মিয়ানমারে প্রথম পার্লামেন্ট অধিবেশন | বিশ্ব | DW | 31.01.2011
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

মিয়ানমারে প্রথম পার্লামেন্ট অধিবেশন

মিয়ানমারের জান্তা চালিত পার্লামেন্টে সোমবার প্রথম অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয়েছে৷ ১৯৮০-র দশকে শেষ অধিবেশন বসেছিল দেশটির পার্লামেন্টে৷

default

সু চি’র মুক্তি সত্ত্বেও দেশে গণতন্ত্র ফেরে নি

অধিবেশন প্রত্যক্ষ করার জন্যে কোন বিদেশি গণমাধ্যমকেই অনুমতি দেওয়া হয়নি৷ এমনকি নতুন পার্লামেন্ট ভবনের ছবি তোলার অনুমতিও দেওয়া হয়নি কাউকে৷

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক মিয়ানমারের একজন সরকারি কর্মকর্তা জানিয়েছেন, ‘‘স্থানীয় সময় সকাল ৮টা ৫৫ মিনিটে পার্লামেন্টের অধিবেশন শুরু হয়৷ সব সদস্যই অধিবেশনে যোগ দেন৷''

Myanmar baut die neue Hauptstadt

সামরিক শাসকদের ইচ্ছাই এখনো শেষ কথা মিয়ানমারে

দুই দশকের মধ্যে শুরু হওয়া মিয়ানমারের প্রথম পার্লামেন্ট অধিবেশনে খুব স্বাভাবিকভাবেই জান্তা সরকারের সদস্যরাই প্রভাব বিস্তার করে ছিল৷ কয়েক দশক পরে গত নভেম্বরে অনুষ্ঠিত মিয়ানমারের ঐ নির্বাচনে গণতন্ত্রপন্থী নেত্রী অং সান সু চি'কে অংশগ্রহণ করতে দেওয়া হয়নি৷ ঐ নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগ রয়েছে৷ নির্বাচনের আগেই চারভাগের তিনভাগ আসন সামরিক সদস্যদের জন্যে নির্ধারিত করে রাখা হয় এবং সেনাবাহিনী সমর্থিত ইউনিয়ন সলিড্যারিটি এ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট পার্টি নির্বাচনে ব্যাপক বিজয় অর্জন করে৷ ১,১৫৪টি আসনের মধ্যে তারা ৮৮২টি আসনে জয়লাভের দাবি করে৷

ন্যাশনাল ডেমোক্র্যাটিক ফোর্স এনডিএফ-এর একজন আইন প্রণেতা বলেন, পার্লামেন্ট কীভাবে বসছে বা সেখানে কীভাবে কী করা হচ্ছে তা কেউ আগে থেকে জানতে পারছে না৷ সেখানে গেলে তবেই তা জানা যাবে৷

জানা গেছে, জান্তা সমর্থিত প্রথম বেসামরিক প্রেসিডেন্ট পছন্দ করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন তারা৷ মাত্র চারবছর আগে তৈরি মিয়ানমারের নতুন রাজধানী নেপিদ'তে পার্লামেন্টের অধিবেশন বসে৷ সেখানে রাস্তাঘাটে ছিল সশস্ত্র পুলিশের পাহারা৷

প্রতিবেদন: ফাহমিদা সুলতানা
সম্পাদনা: সঞ্জীব বর্মন

সংশ্লিষ্ট বিষয়