মোদীকে হারাতে বিরোধী জোটের চেষ্টা শুরু | বিশ্ব | DW | 16.06.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ভারত

মোদীকে হারাতে বিরোধী জোটের চেষ্টা শুরু

মোদীকে হারাতে বিরোধী জোটের প্রয়াস শুরু হয়েছে। সেখানে মমতা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নেবেন বলে মত যশবন্ত সিনহার।

বিরোধী জোটের জন্য সক্রিয় যশবন্ত সিনহা।

বিরোধী জোটের জন্য সক্রিয় যশবন্ত সিনহা।

কাজটা এখন থেকেই শুরু হয়ে গেছে। ২০২৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি-র বিরুদ্ধে সব বিরোধীদের একজোট করার কাজ। সেই কাজে অন্য অনেকের মতো আছেন সাবেক পররাষ্ট্র ও অর্থমন্ত্রী যশবন্ত সিনহা। ডয়চে ভেলেকে যশবন্ত জানিয়েছেন, ''২০২৪-এর লোকসভা নির্বাচনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় একটা বড় ভূমিকা পালন করবেন।''

যশবন্তের দাবি, কেন্দ্রীয় স্তরে তার মতো বেশ কয়েকজন প্রবীণ নেতা সক্রিয়। আঞ্চলিক দলগুলিকে নিয়ে সমস্যা নেই। অন্যতম প্রবীণ বিরোধী নেতা শরদ পাওয়ার এবং শিবসেনা নেতা ও মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে এখন মমতার সঙ্গে আছেন। অখিলেশের সঙ্গেও মমতার ভালো সম্পর্ক। যশবন্ত বলেছেন, ''বিজেপি-বিরোধী আঞ্চলিক দলগুলির একজোট হতে কোনো অসুবিধা হবে না। প্রশ্নটা কংগ্রেসকে নিয়ে। কংগ্রেসকেও বোঝানোর কাজ চলছে।''

যশবন্ত জানিয়েছেন, ''বিরোধীদের মধ্যে কংগ্রেস একমাত্র জাতীয় দল। বাকিরা সকলেই মূলত আঞ্চলিক দল। ফলে কংগ্রেস কীভাবে এই জোটে আসবে, কী শর্তে আসবে, সেসব তাদের ঠিক করতে হবে।'' যশবন্তের দবি ''মমতার সঙ্গে সোনিয়া গান্ধীর সম্পর্ক খুবই ভালো। সোনিয়া পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রীকে খুবই স্নেহ করেন। তাই কংগ্রেসের সঙ্গে কথা বলার কাজটা মমতাও করতে পারেন।''

যশবন্ত মনে করেন, ''বিরোধী আঞ্চলিক দলগুলির প্রায় সাড়ে তিনশ লোকসভা আসনে প্রভাব রয়েছে। তাই কংগ্রেস আঞ্চলিক দলের জোটকে উপেক্ষা করতে পারবে না। আর তাদের যে অবস্থা, তাতে আঞ্চলিক দলের সঙ্গে জোটে যেতে হবে।''

অটলবিহারী বাজপেয়ীর আমলে সাবেক আইএফএস অফিসার যশবন্তের প্রভাব ছিল খুবই বেশি। কিন্তু মোদী-শাহের আমলে তিনি শুধু বিদ্রোহী নন, এখন তিনি বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন। যশবন্ত চান, বিজেপি-র বিরুদ্ধে সম্মিলিত বিরোধী প্রার্থী  দাঁড় করানো হোক। তাহলেই বিজেপি-কে হারানো সহজ হবে। তার কাছে, প্রথম পরীক্ষা হলো উত্তর প্রদেশে। 

আগামী বছর ফেব্রুয়ারি-মার্চ নাগাদ উত্তর প্রদেশে বিধানসভার নির্বাচন। যশবন্তরা চাইছেন, সেখানে বিজেপি-র বিরুদ্ধে বিরোধী জোট প্রার্থী দিক। সমাজবাদী পার্টির নেতৃত্বে বিরোধীরা একজোট হোক। যদি বিএসপি না আসে, তা হলে বাকিরা একজোট হোক।

সমাজবাদী পার্টির নেতা অখিলেশ যাদব ইতিমধ্যে জানিয়ে দিয়েছেন, তিনি ছোট দলগুলিকে নিয়ে জোট করতে আগ্রহী। মায়াবতীর দলের সঙ্গে তিনি হাত মেলাতে চান না। যশবন্তরা চাইছেন, কংগ্রেস সহ বাকি দলগুলিকে নিয়ে চলুন অখিলেশ। সে ব্যাপারে কথাও হচ্ছে।

তবে এখনই বিরোধী জোটের নেতৃত্ব, প্রধানমন্ত্রী পদপ্রার্থী নিয়ে কোনো কথা বলতে চান না যশবন্ত। তিনি শুধু বলেছেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই জোটে বড় ভূমিকা থাকবে। তাঁর কথায়, ''তৃণমূল এখনো সর্বভারতীয় পার্টি নয়। তবে কংগ্রেস, শিবসেনা সহ অনেক দলের নেতৃত্বের সঙ্গে মমতার খুবই ভাল সম্পর্ক আছে।''