‘মেক অ্যামেরিকা গ্রেট এগেইন!′ | বিশ্ব | DW | 23.01.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ভাইরাল ভিডিও

‘মেক অ্যামেরিকা গ্রেট এগেইন!'

গত সপ্তাহে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের গর্ভপাতবিরোধী একটি সমাবেশে অদ্ভূত পরিবেশ৷ একদিকে স্থানীয় ‘নেটিভ অ্যামেরিকান' বা আদিবাসী গোষ্ঠীর মানুষেরা প্রতিবাদে ব্যস্ত, অন্যদিকে দাঁড়িয়ে চরমপন্থি মনোভাবাপন্ন তরুণেরা৷

এই সমাবেশের একটি ভিডিও ঘিরেই উত্তাল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম৷ ‘মেক অ্যামেরিকা গ্রেট এগেইন!' মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের সময় ডোনাল্ড ট্রাম্পের এই উক্তি মুখে মুখে ঘুরছিল৷ অ্যামেরিকাকে অন্যদের হাত থেকে মুক্ত করে প্রকৃত ‘অ্যামেরিকানদের' হাতে ফিরিয়ে দেওয়ার এই আহ্বানের সমালোচনা করেছিলেন অনেকে৷

বলা হয়, এই উক্তি আসলে ‘হোয়াইট সুপ্রিমেসিস্ট' বা বর্ণবাদী৷ এই উক্তিটি ঘিরে আবার বিতর্কে অ্যামেরিকা৷

গত শনিবারের একটি  গর্ভপাতবিরোধী সমাবেশেতাঁকে উদ্দেশ্য করে বর্ণবাদী বিদ্রুপ করা হয় বলে অভিযোগ তোলেন ন্যাথান ফিলিপস৷

সমাবেশে প্রতিবাদের পন্থা হিসাবে ন্যাথান বেছে নেন নেটিভ অ্যামেরিকান গান ও ঢোল৷

ট্রাম্পপন্থি কয়েকজন তরুণ মাথায় ‘মেক অ্যামেরিকা গ্রেট এগেইন!' লেখা টুপি পরে তাঁকে ঘিরে হাসাহাসি করার একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়লে বাধে বিতর্ক৷

হলিউডের নামিদামি ব্যক্তিত্বরা দাঁড়ান ন্যাথানের পাশে৷ অন্যদিকে শোনা যায়, বর্ণবাদের অভিযোগ নাকি মনগড়া! আসলে নাকি এমন কিছুই ঘটেনি!

এই বিতর্কের কোনো সুরাহা এখনো না হলেও ঘটনাটির ভিডিও সোশাল মিডিয়ায় তোলপাড় তুলেছে৷

শুধুমাত্র টুইটারেই ন্যাথানের একটি ভিডিও দেখা হয়েছে ৪৪ লক্ষবার৷

ইউটিউবের বিভিন্ন চ্যানেলে রয়েছে এই ভিডিও৷ সেখানেও ভিডিওটি দেখা হয়েছে কয়েক লক্ষবার৷

কোন পক্ষের বয়ান ঠিক, তা না জানলেও শিরোনামে আবার ফিরেছে ‘মেক অ্যামেরিকা গ্রেট এগেইন!'

এসএস/এসিবি

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন