মালয়েশিয়ান বিমানে বোমার গুজব | বিশ্ব | DW | 02.12.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ

মালয়েশিয়ান বিমানে বোমার গুজব

মালয়েশিয়া থেকে ঢাকার শাহজালাল বিমানবন্দরে আসা একটি বিমানে তল্লাশি চালিয়ে সন্দেহজনক কিছুই পাওয়া যায়নি৷ মালয়েশিয়ার একটি নম্বর থেকে র‌্যাবকে ফোন করে বিমানে বোমা আছে বলে দাবি করা হয়েছিল৷

তল্লাশি শেষে বুধবার মধ্যরাতে বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ এক সংবাদ সম্মেলন করে একথা জানায়৷ কুয়ালালামপুর থেকে মালয়েশিয়ান এয়ারলাইন্সের ফ্লাইটটি রাত ৯টা ৪৮ মিনিটে শাহজালাল বিমানবন্দরে অবতরণ করার পর তল্লাশি চালায় বিমানবাহিনীর বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিট৷ এই অভিযানে সহায়তা করে সেনাবাহিনী, র‌্যাব, এপিবিএন, ফায়ার সার্ভিসসহ বিভিন্ন সংস্থা৷

গভীর রাতে শাহজালাল বিমানবন্দরের পরিচালক গ্রুপ ক্যাপ্টেন এ এইচ এম তৌহিদুল আহসান সাংবাদিকদের বলেন, যে তথ্য তারা পেয়েছিলেন, তার কোনো সত্যতা না মিললেও তারা ‘স্ট্যান্ডার্ড অব প্রসিডিউর (এসওপি)' অনুযায়ী পুরো উড়োজাহাজ এবং যাত্রীদের তল্লাশি চালান৷

তিনি বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে  জানান, সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় র‌্যাবের কাছ থেকে তারা খবর পেয়েছিলেন মালয়েশিয়া থেকে ‘সন্দেহভাজন' এক ব্যক্তি ‘সন্দেহজনক বস্তু' নিয়ে ঢাকায় আসছেন৷ মালয়েশিয়ার একটি নম্বর থেকে র‌্যাবকে ফোন করে এই তথ্য দেওয়া হয়েছিল৷ তিনি বলেন, র‌্যাব খবরটি জানানোর পরপরই  "আমরা মিটিং করি, বিমানবাহিনীকে খবর দেওয়া হয়, তাদের বিশেষায়িত সন্ত্রাসবাদ প্রতিরোধ দল খুব অল্পসময়ের মধ্যেই চলে আসে৷”

বিমানটিতে ১৩৫ জন যাত্রীর মধ্যে ১৩৪ জন বাংলাদেশি এবং একজন মালয়েশিয়ার নাগরিক ছিলেন৷

ঢাকা মহানগর পুলিশের বিমানবন্দর জোনের অতিরিক্ত উপকমিশনার তাপস কুমার দাস তল্লাশির আগে ডয়চে ভেলের কন্টেন্ট পার্টনার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেছিলেন, বিমানবন্দরে মালয়েশিয়ান এয়ারলাইন্সের একটি উড়োজাহাজ ঘিরে সন্দেহজনক কোনো ব্যক্তি বা বস্তুর অবস্থানের কথা জানানো হয়েছে৷

মালয়েশিয়ান বিমানে বোমা রয়েছে বলে ফায়ার সার্ভিসকে জানানো হয় এবং খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের তিন-চারটি গাড়ি সেখানে যায় বলে ফায়ার সার্ভিসের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. সাজ্জাদ হোসাইন জানান৷

 এনএস/এসিবি (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়