মার্কেলের নারী কোটা পরিকল্পনা বাধার মুখে | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 29.11.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

জার্মানি

মার্কেলের নারী কোটা পরিকল্পনা বাধার মুখে

জার্মান চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেলের ক্ষমতাসীন জোট তালিকাভুক্ত কোম্পানিগুলোর পরিচালনা পরিষদে নারীদের জন্য একটি কোটা চালুর পক্ষে৷ কিন্তু ব্যবসায়িক লবি গ্রুপগুলো কি শীর্ষ পদে নারী কোটা সমর্থন করে?

বৃহস্পতিবার বার্লিনে ‘জার্মান এমপ্লয়ার্স এসোসিয়েশন' বা বিডিএ-র এক মিটিংয়ে রাইনার ডুলারকে সংস্থার নতুন প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত করা হয়, যিনি একজন পুরুষ৷

ম্যার্কেলের ক্ষমতাসীন জোট তালিকাভুক্ত কোম্পানিগুলোর পরিচালনা পরিষদে নারী কোটা নির্ধারণে রাজি হওয়ার ঠিক এক সপ্তাহ পর ৫৬ বছর বয়সি ডুলারকে প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত করা হয়৷

জার্মানির শীর্ষস্থানীয় শিল্প লবি গ্রুপগুলোর শীর্ষ নেতৃত্বে নারীদের প্রতিনিধিত্ব খুবই কম৷ জার্মানির অর্থনীতি বিষয়ক দৈনিক হ্যান্ডেলসব্লাটকে বিডিএ জানিয়েছে, ‘‘বড় সংস্থাগুলোর পরিচালনায় আরও বৈচিত্র্য আনার লক্ষ্যে তারা নারী কোটা সমর্থন করে৷''

মঙ্গলবার সরকারি আইনপ্রণেতাদের এক সভায় ম্যার্কেল বলেন, ‘‘নারী কোটা যে শুধু যুক্তিসঙ্গত তাই নয়, আমি আন্তরিকভাবে তা সমর্থন করি৷''

ফেডারেশন অফ জার্মান ইন্ডাস্ট্রি বা বিডিআই-এর ম্যানেজমেন্ট দলের নারী সদস্য ইয়েরিস প্ল্যোগার প্রস্তাবিত নারী কোটার জন্য নির্দেশিকা তৈরির সময় ‘একটি ভারসাম্যপূর্ণ আপোশ' করতে ম্যার্কেল সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন৷ তিনি কোটা সিস্টেম প্রবর্তনকে শিল্পখাতের জন্য একটি বিশেষ চ্যালেঞ্জ মনে করেন৷

এনএস/জেডএইচ (ডিপিএ)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন