‘মানসিক বিকারগ্রস্তকে আগুন দিয়ে বশে আনা হবে’ | বিশ্ব | DW | 22.09.2017
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

উত্তর কোরিয়া

‘মানসিক বিকারগ্রস্তকে আগুন দিয়ে বশে আনা হবে’

এতকাল ক্ষেপণাস্ত্র ও পরমাণু পরীক্ষার পর গোটা বিশ্ব উত্তর কোরিয়ার কর্মসূচির কথা জানতে পারতো৷ এবার রীতিমতো ঘোষণা করে প্রশান্ত মহাসাগরে হাইড্রোজেন বোমা পরীক্ষা করতে পারে সেই দেশ৷

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের ভাষণে উত্তর কোরিয়াকে নিশ্চিহ্ন করে দেবার যে হুমকি দিয়েছেন, তারই জবাবে অন্যান্য পদক্ষেপের সঙ্গে হাইড্রোজেন বোমা পরীক্ষার কথাও ভাবছেন উত্তর কোরিয়ার শীর্ষ নেতা কিম জং উন৷ উত্তর কোরিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী রি ইয়ং হো বলেছেন, এর আগে প্রশান্ত মহাসাগরে এত বড় মাত্রার কোনো অস্ত্র পরীক্ষা হয়নি৷ কিম অ্যামেরিকার বিরুদ্ধে ‘ইতিহাসে অভূতপূর্ব পালটা পদক্ষেপ' নেবার হুমকি দিয়েছেন৷ পরমাণু অস্ত্র কর্মসূচি যে উত্তর কোরিয়ার জন্য সঠিক পথ, ট্রাম্পের মন্তব্য তা স্পষ্ট করে দিয়েছে বলে তিনি মনে করেন৷ ট্রাম্পকে ‘মানসিক বিকারগ্রস্ত' হিসেবে বর্ণনা করে তাঁকে ‘আগুন দিয়ে বশে আনতে পারবেন' বলে অঙ্গীকার করেছেন কিম৷ সরকারি সংবাদ সংস্থা কেসিএনএ তাঁর এই বিবৃতি প্রকাশ করেছে৷ উল্লেখ্য, উত্তর কোরিয়ার নেতার এমন সরাসরি বিবৃতি অত্যন্ত বিরল ঘটনা৷

মার্কিন প্রশাসন উত্তর কোরিয়ার উপর চাপ বাড়াতে সে দেশের বাণিজ্য সহযোগীদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক পদক্ষেপের পথে এগোচ্ছে৷ এক নির্বাহী আদেশের মাধ্যমে ট্রাম্প নির্দিষ্ট কোম্পানি ও প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেবার সুযোগ করে দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট৷

তবে উত্তর কোরিয়ার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ সহযোগী দেশ চীনের বিষয়ে এখনো নরম মনোভাব দেখাচ্ছেন ট্রাম্প৷ সে দেশের কেন্দ্রীয় ব্যাংক উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে ব্যবসা বন্ধ করতে চীনা ব্যাংকগুলিকে যে নির্দেশ দিয়েছে, সেই পদক্ষেপের প্রশংসা করেন তিনি৷ উত্তর কোরিয়ার উপর জাতিসংঘের সর্বশেষ নিষেধাজ্ঞা কার্যকর করার সময় দিতে প্রস্তুত ট্রাম্প প্রশাসন৷ জাপান ও উত্তর কোরিয়ার শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে আলোচনার পর এক প্রশ্নের জবাবে ট্রাম্প উত্তর কোরিয়া সংকটের কূটনৈতিক সমাধানসূত্রের সম্ভাবনা উড়িয়ে দেননি৷

এমন পরিস্থিতিতে জাপান ও দক্ষিণ কোরিয়ার উদ্বেগ আরও বাড়ছে৷ জাপানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী ইৎসুনোরি ওনোদেরা বলেছেন, উত্তর কোরিয়া হাইড্রোজেন বোমা পরীক্ষা করলে সম্ভবত সেটি ক্ষেপণাস্ত্রের মাধ্যমে তাঁর দেশের উপর দিয়ে উড়ে যাবে৷ বিশেষজ্ঞরা এমন পরীক্ষার ঝুঁকিরও উল্লেখ করেছেন৷ তাঁদের মতে, কোনো গোলোযোগ ঘটলে বোমাটি জনবসতিপূর্ণ এলাকার উপরেও আছড়ে পড়তে পারে৷ দক্ষিণ কোরিয়াও উত্তর কোরিয়ার এই হুমকিকে যথেষ্ট গুরুত্ব দিচ্ছে৷

এসবি/এসিবি (রয়টার্স, এএফপি, এপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন