মাদ্রিদে ‘নগ্ন ক্যান′ রেস্তোরাঁর আকর্ষণ | অন্বেষণ | DW | 27.03.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

অন্বেষণ

মাদ্রিদে ‘নগ্ন ক্যান' রেস্তোরাঁর আকর্ষণ

ভালো রেস্তোরাঁয় খেতে গেলে সবাই তাজা, সুস্বাদু, ভালো মানের খাদ্য আশা করে৷ স্পেনের এক রেস্তোরাঁ-মালিক কিন্তু গ্রাহকদের শুধু টিনে ভরা খাবার পরিবেশন করছেন৷ তবে সেই খাবারের মান বেশ উন্নত, স্বাদে-গন্ধেও ভালো৷

মাদ্রিদের ‘কনসের্ভাস নুদিস্তা' বা ‘নগ্ন ক্যান' রেস্তোরাঁর মালিক মিকি ইরিসারি৷ তাঁর কাছে টিনজাত খাবারের বিশেষ আকর্ষণ রয়েছে৷ তিনি বলেন, ‘‘টিন খুলে খাবারের সব গুণাগুণ – অর্থাৎ রং, গন্ধ ও স্বাদ পরখ করার মজাই আলাদা!  প্রতিবার আমার দারুণ লাগে৷''

এমন উৎসাহ-উদ্দীপনাকে ব্যবসায় পরিণত করেছেন স্পেনের মিকি ইরিসারি৷ প্রায় আড়াই বছর আগে মাদ্রিদের চাম্বেরি এলাকায় ‘নগ্ন ক্যান' নামের একটি রেস্তোরাঁ খোলেন৷ সেখানে সব খাবারের উপাদান আসে টিন অথবা বোতল থেকে৷ যেমন মাছভরা সবুজ জলপাই ও পেপারোনি মরিচ৷ কোনো পদ রান্না করতেই ২ মিনিটের বেশি সময় লাগে না৷

মিকির রেস্তোরাঁয় গরম খাবারও পাওয়া যায়৷ তবে সেখানে কোনো প্রথাগত রান্নাঘর নেই৷ মিকি বলেন, ‘‘অক্সটেল খিচুড়িতে আমরা নাভারা অঞ্চলের সবুজ ও সাদা বিনস মেশাই৷ দু'টি উপাদানই এখানে মেলানো হয়েছে৷ দারুণ স্বাদ!'' 

ভিডিও দেখুন 04:10

‘নগ্ন ক্যান’ রেস্তোরাঁয় যা পাবেন

১৮ ইউরো মূল্যের এই পদ রেস্তোরাঁর খাদ্যতালিকায় অন্যতম দামী খাবারগুলির অন্যতম৷ ওভেনের বদলে মাইক্রোওয়েভ কাজে লাগিয়ে খাবার গরম করা হয়৷

 স্পেনে ক্যান বা টিনবন্দি খাবারের বেশ কদর রয়েছে৷ যেমন তেলে ডোবানো গালিসিয়া অঞ্চলের স্ক্যালপ বা ঝিনুক অথবা নাভারা অঞ্চলের পেপারোনির আচার৷ প্রায় এক বছর ধরে গোটা দেশ চষে বেড়িয়ে মিকি ইরিসারি সেরা মানের টিনজাত খাদ্যের খোঁজ চালিয়েছেন৷ স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে তিনি বলেন, ‘‘যখন ছোট ছিলাম, বাসায় সবসময় টিনে ভরা খাবার দেখতাম৷ ১২ বা ১৪ বছর বয়সে বন্ধুরা যখন শুধু মিষ্টি কিনতো, তখন আমি টিনের মধ্যে তেলে ডোবানো স্ক্যালপ জোগাড় করতাম৷ বাবার কাছ থেকেই আমি এই আগ্রহ পেয়েছিলাম, আমার সন্তানদেরও তা দিচ্ছি৷ আমার জীবন ও খাদ্যাভ্যাসের মধ্যে টিনে ভরা খাবারের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে৷''

মিকি ইরিসারি মাদ্রিদেই বড় হয়েছেন এবং ২০ বছর ধরে টেলিভিশন প্রোডিউসার হিসেবে কাজ করেছেন৷ কিন্তু শুধু টিনবন্দি খাবার নিয়ে নিজের রেস্তোরাঁ খোলার স্বপ্ন তাঁর মনে চিরকালই ছিল৷

স্পেনে টিনবন্দি খাবারের সত্যি দীর্ঘ ঐতিহ্য রয়েছে৷ সে দেশ পিকলড খাদ্যের সেরা প্রস্তুতকারকদের অন্যতম৷ রাজধানী মাদ্রিদে উচ্চ মানের টিনের খাদ্যের বিশাল পসার দেখা যায়৷ তার মধ্যে মাছ ও সামুদ্রিক প্রাণী ছাড়াও শাকসবজি ও ফলমূলও রয়েছে৷ তবে মানের পার্থক্যের বিষয়ে সতর্ক থাকতে হয়৷ যেমন চুয়েকা এলাকার স্থানীয় বাজারে উচ্চ মানের টিনের খাবার পাওয়া যায়৷

স্পেনের রন্ধনশিল্প ও দৈনন্দিন জীবনে টিনের খাবার খুবই জনপ্রিয়৷ তবে নাস্তা হিসেবেই তার কদর বেশি –  যেমন তাপাস বারে স্ন্যাক্স হিসেবে৷ শুধু টিনে ভরা খাবার পাওয়া যায়, এমন রেস্তোরাঁ সত্যি এতকাল ছিল না৷ মিকি ইরিসারি বলেন, ‘‘রেস্তোরাঁয় টিনে বোঝাই খাবার ব্যবহার করা হয় বটে, কিন্তু সেটা রান্নার উপাদানমাত্র৷ আমাদের এই রেস্তোরাঁয় সবকিছুই টিন অথবা বোতলে ভরা খাদ্য৷ তাতে কিছুই যোগ করা হয় না৷''

টিনে ভরা খাদ্য শুধু স্বাদ ধরে রাখে তাই নয়, সেগুলি   পুষ্টিকর ও স্বাস্থ্যকরওবটে৷ কারণ তাতে প্রোটিন, মিনারেলস বা ভিটামিন অক্ষত থাকে৷ মিকি ইরিসারির রেস্তোরাঁয় এর মধ্যে বেশ কয়েকজন বাঁধা খদ্দের হয়েছে৷ কেউ বলেন, প্রতিবার দারুণ অভিজ্ঞতা হয়, পেটও ভরে৷ কেউ মনে করিয়ে দেন, এখানে শুধু উচ্চ মানের টিনের খাবার পাওয়া যায়৷ স্পেনে এমন ভালো মানের খাবার পাওয়া কঠিন৷

মিকি ইরিসারি এর মধ্যে মাদ্রিদে দ্বিতীয় একটি রেস্তোরাঁও খুলেছেন৷ অর্থাৎ এই আইডিয়া বেশ কদর পাচ্ছে৷ এমনকি শেষ পদ হিসেবে মিষ্টিও টিন থেকেই পরিবেশন করা হচ্ছে৷

ক্রিস্টিয়ান ভাইবেসান/এসবি

নির্বাচিত প্রতিবেদন

ইন্টারনেট লিংক

এই বিষয়ে অডিও এবং ভিডিও

বিজ্ঞাপন