মাক্রোঁর সমালোচনায় ইরান | বিশ্ব | DW | 27.10.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বিশ্ব

মাক্রোঁর সমালোচনায় ইরান

তুরস্ক, পাকিস্তানের পর এ বার মাক্রোঁর সমালোচনায় ইরান। ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর মতে, মাক্রোঁ ইসলামোফোবিয়া তৈরি করছেন।

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট এর্দোয়ান, পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান এর আগেই ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট মাক্রোঁর কড়া সমালোচনা করেছেন। এ বার সেই সমালোচনা শোনা গেল ইরানের বিদেশমন্ত্রী জারিফের মুখেও। তাঁর মতে, মহানবী হযরত মোহাম্মদ(সাঃ)-এর কার্টুনকে সমর্থন করে মাক্রোঁ চরমপন্থীদের উৎসাহিত করছেন।

ইরানের বিদেশমন্ত্রী মনে করেন, সাম্রাজ্যবাদী শক্তি ও তাদের বন্ধুরা মিলে একটা ঘৃণার আবহ তৈরি করছে। তার আঘাত গিয়ে পড়ছে সাধারণ মুসিলমদের উপরে। কয়েকজন চরমপন্থী একটা কাজ করেছে, তার জন্য বিশ্বের ১৯০ কোটি মুসলিমকে অপমান করা হচ্ছে, তাদের ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত হানা হচ্ছে। এর ফলে চরমপন্থীরাই উৎসাহিত হবেন বলে তিনি জানিয়েছেন।

তবে আরব দেশগুলির মতো ফ্রান্সের জিনিস বয়কটের রাস্তায় এখনো হাঁটছে না ইরান। সেখানকার ধর্মীয় নেতারা এখনো সেই ধরনের কোনো ফতোয়া দেননি। বরং রাজনীতিবিদ থেকে ধর্মীয় নেতারা মাক্রোঁর 'অযোক্তিক অবস্থান' নিয়ে সোচ্চার হয়েছেন। তাঁরা বলছেন, কার্টুন আর প্রকাশ করা উচিত হবে না। ইরানের পার্লামেন্টের স্পিকার বলেছেন, মহানবীর সঙ্গে অযথা ও অর্থহীন শত্রুতা করছে ফ্রান্স।

ফ্রান্সের শিক্ষক স্যামুয়েল প্যাটি ক্লাসে মহানবী হযরত মোহাম্মদ(সাঃ)-র কার্টুন দেখিয়ে মতপ্রকাশের অধিকার ব্যাখ্যা করেছিলেন। তারপর তাঁকে হত্যা করে এক ১৯ বছর বয়সী চেচেন যুবক। এর জেরে উত্তাল হয়েছে ফ্রান্স। প্রেসিডেন্ট মাক্রোঁ তখন বলেছিলেন, তিনি বিষয়টি ছেড়ে দেবেন না। মতপ্রকাশের অধিকারের পক্ষে থাকবেন।

জিএইচ/এসজি(এপি, এএফপি, রয়টার্স)

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন