মস্কোর রেড স্কোয়্যারের অভিনব আকর্ষণ | অন্বেষণ | DW | 03.08.2017
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

অন্বেষণ

মস্কোর রেড স্কোয়্যারের অভিনব আকর্ষণ

মস্কো মানেই ক্রেমলিন, ক্রেমলিন মানেই রেড স্কোয়্যার – অনেকেই এমনটা মনে করেন৷ শহরের এই মূল আকর্ষণকে ঘিরে নানা রকম জল্পনা-কল্পনা রয়েছে৷ লেনিনবেশী এক গাড়ির মিস্ত্রী জায়গাটিকে আপন করে নিয়েছেন৷

রেড স্কয়ারে আইস স্কেটিং

রেড স্কয়ারে আইস স্কেটিং

রাশিয়ার হৃদয় বলে পরিচিত মস্কোর রেড স্কোয়্যার সন্ধ্যার আলোয় সবচেয়ে সুন্দর দেখায়৷ লাল তারার পেছনেই ক্রেমলিনের গণ্ডি শুরু হচ্ছে৷ লাল প্রাচীরের ঠিক পেছনে রাশিয়ার ক্ষমতাকেন্দ্র৷ এর ঠিক বিপরীতে বিখ্যাত বিপণী গুম অবস্থিত৷ ধনী রুশরা এখানেই কেনাকাটা করেন৷

রেড স্কোয়্যারের উত্তরে সরু অংশে ঐতিহাসিক মিউজিয়াম ও দক্ষিণে ষোড়শ শতাব্দীতে তৈরি বাসিলুস ক্যাথিড্রাল শোভা পাচ্ছে – যাকে মস্কো শহরের সম্ভবত সবচেয়ে সুন্দর বলা হয়ে থাকে৷ গোটা এলাকা জুড়ে নানা দ্রষ্টব্য ছড়িয়ে আছে৷ আবার রেড স্কোয়্যার তার নিজস্ব গুণেও এক দ্রষ্টব্য বটে৷ রুশ সূত্র অনুযায়ী রেড স্কোয়্যার ৫০০ মিটার দীর্ঘ, ১৫০ মিটার প্রস্থ৷

ভিডিও দেখুন 02:29

মস্কোতে লেলিনের বেশে গাড়ির মিস্ত্রী

সের্গেই সালোভইয়ভ গত প্রায় ১১ বছর ধরে লেনিন সেজে পর্যটকদের সঙ্গে ছবি তোলান৷ তিনি বলেন, ১৯১৭ সালের অক্টোবর বিপ্লবের নায়ক আজও অত্যন্ত জনপ্রিয়৷ তিনি বলেন, ‘‘পর্যটকরা প্লোরেতারিয়াতের নেতাকে চিনতে পারেন, যিনি গোটা বিশ্বকে নাড়িয়ে দিয়েছিলেন৷ তাঁরা প্রশ্ন করেন, ভ্লাদিমির ইলয়িচ – আপনি কেন এমন করলেন?’’

রেড স্কোয়্যারের নামের উৎস নিয়ে নানা মত রয়েছে৷ তবে ঐতিহাসিকভাবে একটি ব্যাখ্যা সবচেয়ে গ্রহণযোগ্য৷ প্রাচীন রুশ ভাষায় জায়গাটির নাম ছিল ‘ক্রাসনায়া প্লোশচাদ’ – অর্থাৎ সুন্দর স্কোয়্যার৷ আজও সেই বিশেষণ প্রজোয্য৷

প্রতি বছর লক্ষ লক্ষ পর্যটক রেড স্কোয়্যার বেড়াতে আসেন৷ প্রায় সবাই সেই স্মৃতি ধরে রাখতে ছবি তোলেন৷ যেমন ক্রেমলিনের সামনে লেনিনের সমাধি৷ আজও পর্যটকরা সেখানে লেনিনের মরদেহ দর্শন করতে পারেন৷ অথবা বাসিলিউস ক্যাথিড্রালের সামনে৷ কুখ্যাত জার বা সম্রাট ‘আইভান দ্য টেরিবল’ নাকি এর প্রধান মিস্ত্রীকে সরিয়ে ফেলেছিলেন, যাতে তিনি আর কখনো এত সুন্দর স্থাপনা তৈরি করতে না পারেন৷

ক্যার্স্টিন পালৎসে/এসবি

নির্বাচিত প্রতিবেদন

ইন্টারনেট লিংক

এই বিষয়ে অডিও এবং ভিডিও

বিজ্ঞাপন