মার্কিন-জার্মান সম্পর্কের আরও অবনতি? | বিশ্ব | DW | 08.06.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

যুক্তরাষ্ট্র-জার্মানি

মার্কিন-জার্মান সম্পর্কের আরও অবনতি?

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প জার্মানি থেকে প্রায় দশ হাজার সেনা ফিরিয়ে আনার সিদ্ধান্ত নিয়ে থাকলে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের উপর তা প্রভাব ফেলবে বলে মন্তব্য করেছেন জার্মান পররাষ্ট্রমন্ত্রী৷ এ বিষয়ে অবশ্য বিভ্রান্তি রয়েছে৷

ম্যার্কেলের সঙ্গে কোনোদিনই স্বাচ্ছন্দ বোধ করেন নি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প

ম্যার্কেলের সঙ্গে কোনোদিনই স্বাচ্ছন্দ বোধ করেন নি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প

জার্মান চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেলের সঙ্গে কোনোদিনই স্বাচ্ছন্দ বোধ করেন নি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প৷ সৌজন্য দেখাতে প্রকাশ্যে কিছু প্রশংসা করলেও একেবারে ভিন্ন ধাঁচের এই নেতার ‘আনুগত্য’ আদায় করতে পারেন নি তিনি৷ ফলে জার্মানির নেতা সম্পর্কে বেশ কিছু কটু কথাও বলতে ছাড়েন নি মার্কিন প্রেসিডেন্ট৷ এবার গোঁসার কারণ আপাতদৃষ্টিতে তুচ্ছ মনে হলেও ট্রাম্পের কাছে তা যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ৷ করোনা সংকট সত্ত্বেও তিনি ওয়াশিংটনে জি-সেভেন শীর্ষ সম্মেলনে সশরীরে নেতাদের আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন৷ ম্যার্কেল সেই আমন্ত্রণ প্রত্যাখ্যান করায় নাকি বেজায় চটেছেন ট্রাম্প৷ 


সেই ক্রোধের বশে জার্মানিতে মোতায়েন মার্কিন সৈন্যদের একটা উল্লেখযোগ্য অংশ দেশে ফিরিয়ে নেবার কথা বলেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট, যদিও সরকারিভাবে এমন কোনো সিদ্ধান্তের কথা এখনো জানা যায় নি৷ তা সত্ত্বেও জার্মান পররাষ্ট্রমন্ত্রী হাইকো মাস এ বিষয়ে দুশ্চিন্তা প্রকাশ করেছেন৷ ‘বিল্ড আম সনটাগ’ সংবাদপত্রকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে মাস বলেন, ট্রাম্পের আমলে অ্যাটলান্টিকের দুই প্রান্তের মধ্যে সম্পর্ক জটিল হয়ে পড়লেও নিবিড় সহযোগিতার ফলে আখেরে দুই দেশেরই লাভ হচ্ছে৷ তাঁর মতে, বেশ কয়েক দশক ধরে এই সম্পর্ক তিলে তিলে গড়ে উঠেছে৷ শীতল যুদ্ধের সময় থেকে ইউরোপে সবচেয়ে বেশি মার্কিন সৈন্য জার্মানিতেই মোতায়েন করা হয়েছে৷ এ প্রসঙ্গে ট্রাম্প প্রশাসনের সঙ্গে সম্পর্কের অবনতির কথা স্বীকার করেন মাস৷ ম্যার্কেলের দপ্তরে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের দায়িত্বপ্রাপ্ত সমন্বয়ক পেটার বায়ার বলেন, ট্রাম্প সত্যি একতরফাভাবে মার্কিন সৈন্য প্রত্যাহার করলে জার্মানি ও অ্যামেরিকার সম্পর্কের উপর গভীর প্রভাব পড়বে৷ 

 
ওয়াল স্ট্রিট জার্নালসহ বেশ কয়েকটি মার্কিন সূত্র অনুযায়ী ট্রাম্প মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়কে জার্মানিতে মার্কিন সৈন্যসংখ্যা কমানোর নির্দেশ দিয়েছেন৷ উল্লেখ্য, বর্তমানে জার্মানিতে ৩৪ হাজার ৫০০ মার্কিন সৈন্য মোতায়েন রয়েছে৷ ট্রাম্প তার মধ্যে নয় হাজার ৫০০ সৈন্য ফিরিয়ে আনতে চান বলে রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছে৷ ভবিষ্যতে নাকি জার্মানিতে সর্বোচ্ছ ২৫ হাজার মার্কিন সৈন্য রাখতে চান ট্রাম্প৷ এই সিদ্ধান্ত সত্যি কার্যকর হলে ন্যাটোর ছত্রছায়ায় ইউরোপের প্রতিরক্ষার ক্ষেত্রে মার্কিন অবদান আচমকা কমে যাবে৷ মার্কিন প্রশাসন এখনো পর্যন্ত এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করে নি৷ 

 
শেষ পর্যন্ত জার্মানি থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহার করা হলে আখেরে রাশিয়া ও চীনের মতো দেশের লাভ হবে হবে বলে মনে করছেন অনেক সামরিক বিশেষজ্ঞ৷ সংবাদ সংস্থাগুলিকে তাঁরা বলেছেন, যে জার্মানিকে কেন্দ্র করে মার্কিন সৈন্যরা শুধু জার্মানি তথা ন্যাটো সদস্য দেশগুলির সুরক্ষা নিশ্চিত করে না, ইউরোপ, আফ্রিকা ও মধ্যপ্রাচ্যে মার্কিন স্বার্থরক্ষার ক্ষেত্রেও মূল ঘাঁটি হিসেবে জার্মানির বিশেষ গুরুত্ব রয়েছে৷ আসন্ন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রেক্ষাপটে রাজনৈতিক কারণে ট্রাম্প এমন বিতর্কিত সিদ্ধান্ত নিলে তার পরিণাম ভয়াবহ হতে পারে বলে অনেকে সতর্ক করে দিচ্ছেন৷ 

 
এসবি/কেএম (এএফপি, এপি)

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন