মহাশূন্যযানে চীনের নতুন তারকা | বিজ্ঞান পরিবেশ | DW | 12.06.2013
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিজ্ঞান পরিবেশ

মহাশূন্যযানে চীনের নতুন তারকা

মহাশূন্যযান ‘শেনঝু টেন’ নির্বিঘ্নে ছুটে গেছে কক্ষপথের দিকে৷ চীনের জন্য তো বটেই, মহাকাশ গবেষণার জন্যও খুব বড় খবর৷ কমিউনিস্ট শাসিত দেশটির জন্য আরেকটি বড় খবর – নতুন এক তারকা পেয়েছে তারা৷

ঠিক এক বছর আগে মহাকাশযানের প্রথম নারী নভোচারী পেয়েছিল চীন৷ সেটা ছিল শেনঝু স্পেস ক্যাপসুলের প্রথম মিশন৷ প্রথম মিশনে দেশের প্রথম নারী ‘তাইকোনট' হিসেবে ছিলেন লিউ ইয়াং৷ এক বছর পর, মঙ্গলবার আবার মানুষবাহী নভোযান নিয়ে ছুটে গেল শেনঝু টেন৷ সঙ্গে নিয়ে গেছে তিনজন মানুষ, তিন নভোচারী৷ তিনজনের মধ্যে আছেন চীন সেনাবাহিনীর এক মেজর৷ বাকি দুই সিনিয়র সামরিক কর্মকর্তা মেজর জেনারেল নি হাইশেং এবং কর্নেল ঝাও শিয়াংগুয়াংয়ের চেয়ে অনেক বেশি মনযোগ এখন মেজর ওয়াং ইয়াপিংয়ের দিকে৷ মহাশূন্যযান তো শুধু মহাশূন্যযান নয়, দেশটির জন্য অর্থনীতি আর বিজ্ঞান প্রযুক্তিতে উন্নতি এবং নারী প্রগতির প্রতীক৷ ৩২ বছর বয়সি ওয়াং ইয়াপিং তো নারীই!

China - Rakete Shenzhou-10 Taikonauten

ওয়াং ইয়াপিং (বামে)

কক্ষপথে শেনঝুর ১৫ দিন থাকার কথা৷ সেখানে ইয়াপিংয়ের কাজ হবে ছোট ছেলেমেয়েদের পড়ানো৷ হ্যাঁ, স্কুলের ছাত্রছাত্রীদের মহাকাশ সম্পর্কে আগ্রহী করে তোলাই হবে তাঁর কাজ৷ এর আগে চারবার নভোচারীসহ মহাকাশযান পাঠিয়েছে চীন৷ প্রথমবার পাঠিয়েছিল ২০০৩ সালে৷ বিশ্বের সবচেয়ে জনবহুল এ দেশের মহাকাশ বিজ্ঞানে ভবিষ্যৎ লক্ষ খুব উচ্চাভিলাষী৷ চাঁদে নভোচারী পাঠানো এবং ২০২০ সালের মধ্যে কক্ষপথে একটি মহাকাশ কেন্দ্র খোলারও পরিকল্পনা রয়েছে চীনের৷

১৫ দিন পর ফ্লাইট কমান্ডার নি হাইশেংয়ের নেতৃত্বে ওয়াং ইয়াপিং যদি হাসিমুখে ফিরতে পারেন তাহলে যুক্তরাষ্ট্র এবং রাশিয়ার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে মহাকাশ বিজ্ঞানে চীনের আরো এগিয়ে যাওয়ার আরেকটি সোপান তৈরি হবে৷ মঙ্গলবার ‘শিনঝু টেন'-এর মহাশুন্যের দিকে ছুটে চলা টেলিভিশনের পর্দায় সরাসরি দেখেছেন চীনের প্রেসিডেন্ট জি শিনপিং৷ তিন নভোচারীর উদ্দেশ্যে তাঁর কথা, ‘‘চীনের জনগণ আজ আপনাদের নিয়ে গর্বিত৷ আপনারা সফলভাবে ফিরে আসতে পারবেন এ বিশ্বাস আমার আছে৷ আপনাদের সাফল্য কামনা করে সফলভাবে ফিরে আসা দেখার অপেক্ষায় থাকলাম৷''

এসিবি/এসবি (এপি, এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন