মিয়ানমারের সঙ্গে জার্মানির উন্নয়ন সহযোগিতা স্থগিতের ঘোষণা | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 27.02.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

জার্মানি-বাংলাদেশ

মিয়ানমারের সঙ্গে জার্মানির উন্নয়ন সহযোগিতা স্থগিতের ঘোষণা

কক্সবাজারে রোহিঙ্গা শিবিরে গিয়েছিলেন জার্মানির অর্থনৈতিক সহযোগিতা এবং উন্নয়ন বিষয়ক মন্ত্রী ড. গার্ড মুলার৷ রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে না নেয়া পর্যন্ত মিয়ানমারের সঙ্গে জার্মানির উন্নয়ন সহযোগিতা স্থগিতের ঘোষণা দিয়েছেন তিনি৷

মঙ্গলবার দু' দিনের সফরের প্রথম দিনে ড. গার্ড মুলার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং পররাষ্ট্রমন্ত্রী একে আব্দুল মোমেনের সঙ্গে বৈঠক করেন৷ বুধবার সকালে রোহিঙ্গাদের দেখতে কক্সবাজারে যান৷ 

জার্মানির অর্থনীতি ও উন্নয়ন সহযোগিতা মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটের খবর অনুযায়ী কুতুপালং শিবির পরিদর্শন শেষে রোহিঙ্গাদের প্রতি সমর্থন জানিয়ে তিনি বলেন, ‘‘আজ আমি অবর্ণনীয় ভোগান্তির শিকার নারীদের সঙ্গে কথা বলেছি৷ কুতুপালংয়ের বিশ্বের অন্যতম বড় এই শরণার্থী শিবিরে খড়ের তৈরি ঘরে আট লাখ রোহিঙ্গা বসবাস করছেন৷ তাদের অবস্থা দেখে আমি বিমর্ষ৷ জাতিগত নির্মূলের এমন প্রয়াস এবং মানবতাবিরোধী এমন অপরাধ মেনে নেয়া যায় না৷''

জার্মানির অর্থনৈতিক সহযোগিতা এবং উন্নয়ন মন্ত্রী  মনে করেন মিয়ানমারের ওপর আন্তর্জাতিক চাপ না বাড়ালে দেশটি কখনোই রোহিঙ্গাদের ফেরত নেবে না৷ মিয়ানমারের ওপর চাপ বাড়াতে তাই

দেশটির সঙ্গে জার্মানির উন্নয়ন সহযোগিতা স্থগিতের ঘোষণাও দিয়েছেন তিনি, ‘‘১০ লাখ রোহিঙ্গাকে তাদের জন্মভূমিতে ফিরিয়ে নেয়া এবং এখনো সেখানে বসবাসরত রোহিঙ্গাদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করছে না তারা৷ মিয়ানমার যতক্ষণ পর্যন্ত এসব না করবে ততক্ষণ পর্যন্ত দেশটির সঙ্গে সব উন্নয়ন সহযোগিতা আমরা স্থগিত রাখবো৷''

মঙ্গলবার ড. গার্ড ম্যুলারের সঙ্গে বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও রোহিঙ্গা-সংকট নিরসনে মিয়ানমারের ওপর আন্তর্জাতিক চাপ বাড়ানোর কথা বলেছিলেন৷ সেদিন বৈঠক শেষে প্রধানমন্ত্রীর উপপ্রেস সচিব হাসান জাহিদ তুষার সাংবাদিকদের বলেন, ‘‘বাংলাদেশ থেকে রোহিঙ্গাদের ফেরত নিতে মিয়ানমার সরকারের ওপর আরো চাপ সৃষ্টি করতে জার্মানিসহ আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী৷ প্রধানমন্ত্রী তাকে বলেছেন, রোহিঙ্গারা আমাদের জন্য এক বিরাট বোঝা এবং তারা সামাজিক সমস্যার সৃষ্টি করছে৷ মিয়ানমারকে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব বাংলাদেশ থেকে তাদের নাগরিকদের ফেরত নিয়ে যেতে হবে৷''

রোহিঙ্গাদের জন্য ১৫ মিলিয়ন ইউরো

কুতুপালং শিবির পরিদর্শন শেষে জার্মান সরকারের পক্ষ থেকে রোহিঙ্গাদের ১৫ মিলিয়ন, অর্থাৎ এক কোটি ৫০ লাখ ইউরো অর্থসহায়তার ঘোষণাও দেন ড. গার্ড ম্যুলার৷ তিনি জানান, রোহিঙ্গা শিশুদের লেখাপড়া এবং পয়নিষ্কাশন ব্যবস্থা (স্যানিটেশন)-র উন্নয়নে এ অর্থ খরচ করা হবে৷

এ সফরে তৈরি পোশাকের ন্যায্যমূল্য নিশ্চিত করতে গার্মেন্টস মালিকদের সহযোগিতার আশ্বাসও দিয়েছেন জার্মান মন্ত্রী৷

এসিবি কেএম (বিএমজেড.ডিই)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন