মেননের মন | বিশ্ব | DW | 21.10.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

সংবাদভাষ্য

মেননের মন

বরিশালে রাশেদ খান মেনন বললেন, গত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জনগণ ভোট দিতে পারেনি৷ সেই নির্বাচনে তিনি এমপি হয়েছেন, তাই পদত্যাগ প্রশ্নে তিনি বললেন, ‘‘আমি বলিনি জনগণ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বা আমাকে ভোট দেয়নি৷ ''

তিনি নাকি শুধু বলেছেন, ‘‘জনগণ ভোট দিতে পারেনি৷’’

মানে কী? পাঠক আসুন, একটু নিবিড় পর্যবেক্ষণ করি৷ মেননের কথা অনুসারে জনগণ ভোট দিতে পারে নাই৷ ধরে নেই, এই সিদ্ধান্ত সঠিক৷ তার দ্বিতীয় দাবি অনুসারে জনগণ শেখ হাসিনাকে এবং তাকে ভোটে নির্বাচিত করেছে৷ ধরে নেই, তার দ্বিতীয় সিদ্ধান্তও সঠিক৷ তাহলে কী যে জনগণ ভোট দিতে পারে নাই আর যে জনগণ ভোট দিতে পেরেছে তারা আলাদা জনগণ? একটি দেশের সাধারণ নাগরিকদের ‘জনগণ' বলার একটি চল রয়েছে৷ তবে কী যে জনগণ ভোট দিতে পেরেছে আর যারা পারেননি তারা দুটি ভিন্ন দেশের জনগণ?

আধা শতাব্দী সক্রিয় রাজনীতি করা রাশেদ খান মেননের সঙ্গী ও সহযোদ্ধাদের অনেকেই এখন আর তার পাশে নেই৷ এমনিতেই তিনি অনেকটা একা৷ তার একাকীত্ব আরো বেশি বোঝা গেছে যখন আমরা দেখেছি, সংসদে সংরক্ষিত নারী আসনে তিনি নিজের স্ত্রীর নাম প্রস্তাব করলেন৷ অনেকে বলেন, স্ত্রীকে এমপি করার জন্য তার দৌড়াদৌড়ি ছিল দেখার মতো৷

আমার খুব জানতে ইচ্ছে করে, বরিশালে মেনন সাহেব জনগণের ভোট দিতে না পারার কথা কেন বললেন? তার দাবি, তিনি সংসদেও একথা বলেছেন৷ জনাব মেনন, আপনি একটু শুনে দেখবেন সংসদে আপনি কী বলেছেন আর কী বললেন বরিশালে৷ আমার ধারণা, আপনার এখনো দুটো সক্রিয় কান রয়েছে৷ একটু মিলিয়ে দেখলে ক্ষতি কী?

Khaled Muhiuddin (DW/P. Böll)

খালেদ মুহিউদ্দীন, প্রধান, ডয়চে ভেলে বাংলা বিভাগ

যা বলছিলাম, জনাব মেনন কেন বরিশালে একথা বললেন? এই প্রশ্নের উত্তর নানাভাবে খোঁজা যায়৷ একটি পদ্ধতি শেক্সপিয়ার বাতলে দিয়েছেন, এই পৃথিবীতে এমন অনেক কিছু ঘটে যা জ্ঞান বা দর্শন দিয়ে ব্যাখ্যা করা যায় না৷ আরেকটি পদ্ধতি হলো পারিপার্শ্বিক পরিস্থিতি বিবেচনা করা৷ যেমন, এখন রাশেদ খান মেনন কে বা কী? তিনি এখন আর মন্ত্রী নন তবে ঢাকার গুরুত্বপূর্ণ এলাকার এমপি৷ কিন্তু তার কথা সত্যি ধরে নিলে এই এলাকায় ক্যাসিনো চলুক বা অন্য কোনো ক্লাব কার্যক্রম, তার কিছুই তাকে জানিয়ে বা অনুমোদন নিয়ে হয় না৷ এমনকি তিনি সভাপতি হলেও না৷ তবে আর এমপি হয়েই কী মজা৷ স্কুল-কলেজও শুনেছি তার কথা আর তত শোনে না৷ আবার তার কথা যদি সত্য না হয়, তিনি যদি এসব কার্যক্রম অনুমোদনের অধিকারী বা ভাগিদারও হন তবে যারা রিমান্ডে গিয়েছেন তাদের মুখে খুব শিগগিরই তার নাম আসার কথা৷ তিনি সরকারের ঘরের ছেলে নন বলে, তাকে ঝুলিয়ে দিয়ে সরকার মুখরক্ষা করতে পারে৷ এতে করে সাপও মরলো লাঠিও ভাঙলো না৷

মেনন সাহেব ঝানু রাজনীতিবিদ৷ এই সাপের লেজ খেতে শুরু করা জাতীয় ধাঁধাঁর জবাব নিশ্চয়ই তার কাছে রয়েছে, আমাদের আশা তিনি নিশ্চয়ই এর উত্তর আমাদের দেবেন৷

অবশ্য এই ধাঁধাঁর উত্তরের সঙ্গে যদি মন্ত্রীত্ব না থাকা ক্যাসিনো ক্লাবের প্রধান হওয়ার কোনো সংযোগ থাকে তবে উত্তরের আশা বৃথা৷ আমি কিন্তু মনোযোগী ছাত্রের মতো রাশেদ খান মেননের মন বোঝার আশায় আছি৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন