মিয়ানমারে আটক বিক্ষোভকারীরা মুক্ত | বিশ্ব | DW | 09.03.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

মিয়ানমার

মিয়ানমারে আটক বিক্ষোভকারীরা মুক্ত

মিয়ানমারে মঙ্গলবারও প্রতিবাদ হয়েছে। পুলিশও কাঁদানে গ্যাস ও লাঠি চালিয়েছে। তবে আটক বিক্ষোভকারীরা মুক্তি পেয়েছেন।

মিয়ানমারের ইয়াঙ্গনে বিক্ষোভকারীদের বিরুদ্ধে পুলিশের কাঁদানে গ্যাস।

মিয়ানমারের ইয়াঙ্গনে বিক্ষোভকারীদের বিরুদ্ধে পুলিশের কাঁদানে গ্যাস।

মিয়ানমারে বিক্ষোভ অব্য়াহত।  ইয়াঙ্গনে বিক্ষোভকারীরা মঙ্গলবারও প্রতিবাদ দেখিয়েছেন। লোমবার রাতেও হাজার হাজার মানুষ রাতের কার্ফিউ অগ্রাহ্য করে রাস্তায় নেমে পড়ে। 

সামরিক বাহিনী দুইশর মতো বিক্ষোভকারীকে একটি অ্যাপার্টমেন্ট ব্লকে কার্যত আটকে করে রেখেছিল। তারা ছাড়া পেয়েছেন। তার আগে জাতিসংঘ ও অ্যামেরিকা তাদের মুক্তির জন্য আবেদন জানিয়েছিল।

গত ১ ফেব্রুয়ারি থেকেই সেনাশাসকদের বিরুদ্ধে মিয়ানমারে বিক্ষোভ হচ্ছে। এখনো পর্যন্ত পুলিশ ও সেনার গুলিতে ৬০ জন বিক্ষোভকারী মারা গেছেন।

ইয়াঙ্গনে পুলিশ বিক্ষোভকারীদের কোণঠাসা করে একটি অ্যাপার্টমেন্ট ব্লকে আটকে রেখেছিল। তারপর চারদিকের রাস্তা বন্ধ করে বাড়ি বাড়ি গিয়ে 'বাইরের মানুষদের' খোঁজা হচ্ছিল। পুলিশ ২০ জনকে গ্রেপ্তার করেছে। ওই এলাকা থেকে বিস্ফোরণের শব্দ এসেছে। মনে করা হচ্ছে, সেটা সেনার গ্রেনেডের শব্দ।

জাতিসংঘের মুখপাত্র জানিয়েছেন, সেক্রেটারি জেনারেল গুতেরেস ইতিমধ্যেই মিয়ানমারের শাসকদের সংযত হওয়ার অনুরোধ করেছেন এবং আটক সবাইকে মুক্তি দেয়ার কথা বলেছেন। যাদের আটক করা হয়েছে, তাদের মধ্যে প্রচুর নারী বিক্ষোভকারী আছেন। আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে তারা রাস্তায় নেমে শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ মিছিল করছিলেন।

ইয়াঙ্গনে এখন কার্ফিউ সত্ত্বেও প্রচুর বিক্ষোভকারী রাস্তায় নেমেছেন। তারা ছাত্রদের মুক্তির দাবি করছেন। রয়টার্স জানাচ্ছে, তাদের ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশ গুলি চালিয়েছে।

জিএইচ/এসজি(এপি, এএফপি, রয়টার্স)