মিয়ানমারের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞার কথা ভাবছে যুক্তরাষ্ট্র | বিশ্ব | DW | 29.03.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

মিয়ানমার

মিয়ানমারের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞার কথা ভাবছে যুক্তরাষ্ট্র

সেনাশাসনবিরোধী বিক্ষোভে একদিনে একশ'রও বেশি বিক্ষোভকারীর মৃত্যুতে ১২টি দেশ মিয়ানমারের তীব্র নিন্দা জানিয়েছে৷ যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছেন, নিষেধাজ্ঞা আরোপের বিষয়টি নিয়ে কাজ চলছে৷

সাংবাদিকদের বাইডেন বলেন, ‘‘সংবাদ মাধ্যমের খবরে জানলাম, সেখানে অনেক মানুষকে নির্বিচারে হত্যা করা হয়েছে৷ এটা একেবারেই অগ্রহণযোগ্য, ভীষণ নিন্দনীয়৷'' যুক্তরাষ্ট্র মিয়ানমারের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করবে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘‘ আমরা বিষয়টি নিয়ে কাজ করছি৷''

এদিকে জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তনিয়ো গুতেরেস টুইট বার্তায় বলেছেন, ‘‘ (মিয়ানমারে) সেনাবাহিনীর বিরামহীন অভিযান একেবারেই মেনে নেয়া যায় না৷ আন্তর্জাতিক মহলের খুব তাড়াতাড়ি এক হয়ে কঠোর প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করা দরকার৷''

যুক্তরাষ্ট্র, ব্রিটেন, জার্মানি, ইটালি, ডেনমার্ক, গ্রিস, নেদারল্যান্ডস, ক্যানাডা, অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড, দক্ষিণ কোরিয়া এবং জাপানের প্রতিরক্ষা বাহিনীর প্রধানরা ইতিমধ্যে অং সান সু চি-র মুক্তি এবং দেশে গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনার দাবিতে আন্দোলনরতদের বিরুদ্ধে হত্যাযজ্ঞ চালানোয় মিয়ানমার সেনা সরকারের নিন্দা জানিয়েছে৷ এক যৌথ বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘‘নিরস্ত্র মানুষের বিরুদ্ধে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী এবং তাদের সহযোগী বাহিনীর মারণাস্ত্র ব্যবহারের আমরা তীব্র নিন্দা জানাই৷''

সেখানে আরো বলা হয়, ‘‘পেশাদার বাহিনী সব সময় জনগণকে রক্ষার জন্য আন্তর্জাতিক মান অনুযায়ী কাজ করে, তাদের হত্যা করার জন্য নয়৷''

জার্মানির পররাষ্ট্রমন্ত্রী হাইকো মাস-ও এ বিষয়টি স্মরণ করিয়ে দিয়ে টুইটারে লিখেছেন, ‘‘আমার চিন্তা এবং সহানুভূতি মিয়ানমারের স্বজনহারা পরিবারগুলোর পক্ষে৷''

মিয়ানমারের সশস্ত্রবাহিনী দিবসে বিক্ষোভকারীদের ওপর গুলি চালিয়ে একশ জনেরও বেশি মানুষকে হত্যা করে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী৷ ইইউ-এর এক প্রতিনিধি দল মনে করে ওই দিনিটি মানব ইতিহাসে ‘সন্ত্রাস ও অশ্রদ্ধার দিন' হিসেবে স্মরণীয় হয়ে থাকবে৷

মিয়ানমারে সেনাশাসনবিরোধী বিক্ষোভে এ পর্যন্ত ৪২০ জনেরও বেশি মানুষ প্রাণ দিয়েছেন৷ গত শনিবার দেশটির ৪৪টি শহরে ১১৪ জন সেনাবাহিনীর গুলিতে মারা যায়৷ নিহতদের মধ্যে তিনজন শিশু৷

এসিবি/কেএম (ডিপিএ, এপি, এএফপি)