মাদকযুদ্ধে এক মাসেই নিহত ৪৪৪! | বিশ্ব | DW | 27.09.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ফিলিপাইন্স

মাদকযুদ্ধে এক মাসেই নিহত ৪৪৪!

ফিলিপাইন্সে মাদকের বিরুদ্ধে যুদ্ধের অংশ হিসেবে শুধু আগস্ট মাসেই নিহত হয়েছেন ৪৪৪ সন্দেহভাজন৷ দেশটির মাদক নিয়ন্ত্রণ সংস্থা জানিয়েছে এ তথ্য৷

২০১৬ সালে শুরু হওয়া এই অভিযানে এখন পর্যন্ত মোট ৪,৮৫৪ জন নিহত হয়েছেন বলেও জানিয়েছে ফিলিপাইন্স ড্রাগ এনফোর্সমেন্ট এজেন্সি পিডিইএ৷ দেশটির সরকার অবশ্য দাবি করে আসছে যারা পুলিশকে বাধা দিয়েছে, কেবল তাঁদের ওপরই গুলি ছোঁড়া হচ্ছে৷

দুই বছরে গ্রেফতার করা হয়েছে দেড় লাখেরও বেশি মানুষকে৷ এই সময়ে অন্তত ১২টি মাদক তৈরির কারখানা ধ্বংস করা হয়েছে, ২২৩টি মাদকের আস্তানা গুড়িয়ে দেয়া হয়েছে বলেও দাবি করেছে দেশটির আইনশৃংখলা বাহিনী৷

অভিযানে জব্দ হওয়া মাদকের বাজারমূল্য প্রায় ২৪ বিলিয়ন ফিলিপিনো পেসো বা প্রায় সাড়ে চারশ মিলিয়ন মার্কিন ডলার৷

মানবাধিকার কর্মীরা শুরু থেকেই এই ঘটনাকে ‘বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ড’ বলে দাবি করে আসছেন৷ তাঁদের দাবি, সরকারি হিসেবে মৃত্যুর সংখ্যা অনেক কমিয়ে দেখানো হচ্ছে৷ আসল সংখ্যা ১২ হাজার ছাড়িয়ে যাবে বলেও মনে করেন তাঁরা৷

কিন্তু মানবাধিকার কর্মীরা যা-ই বলুন না কেন, জরিপে প্রেসিডেন্ট রদ্রিগো দুতার্তের মাদকবিরোধী যুদ্ধে জনগণের সমর্থন বাড়ছে বলে জানিয়েছে সোশ্যাল ওয়েদার স্টেশন নামে একটি বেসরকারি সংগঠন৷

জুন মাসে করা এ জরিপে দেখা গেছে, শতকরা ৭৮ ভাগ নাগরিক মনে করেন, মাদক দমনে সঠিক পথেই এগোচ্ছেন দুতার্তে৷ কেবল ১৩ শতাংশ মানুষ জানিয়েছেন তাঁদের অসন্তুষ্টি৷ এর আগে মার্চ মাসে করা জরিপে দুতার্তের নীতিতে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছিলেন ফিলিপাইন্সের ৭৫ শতাংশ মানুষ৷

জরিপে ২৬ শতাংশ ফিলিপিনো মনে করেন, পুলিশের বিরুদ্ধে ‘লড়াই’ করায় সন্দেহভাজনরা নিহত হয়েছেন বলে তাঁরা বিশ্বাস করেন না৷ অন্যদিকে, ২৭ শতাংশ নাগরিক পুলিশের দেয়া ভাষ্যে আস্থা রাখেন৷

একই জরিপে দেখা গেছে, ৯৬ শতাংশ নাগরিক মনে করেন, পুলিশের উচিত যেভাবেই হোক, সন্দেহভাজন মাদক ব্যবসায়ীদের জীবিত গ্রেফতার করা৷ কিন্তু চার শতাংশ মানুষ পুলিশ কী করলো, তার ধার ধারেন না৷ তাঁদের মতে, যেভাবেই হোক, মাদক দমনই হওয়া উচিত মূল লক্ষ্য৷

এডিকে/এসিবি (ডিপিএ)

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন