মার্কিন গোয়েন্দার হাতে হয়রানির শিকার এক নার্স | বিশ্ব | DW | 04.09.2017
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

ভাইরাল ভিডিও

মার্কিন গোয়েন্দার হাতে হয়রানির শিকার এক নার্স

যুক্তরাষ্ট্রের ইউটা বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালের নার্স অ্যালেক্স উবেলসকে হয়রানির ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে গেছে৷ অ্যালেক্সকে মিথ্যা অভিযোগে গ্রেপ্তারের পর সমালোচনার মুখে ছেড়ে দিতে বাধ্য হয়েছেন ঐ গোয়েন্দা৷

Frau in Küche mit Laptop (Colourbox/Andy Dean Photography)

প্রতীকী ছবি

সল্টলেক সিটি পুলিশ ডিটেকটিভ জেফ পাইনি একটি গুরুতর আহত রোগীর রক্তের নমুনা নিতে চাইছিলেন৷ কিন্তু ঐ গোয়েন্দার কাছে কোনো গ্রেপ্তারি পরোয়ানা ছিল না৷ আর রোগীটি ছিলেন অচেতন৷ এই অবস্থায় ঐ রোগীর রক্তের নমুনা দিতে অস্বীকার করেছিলেন নার্স অ্যালেক্স৷ তিনি জানিয়েছিলেন হাসপাতালে এ ধরনের কোনো নীতিমালা নেই, এমনকি সাংবিধানিক আইনের লঙ্ঘন এটি৷ তখন ডিটেকটিভ জেফ পাইনি ঐ নার্সকে হুমকি দেন রাজি না হলে তাকে গ্রেপ্তার করা হবে এবং তার বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হবে৷

নার্স অ্যালেক্স উবেলস প্রথমে খুব নম্রভাবে পরিস্থিতি সামাল দিতে চান৷ তিনি তার সুপারভাইরকে ফোনে কথা বলতে বলেন ডিটেকটিভের সঙ্গে৷ সুপারভাইজারও বলেন ঐ গোয়েন্দা বড় ধরনের ভুল করছেন এবং তিনি এভাবে একজন নার্সকে হুমকি দিতে পারেন না৷ এরপর পাইনি অ্যালেক্সের হাত পেছনে মুড়ে ভবনটির বাইরে নিয়ে যায় এবং হাতকড়া পরিয়ে দেয়৷ অ্যালেক্স সাহায্যের জন্য চিৎকার করতে থাকেন৷ তখন ঐ গোয়েন্দা তাকে একটি গাড়িতে (পুলিশের গাড়ি নয়) ঢুকিয়ে দেয়৷ ঐ বিশ্ববিদ্যালয়ের পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত থাকলেও এ ব্যাপারে কোনো হস্তক্ষেপ করেনি৷

সিসি ক্যামেরায় এই দৃশ্য ধরা পড়ার পর কেউ সেই ভিডিও সামাজিক যোগাযোগের মাধমে পোস্ট করার পর সেটি ভাইরাল হয়ে যায়৷ নিন্দা ও সমালোচনার ঝড় উঠে ঐ গোয়েন্দার বিরুদ্ধে৷ অবিলম্বে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার এবং তাকে বরখাস্ত করার দাবি উঠে৷ এরপরই অবশ্য নার্সকে ছেড়ে দেয়া হয়৷ তার বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ দায়ের করা হয়নি৷

এপিবি/ডিজি

নির্বাচিত প্রতিবেদন

ইন্টারনেট লিংক

বিজ্ঞাপন