মুক্তি পেলেন খালেদা জিয়া | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 25.03.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ

মুক্তি পেলেন খালেদা জিয়া

দুর্নীতির মামলায় দোষী সাব্যস্ত বিএনপির চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়াকে শর্তসাপেক্ষে ছয় ‍মাসের জন্য মুক্তি দেয়া হয়েছে৷ ২৫ মাস কারাভোগের পর তিনি মুক্তি পেলেন৷

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

বুধবার বিকালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতাল থেকে ছাড়া পাওয়ার পর নেতাকর্মীদের ভিড় আর স্লোগানের মধ্যে সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী নিজের নিশান পেট্রোল গাড়িতে করে গুলশানের বাড়ির পথে রওনা হন বলে জানায় বাংলাদেশে ডয়চে ভেলের কনটেন্ট পার্টনার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম৷

খালেদার ছোট ভাই শামীম এস্কান্দার নিজে গাড়ি চালিয়ে তাকে তার গুলশানের বাড়ি ‘ফিরোজায়’ পৌঁছে দেন। শামীমের স্ত্রী কানিজ ফাতেমাও ছিলেন ওই গাড়িতে৷

একদিন আগে জরুরি সংবাদ সম্মেলনে খালেদা জিয়াকে শর্তসাপেক্ষে মুক্তি দেয়ার সরকারি সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছিলেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক৷ শর্ত হল- এই সময়ে খালেদাকে ঢাকায় নিজের বাসায় থেকে চিকিৎসা নিতে হবে৷ তিনি বিদেশে যেতে পারবেন না৷

খালেদার মুক্তির দিন
খালেদার দণ্ডের কার্যকারিতা স্থগিত করে মুক্তির আদেশের নথি প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও কারা কর্তৃপক্ষের হাত ঘুরে বুধবার স্থানীয় সময় বিকাল ৩টার পর বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে পৌঁছায়৷ সেখানে প্রয়োজনীয় আনুষ্ঠানিকতা শেষে খালেদাকে মুক্তি দিয়ে তার কেবিনের সামনে থেকে পুলিশ পাহারা সরিয়ে নেওয়া হয়৷

ওই সময় বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ কয়েকজন জ্যেষ্ঠ নেতা এবং খালেদা জিয়ার পরিবারের কয়েকজন সদস্য সেখানে উপস্থিত ছিলেন৷ কেবিন ব্লকে খালেদার মুক্তির অনুষ্ঠানিকতা শেষে নতুন একটি হুইলচেয়ারে করে তাকে নিয়ে যাওয়া হয় ছয় তলার ৬২১ নম্বর কক্ষে৷

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট ও জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় ১৭ বছরের কারাদণ্ডে দণ্ডিত খালেদা ২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে কারাগারে বন্দি ছিলেন৷ প্রথমে তাকে পুরান ঢাকার পরিত্যক্ত কেন্দ্রীয় কারাগারে রাখা হলেও গত বছর ১ এপ্রিল থেকে বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছিল৷

স্বাস্থ্যগত অবস্থার অবনতির কথা উল্লেখ করে তাঁর পরিবারের পক্ষ থেকে এর আগে দু'বার জামিনের আবেদন করা হয়েছিল৷ কিন্তু দুইবারই তা নাকচ হয়ে যায়৷

এবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বয়স ও অসুস্থতা বিবেচনা করে সরকার প্রধান হিসেবে নির্বাহী আদেশে তাকে মুক্তি দিয়েছেন বলে জানান আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের৷

বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাসের কারণে বিশ্বজুড়ে চলেছে উদ্বেগ, উৎকণ্ঠা; নানা বিধিনিষেধ। করোনার বিস্তার ঠেকাতে বাংলাদেশও রয়েছে প্রায় অবরুদ্ধ অবস্থায়৷ এ প্রসঙ্গ টেনে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর মঙ্গলবার বিডিনিউজকে বলেছিলেন, ‘‘আমরা কিছুটা আবেগ আপ্লুত তো বটেই, কিছুটা স্বস্তিও বোধ করছি৷ আবার কিছুটা আতঙ্কিতবোধও করছি, এই ভয়ঙ্কর সময়ে তার এই মুক্তি … তার কোনো ক্ষতি না ঘটে৷’’

এসএনএল/এসিবি, এফএস (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)

 

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন