ্ছে।''

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রীর বৈঠক নিয়ে রাজ্য বিজেপি-র মুখপাত্র শমীক ভট্টাচার্যের প্রতিক্রিয়া, ''প্রধানমন্ত্রীর কাছে বেশি টিকা চাওয়ার দাবি অস্বাভাবিক নয়। কিন্তু যে টিকা রাজ্যে আসছে, তার ঠিকমতো ব্যবহার নিশ্চিত করুন মুখ্যমন্ত্রী।'' তিনি জানান, বিজেপি দল হিসাবে রাজ্যের নামবদলের বিরুদ্ধে। কারণ, নামবদল হলে একটা ইতিহাস বিলুপ্ত হয়ে যাবে বলে তারা মনে করেন। জোট প্রসঙ্গে তিনি বলেন, বিরোধীরা এই চেষ্টা করতেই পারেন। কিন্তু মানুষ মোদীর উপরই আস্থা রাখবেন।

জিএইচ/এসজি(মুখ্যমন্ত্রীর সাংবাদিক বৈঠক)

 

সংশ্লিষ্ট বিষয়