মাওলানা শফী হত্যার তদন্ত শুরু, হেফাজতের কর্মসূচি নাই | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 13.01.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ

মাওলানা শফী হত্যার তদন্ত শুরু, হেফাজতের কর্মসূচি নাই

হেফাজতে ইসলামের সাবেক আমির মাওলানা শাহ আহমদ শফী হত্যা মামলার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)৷ হেফাজত নেতারা বলেছেন, ‘‘এটি একটি মিথ্যা মামলা৷ তবে তদন্তকারীদের আমরা পূর্ণ সহযোগিতা করছি৷''

মঙ্গলবার ২৫ জনকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে চট্টগ্রাম পিবিআই এর একটি দল৷ ওই দলের প্রধান চট্টগ্রাম বিভাগীয় পিবিআই এর পুলিশ সুপার ইকবাল আহমেদ জানান, তারা মঙ্গলবার ঘটনাস্থল হাটহাজারী মাদ্রাসা পরিদর্শন করেছেন৷ হেফাজতের আমির মাওলানা জুনাইদ বাবুনগরীসহ ২৫ জনকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছেন৷ আরো জিজ্ঞাসাবাদ হবে৷ ২৫ জনের মধ্যে তিন-চারজন বিবাদী রয়েছেন৷ মাওলানা বাবুনগরীসহ বাকিদের সাক্ষী হিসেবে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে৷

মামলার অন্যতম বিবাদী এবং বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভেঙে ফেলার হুমকিদাতা হেফাজতের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হককে এখনো জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়নি৷  ইকবাল আহমেদ জানান, ‘‘মামুনুল হকসহ ৩৬ জন বিবাদীকেই জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে৷'' 

তবে তিনি জানান, মাওলানা শফীর লাশ তুলে ময়না তদন্তের প্রয়োজনীয়তা তারা দেখছেন না৷ আর মামলার আরজিতেও লাশ না তোলার আবেদন করা হয়েছে। তবে আলামত সংগ্রহ করা হয়েছে৷

অডিও শুনুন 02:46

মূর্তি ইস্যুতে কোনো কর্মসূচি দেব না: মাওলানা জাকারিয়া নোমান

"আদালত এই মামলার তদন্তে এক মাস সময় দিয়েছে৷ এই সময়ের মধ্যেই তদন্ত শেষ করার আশা করছেন তারা৷ তবে প্রয়োজন হলে সময় বাড়িয়ে নেবেন,‘' জানান তদন্ত কর্মকর্তা৷

হেফাজতের প্রচার সম্পাদক মাওলানা জাকারিয়া নোমান ফয়েজি জানান, তদন্তকারীরা মাওলানা বাবুনগরী ছাড়াও মাদ্রাসার শিক্ষকদের সাথে কথা বলেছেন, তারা যা জানতে চেয়েছেন তা জানানো হয়েছে৷ এই তদন্তে তাদের সব ধরনের সহযোগিতা করা হবে৷''

অবশ্য তিনি দাবি করেন, ‘‘মৃত্যুর আগের দুই বছরে আল্লামা শফীকে ১৬ বার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে৷ মারা গেছেন এইরকম খবর বেশ কয়েকবার চাউর হয়েছে৷ ১০৪ বছর বয়সের একটা লোক তিনি অসুস্থ হয়েছেন, হাসপাতালে মারা গেছেন, ওনার ছেলেরা লাশ গ্রহণ করেছেন৷ এটা নিয়ে এই ধরনের কথা একটা ফলস কাজ৷’’

মাওলানা মামুনুল হক জানান তাকে এখনো কোনো নোটিশ বা জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডাকা হয়নি৷ জিজ্ঞাসাবাদে যা "সত্য” তাই বলবেন তিনি৷ তিনি বলেন," আল্লামা শফীর স্বাভাবিক মৃত্যু হয়েছে৷ একটি মহল ষড়যন্ত্রমূলকভাবে এই মিথ্যা মামলা দায়ের করেছে৷ গোষ্ঠীগত স্বার্থ এবং হেফাজতের বর্তমান নেতৃত্বকে চাপে রাখতেই এই মামলা৷’’

তিনি অভিযোগ করেন, এখন তাকে দেশের কোথাও ওয়াজ মাহফিল করতে দেয়া হচ্ছে না৷ স্থানীয় প্রশাসন অনুমতি দিচ্ছে না৷ বলছে, উপরের নিষেধ আছে। তবে তার ব্যক্তিগত চলাফেরায় কোনো বাধা নেই বলে জানান তিনি৷

বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ইস্যুতে হেফাজত মাঠে নামার পর তাদের বিরুদ্ধে ২০১৩ সালের ৫ মে শাপলা চত্বরের ঘটনায় দায়ের করা মামলাগুলোর তদন্ত চাঙ্গা করা হলেও এখন আবার তাতে ভাটা পড়েছে। মাওলানা জাকারিয়া নোমান ফয়েজি বলেন, ওইসব মামলার ব্যাপারে পুলিশ তাদের নেতা-কর্মীদের এখন কোনো ঝামেলা করছে না৷ কোনো তদন্তও চোখে পড়ছে না৷ তিনি জানান," স্বারাষ্ট্রমন্ত্রীর সাথে আমাদের নিয়মিত যোগাযোগ ও কথা হচ্ছে৷ আশা করি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গেও আমাদের বৈঠক হবে৷’’

অডিও শুনুন 01:44

আল্লামা শফীর স্বাভাবিক মৃত্যু হয়েছে: মাওলানা মামুনুল হক

তিনি আরেক প্রশ্নের জবাবে বলেন, ‘‘মূর্তি ইস্যুতে আমরা আর কোনো কর্মসূচি দেব না৷ আমাদের কাজ ছিলো সরকাররকে জানানো৷ আমরা মনে করি ভাস্কর্য আর মূর্তি একই৷ তবে আমরা মূর্তি ভাঙব না৷ এটা সরকারের কাজ। তারা করলে করতে পারেন।’’

হেফাজতের সাবেক আমির মাওলানা শাহ আহমদ শফী মারা যান গত বছরের ১৮ সেপ্টেম্বর ঢাকায় চিকিৎসাধীন অবস্থায়৷ তার আগে তাকে মাদ্রাসার ছাত্রদের বিক্ষোভের মুখে মাদ্রাসা থেকে পদত্যাগ করতে হয়৷ তার ছেলে আনাস মাদানীকে মাদ্রাসা থেকে বের করে দেয়া হয়৷ আর তার শ্যালক মো. মইন উদ্দিন চট্টগ্রামের আদালতে হত্যা মামলা করেন ১৭ ডিসেম্বর৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন