মানুষের মলে প্লাস্টিক! | বিশ্ব | DW | 28.10.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিজ্ঞান

মানুষের মলে প্লাস্টিক!

এই প্রথম গবেষকরা মানুষের মলে প্লাস্টিকের উপাদান পেয়েছেন৷ সাম্প্রতিক এক গবেষণার ফলাফলে এমন তথ্য উঠে এসেছে৷

গবেষণাটি করেছেন অস্ট্রিয়ার একদল গবেষক৷ দেশটির মেডিক্যাল ইউনিভার্সিটি অব ভিয়েনা ও ফেডারেল এনভায়রনমেন্ট এজেন্সি যৌথভাবে গবেষণাটি করে৷ এই পাইলট গবেষণায় অস্ট্রিয়া, ব্রিটেন, ফিনল্যান্ড, ইটালি, নেদারল্যান্ডস, পোল্যান্ড, রাশিয়া ও জাপানের আটজনের এক সপ্তাহের খাবারের রুটিন পর্যবেক্ষণ করা হয়৷ ঐ আটজনকে বলা হয়, নির্দিষ্ট সপ্তাহে তাঁরা কী কী খেয়েছেন বা পান করেছেন, তা একটা ডায়েরিতে লিখে রাখতে এবং পরবর্তীতে তাঁদের মলের নমুনা পরীক্ষা করা হয়৷

দেখা যায়, আটজনের সবাই প্লাস্টিকের প্যাকেটের ভেতর থাকা খাবার খেয়েছেন কিংবা প্লাস্টিক বোতল থেকে পানি খেয়েছেন৷ তাঁদের কেউই নিরামিষভোজী ছিলেন না৷ প্রত্যেকের মলের নমুনায় প্লাস্টিক পাওয়া যায়৷

‘‘আমাদের গবেষণাগারে করা এই পরীক্ষায় তাঁদের মলে আমরা নয় ধরনের প্লাস্টিক পেয়েছি৷ এগুলোর আকার ৫০ থেকে ৫০০ মাইক্রোমিটার,'' বলেন রাষ্ট্রীয় পরিবেশ সংস্থার গবেষক বেটিনা লিবমান৷

এর আগে বিভিন্ন গবেষণায় পশুর পরিপাকযন্ত্রে ক্ষুদ্র প্লাস্টিক পাওয়া গেছে৷ এমনকি এগুলোর রক্ত, লসিকা ও যকৃতে প্লাস্টিক পাওয়া গেছে৷ যদিও প্রাথমিকভাবে গবেষকরা ধারণা করেন যে, প্লাস্টিকের রাসায়নিকের কারণে পরিপাকযন্ত্র নষ্ট হয়ে যেতে পারে, কিংবা প্লাস্টিক উপাদানের উপস্থিতির কারণে তা ফুলে গিয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে৷ তবে মানুষের শরীরে আসলেই কী ধরনের প্রভাব পড়ার আশঙ্কা আছে তা প্রকৃতভাবে নির্ণয়ের জন্য আরো গবেষণা দরকার৷

ঠিক কোন ধরনের খাবার কোন ধরনের প্লাস্টিকের উপস্থিতির কারণ, তা অবশ্য বলতে পারেনি গবেষক দলটি৷

খাবার ছাড়াও মানব শরীরে মাইক্রোপ্লাস্টিকের উৎস হতে পারে গাড়ির টায়ার, নির্মাণ সামগ্রী এবং কসমেটিকের উপাদান৷

অবশ্য ঝুঁকি নিরূপণের জন্য জার্মানির যে ফেডারেল ইন্সটিটিউট কাজ করে, তারা বলছে, প্লাস্টিক মানব শরীরের জন্য ক্ষতিকর কিনা কিংবা কতটা ক্ষতিকর তা নির্ধরণ করা এখনো সম্ভব হয়নি৷

এ বিষয়ে আপনার কোন মতামত থাকলে লিখুন নীচে মন্তব্যের ঘরে৷

জেডএ/এসিবি (ডিপিএ)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন