মুক্তি পেতে দেরি হচ্ছে আরিয়ানের | বিশ্ব | DW | 29.10.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ভারত

মুক্তি পেতে দেরি হচ্ছে আরিয়ানের

আরিয়ান খান জামিন পেয়েছেন, কিন্তু এখনো জেল থেকে বেরোতে পারেননি। মুম্বই হাইকোর্ট বিস্তারিত নির্দেশ দেয়ার পর তিনি মুক্তি পাবেন।

জামিন পেয়েছেন, তবে জেল থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য একটু অপেক্ষা করতে হবে আরিয়ানকে।

জামিন পেয়েছেন, তবে জেল থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য একটু অপেক্ষা করতে হবে আরিয়ানকে।

বৃহস্পতিবার মুম্বই হাইকোর্ট মাদককাণ্ডের তিন অভিযুক্ত আরিয়ান খান, আরবাজ মার্চেন্ট, মুনমুন ধামাচাকে জামিন দিয়েছে। তবে আরিয়ানরা এখনো জেলে। কারণ, শুক্রবার বিস্তারিত নির্দেশ দেবে হাইকোর্ট। জানাবে কী শর্তে তাদের মুক্তি দেওয়া হলো। তারপর সেই নির্দেশ হাতে পাওয়ার পর আরিয়ানের মুক্তির প্রক্রিয়া শুরু হবে। এর জন্য কিছুটা সময় লাগবে। শুক্রবার রাতে বা শনিবার আরিয়ান মুক্তি পেতে পারেন।

বৃহস্পতিবার বিচারপতি এন ডাব্লিউ সাম্ব্রে বলেছেন, ''তিন অভিযুক্ত জামিন পাবেন। তিনজনের আবেদন গ্রাহ্য করা হলো। কিন্তু আমি বিস্তারিত নির্দেশ শুক্রবার দেব।'' বিচারপতি কী শর্ত দিচ্ছেন তার দিকে তাকিয়ে শাহরুখ-ভক্তরা।

সমীর ওয়াংখেড়ে বিতর্ক

আরিয়ান জামিন পেলেও নারকোটিকস কন্ট্রোল ব্যুরোর (এনসিবি) আঞ্চলিক অধিকর্তা সমীর ওয়াংখেড়েকে নিয়ে বিতর্ক চলছে। মহারাষ্ট্রের মন্ত্রী ও এনসিপি নেতা নবাব মালিক আগেভাগেই হুমকি দিয়ে রেখেছেন, এক বছরের মধ্যে পদাত্যাগ করতে বাধ্য হবেন ওয়াংখেড়ে। তার কাছে নাকি প্রচুর তথ্যপ্রমাণ আছে। আরিয়ানের জামিনের পরেও তিনি বলেছেন, এখনো অনেক কিছু বাকি রয়েছে।

সমীর ওয়াংখেড়ে সম্প্রতি দিল্লি এসে এনসিবি-র শীর্ষ কর্তাদের সঙ্গে দেখা করেছেন। কথা বলেছেন। এরপর এনসিবির এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, সমীর ওয়াংখেড়ে তদন্ত করছেন না, তিনি এই তদন্তের দেখভাল করছেন।

কিন্তু তার বিরুদ্ধে যে সব অভিযোগ উঠেছে, তা নিয়ে মুম্বই পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে। তার বিরুদ্ধে সব চেয়ে বড় অভিযোগ ঘুষ নেওয়ার। তাছাড়া চাকরির জন্য শংসাপত্র জাল করা, বিয়ে-বিতর্কও তার পিছু তাড়া করছে। সমীর ওয়াংখেড়ে এসব অভিযোগই অস্বীকার করেছেন।

এই তদন্ত ও আরিয়ানদের গ্রেপ্তার করা নিয়ে বিজেপি বনাম এনসিপি লড়াইও চলছে। এনসিপি মন্ত্রী নবাব মালিকের অভিযোগ, দিল্লির বিজেপি শীর্ষনেতাদের নির্দেশেই শাহরুখ-পুত্রকে ফাঁসানো হচ্ছে। যে অভিযোগ অস্বীকার করেছে বিজেপি। তারা পাল্টা অভিযোগ করেছে এনসিপি ও মহারাষ্ট্র সরকারের বিরুদ্ধে। বলা হচ্ছে, সমীর ওয়াংখেড়ে আগে সুশান্ত সিং রাজপুতের সময় মাদক বিতর্কে নবাবের জামাইকে আটক করেছিলেন। তার প্রতিশোধ নেয়ার চেষ্টা হচ্ছে। সবমিলিয়ে মাদক, বলিউড, রাজনীতি মিশে গেছে।

জিএইচ/এসজি (পিটিআই, এএনআই)