মহাজোট সরকার থেকে বেরিয়ে আসুন, জার্মানি পরিবর্তন চায় | বিশ্ব | DW | 27.09.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

সংবাদমাধ্যম

মহাজোট সরকার থেকে বেরিয়ে আসুন, জার্মানি পরিবর্তন চায়

জার্মান ভোটারেরা দেশের রাজনৈতিক পটভূমিতে বিশাল পরিবর্তন এনেছেন৷ বড় দুই দলের প্রভাবকে ইতিহাসের পাতায় বন্দি করেছেন - অন্তত এখন পর্যন্ত৷ এই পরিবর্তন দরকার ছিল বলে মনে করেন ডিডাব্লিউর প্রধান সম্পাদক মানুয়েলা কাসপার-ক্লারিজ৷

পরিবর্তন এসেছে৷ জার্মান ভোটারেরা জানিয়ে দিয়েছেন শেষ মহাজোট সরকারের ক্ষুদ্র আপোস দিয়ে আর কাজ হবে না৷ এখন জলবায়ু পরিবর্তন, ডিজিটালাইজেশন ও জার্মানির প্রয়োজনীয় আধুনিকীকরণের মতো বড় চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করার সময়৷

এসব কাজ শুধুমাত্র ছোট দলগুলোর সঙ্গে মিলে করা সম্ভব৷ পরিবেশবাদী সবুজ দল ও ব্যবসাবান্ধব মুক্ত গণতন্ত্রী এফডিপি দল ছাড়া এবার কিছু করা যাবে না - এবং এটা ভালো বিষয়৷

সবুজ দলের এবার বেশি ভোট পাওয়ার মানে হচ্ছে জার্মান ভোটাররা জলবায়ু পরিবর্তন নিয়ে চিন্তিত৷ সে কারণে জোট সরকার গঠনের আলোচনায় আত্মবিশ্বাস নিয়ে অংশ নিতে পারবে তারা৷

ব্যবসাবান্ধব দল এফডিপিকেও জোট সরকারের আলোচনায় নিতে হবে৷ তারা সবুজ দলের কিছু ইচ্ছায় বাগড়া দিতে পারে৷

ইতিহাসের সবচেয়ে খারাপ ফল করা সিডিইউ/সিএসইউ এবার দ্বিতীয় বৃহত্তম দল হলেও তারাও নতুন সরকার গঠনের চেষ্টা করতে পারে৷ এর আগে গত কয়েক দশকে তিনবার এমন ঘটনা ঘটেছে যে, যিনি চ্যান্সেলর হয়েছেন তিনি সবচেয়ে বেশি ভোট পাওয়া দলের ছিলেন না৷

ম্যার্কেল.

নির্বাচনি প্রচারণার শুরুতে সামাজিক গণতন্ত্রী এসপিডি দলের ভোট ছিল মাত্র ১২ শতাংশ৷ সেই অবস্থা থেকে দলকে শীর্ষ দলে পরিণত করেছেন চ্যান্সেলর প্রার্থী ওলাশ শলৎস৷ বর্তমান মহাজোট সরকারে অর্থমন্ত্রী ও ডেপুটি চ্যান্সেলরের দায়িত্ব পালন করা শলৎসকে অনেকে ম্যার্কেল ২.০ মনে করেন৷ কারণ ম্যার্কেলের মত তিনিও বেশি আবেগ না দেখিয়ে কাজের কাজটি করে থাকেন৷

DW Kommentatorenbild Manuela Kasper-Claridge

মানুয়েলা কাসপার, ডয়চে ভেলে

সাময়িক সরকারি ফল বলেছে এবার এসপিডির নেতৃত্বে সবুজ ও এফডিপি দলের সমন্বয়ে জোট সরকার গঠনের সম্ভাবনা বেশি৷ কিন্তু সবুজ ও এফডিপি দলের মতো দুটো দলের সঙ্গে এ সংক্রান্ত আলোচনা সহজ হবে না৷ কারণ জলবায়ু পরিবর্তন ও কর আরোপ এই দুটি বিষয়ে ঐ দুই দলের মধ্যে বেশ মতপার্থক্য রয়েছে৷

অর্থাৎ নতুন সরকার কেমন হতে যাচ্ছে তা নিয়ে অনিশ্চয়তা থাকছে৷ তবে ভোটারেরা জানিয়ে দিয়েছেন তারা আঙ্গেলা ম্যার্কেলের নীতির ধারাবাহিকতা চান না৷ গত কয়েক দশকের তুলনায় সিডিইউ ও এসপিডির মতো বড় দলগুলোর ক্ষমতা ও প্রভাব অনেক কমে গেছে৷

জার্মানির রাজনীতি আরও রঙিন হয়ে উঠবে৷ ভবিষ্যতের বড় ইস্যুগুলো জলবায়ুবান্ধব ও আধুনিক নীতি দিয়ে মোকাবিলা করার এখনই সময়৷

মানুয়েলা কাসপার-ক্লারিজ/জেডএইচ

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়