মামলায় আটকে যাচ্ছেন বিএনপি নেতারা | বিশ্ব | DW | 02.09.2014
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

মামলায় আটকে যাচ্ছেন বিএনপি নেতারা

আন্দোলন চেয়ে এখন মামলা নিয়ে হিমশিম খাচ্ছেন বিএনপি নেতারা৷ একের পর এক মামলার অভিযোগ-পত্র দাখিলের পর এবার শুরু হচ্ছে বিচার প্রক্রিয়া৷ মঙ্গলবার আরো ৪১ জন নেতা-কর্মীর বিরুদ্ধে ভাঙচুরের মামলায় অভিযোগ গঠন করা হয়েছে৷

Bangladesch Dhaka Proteste Verhaftung BNP

(ফাইল ফটো)

মঙ্গলবার ঢাকা মহানগর হাকিম মোহাম্মদ তারেক মঈনুল ইসলাম ভূইয়া গত বছর বিএনপি কার্যালয়ের সামনে ভাঙচুর-নাশকতার মামলায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমদ ও মির্জা আব্বাসসহ ৪১ নেতা-কর্মীর বিরুদ্ধে দ্রুত বিচার আইনে বিচার শুরুর আদেশ দিয়েছেন৷ আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে ১২ই অক্টোবর সাক্ষ্যগ্রহণ শুরুর দিন ধার্য করে দিয়েছে আদালত৷

অভিযুক্তদের মধ্যে ঐ দু'জন নেতা ছাড়া আরো আছেন গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, আমান উল্লাহ আমান, বরকতউল্লাহ বুলু, শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি ও যুবদল সভাপতি মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল৷

অভিযোগ গঠনের আগে আদালতে উপস্থিত ২৮ আসামিকে বিচারক প্রশ্ন করলে তাঁরা নিজেদের নির্দোষ দাবি করে সুবিচার চান৷ মওদুদ ও আমান এ মামলা থেকে অব্যাহতির আবেদন করলেও তা নাকচ করে দেয় আদালত৷ অভিযুক্ত ৪১ আসামির মধ্যে ১২ জন পলাতক৷

গত বছর ৬ই মার্চ বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনের রাস্তায় প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে গাড়ি ভাঙচুর ও জনমনে আতঙ্ক সৃষ্টির অভিযোগে ৪৪ জনকে আসামি করে এ মামলা দায়ের করে পল্টন থানা পুলিশ৷ মামলাটি তদন্ত শেষে পল্টন থানার এসআই মশিউর রহমান গত ১৯শে মার্চ ৪১ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ-পত্র দাখিল করেন৷

আসামিদের আইনজীবী মাসুদ আহমেদ তালুকদার ডয়চে ভেলের কাছে দাবি করেন, ‘‘এই মামলা হয়রানির উদ্দেশ্যে করা হয়েছে৷ তাছাড়া রাজনৈতিক কারণেই মামলা চাঙ্গা করা হচ্ছে৷'' তাঁর কথায়, ‘‘ন্যায়-বিচার হলে সবাই নির্দোষ প্রমাণিত হবেন৷''

অন্যদিকে ঢাকা মহানগর পাবলিক প্রসিকিউটর আব্দুল্লাহ আবু বলেছেন, ‘‘আইন তার নিজস্ব গতিতে চলছে৷ রাজনৈতিক কারণে কাউকে এই মামলায় আসামি করা হয়নি বা বিচার শুরু হয়নি৷''´এর আগে গত ২৫শে আগস্ট বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতাসহ জোটের ১৪৭ জন নেতা-কর্মীর দ্রুত বিচার আইনে একই আদালতে অভিযোগ গঠন করা হয়৷

Dhaka Bus Brandanschlag Unruhen Opposition 29.11.2013

আরো ৪১ জন নেতা-কর্মীর বিরুদ্ধে ভাঙচুরের মামলার অভিযোগ গঠন


বিএনপি নেতা রুহুল কবির রিজভী, আমান উল্লাহ আমান, জয়নুল আবদিন ফারুক, এ জেড এম জাহিদ হোসেন, জাগপার সভাপতি শফিউল আলম প্রধানসহ বিএনপি জোটের ১৪৭ নেতা-কর্মীর বিরুদ্ধে দ্রুত বিচার আইনে বিচার শুরু হবে ২৫শে সেপ্টেম্বর৷ তাঁদের বিরুদ্ধে গত বছরের ১১ই মার্চ নয়াপল্টনে বিএনপির কার্যালয়ের সামনে জোটের সমাবেশে ভাঙচুর এবং ও বিস্ফোরণের ঘটনায় মামলা হয়৷ গত বছরের ২৪শে মার্চ ১৪৮ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ-পত্র দেয় পুলিশ৷ কিন্তু অভিযোগ গঠনে ওমর ফারুক নামে একজনের এরই মধ্যে মৃত্যু হওয়ায় তাঁকে মামলা থেকে অব্যাহতি দেয় আদালত৷

উল্লেখ্য, গত ৫ই জানুয়ারি দশম সংসদ নির্বাচনের আগে সারা দেশে বিএনপি-জামায়াত আন্দোলনের সময় সহিংসতার কারণে নির্বাচনের দিন পর্যন্ত সারা দেশে নিহত হয়েছেন ১৪৬ জন৷ এছাড়া পুলিশ সদস্য মারা যান ১৭ জন৷ ঢকায় এ সব ঘটনায় অন্তত ১০৫টি মামলা হয়েছে৷ আর সারা দেশে আড়াই হাজার৷ এই আড়াই হাজার মামলার ১৫৬টি দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে পাঠানো হয়েছে৷ এতদিন মামলাগুলোর তদন্ত নিয়ে ধীরে চল নীতি অনুসরণ করা হলেও, এখন মামলাগুলি তদন্ত এবং বিচারের জন্য পাঠানোর কাজ শুরু হয়েছে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন