মিয়ানমার: জাতিসংঘে কড়া বিবৃতি লঘু করল চীন | বিশ্ব | DW | 02.04.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বিশ্ব

মিয়ানমার: জাতিসংঘে কড়া বিবৃতি লঘু করল চীন

মিয়ানমারে বিক্ষোভকারীদের উপর নিরাপত্তা বাহিনীর সহিংসতার নিন্দায় জাতিসংঘ। তবে চীনের হস্তক্ষেপে বিবৃতি লঘু করা হলো।

মিয়ানমারে রোজ সেনা-শাসকদের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ হচ্ছে।

মিয়ানমারে রোজ সেনা-শাসকদের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ হচ্ছে।

মিয়ানমার নিয়ে বিবৃতি দিল জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ। মূল বিবৃতিটি ছিল বেশ কড়া। কিন্তু চীনের হস্তক্ষেপে তা কিছুটা নরম করা হয়। বিবৃতিতে বলা হয়েছে, নিরাপত্তা পরিষদের সদস্যরা মিয়ানমারের পরিস্থিতিতে খুবই উদ্বিগ্ন। যেভাবে শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভকারীদের উপর গুলি চালানো হচ্ছে, নারী-শিশু সহ শয়ে শয়ে বিক্ষোভকারী মারা গিয়েছেন, তাতে উদ্বেগ বেড়েছে।

প্রথমে যে বিবৃতি নিয়ে আলোচনা হয়েছিল, তাতে বলা ছিল, নিরাপত্তা পরিষদ পরবর্তী পদক্ষেপ নেয়ার কথা ভাববে।  সেখানে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞা জারি করার ইঙ্গিত দেয়া হয়েছিল। দুই দিন ধরে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা চলে। চীন ওই কড়া ভাষা ব্যবহার করতে দিতে রাজি হয়নি। তারপর বিবৃতি কিছুটা লঘু করে দেয়া হয়।

সেনা-বিরোধী প্রতিবাদ

মিয়ানমারে সেনার বিরুদ্ধে রোজ বিক্ষোভ হচ্ছে। বিক্ষোভকারীরা গণতন্ত্র ফেরানোর এবং সু চি সহ অন্য আটক নেতাদের মুক্তির দাবি করছেন। কিন্তু সেনা-শাসকরা সেই বিক্ষোভ সহিংস উপায়ে দমন করতে চাইছেন।

পশ্চিমা দেশগুলি সেনা অভ্যুত্থানের নিন্দা করেছে, কিন্তু চীন স্থায়িত্বের যুক্তি দিচ্ছে। তারা সেনা-শাসকদের পাশেই আছে।

এই অবস্থায় নিরাপত্তা পরিষদের রুদ্ধদ্বার বৈঠক শুরু হয় গত বুধবার। মিয়ানমার নিয়ে জাতিসংঘের বিশেষ দূত বলেন, সেখানে পরিস্থিতি গৃহযুদ্ধের দিকে যাচ্ছে। পরিস্থিতি ভয়ঙ্কর। কখন সেনা শাসকরা আলোচনার জন্য রাজি হবে, তার অপেক্ষা করতে গেলে পরিস্থিতি আরো খারাপ হবে। মিয়ানমার রক্তে ভেসে যাবে বলে তিনি সতর্ক করে দেন।

জিএইচ/এসজি(এপি, এএফপি)

সংশ্লিষ্ট বিষয়