মমতাকে শাস্তি কমিশনের, ২৪ ঘণ্টা প্রচার বন্ধ | বিশ্ব | DW | 13.04.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ভারত

মমতাকে শাস্তি কমিশনের, ২৪ ঘণ্টা প্রচার বন্ধ

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে শাস্তি দিল নির্বাচন কমিশন। ২৪ ঘণ্টার জন্য প্রচার করতে পারবেন না তিনি।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে শাস্তি দিয়েছে নির্বাচন কমিশন।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে শাস্তি দিয়েছে নির্বাচন কমিশন।

উস্কানিমূলক কথা বলে তিনি জনপ্রতিনিধি আইন ও আদর্শ আচরণবিধি ভেঙেছেন, তাই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ২৪ ঘণ্টা প্রচার করতে পারবেন না। নির্দেশ কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিশনের। সোমবার রাত আটটা থেকে মঙ্গলবার রাত আটটা পর্যন্ত তাই মুখ্যমন্ত্রীর প্রচার বন্ধ। প্রতিবাদে মঙ্গলবার দুপুর থেকেই কলকাতায় গান্ধী মূর্তির সামনে বিক্ষোভে বসছেন মমতা।

সম্প্রতি প্রচারের সময়, মমতা ধর্মের ভিত্তিতে ভোট চেয়েছেন বলে কমিশন তাকে নোটিশ দিয়েছিল। কারণ, মমতা তারকেশ্বরের সভায় বলেছিলেন, সংখ্যালঘু ভাইবোনদের বলছি, আপনাদের ভোট ভাগ হতে দেবেন না।  তা হলে বিজেপি-র সুবিধা হবে। কেন্দ্রীয় বাহিনীকে ঘেরাও করার কথা বলার জন্যও আরেকটি নোটিশ দেয়া হয়েছিল মমতাকে। কমিশনের সিদ্ধান্ত, এই ধরনের কথা বলে মুখ্যমন্ত্রী আইন ভেঙেছেন।

কিন্তু কমিশনের এই সিদ্ধান্তের প্রবল সমালোচনা করেছে বিরোধীরা। এমনকী কট্টর তৃণমূল বিরোধী নীতি নিয়ে চলা বাম ও কংগ্রেসের রাজ্য নেতারাও কমিশনের সিদ্ধান্ত মেনে নিতে পারেননি। কংগ্রেস নেতা আব্দুল মান্নান বলেছেন, ''বিজেপি নেতাদের বিরুদ্ধেও উস্কানিমূলক কথা বলার প্রচুর অভিযোগ আছে। কিন্তু শুধু মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়ে কমিশন নিরপেক্ষতা নষ্ট করল।'' সিপিএমের নেতা সুজন চক্রবর্তীর মন্তব্য, ''মমতার বিরুদ্ধে কমিশনের সিদ্ধান্ত বেঠিক বলে মনে করি না। কিন্তু দিলীপ ঘোষের মুখ কি বন্ধ করা যাবে? রাহুল সিনহা বা সায়ন্তন বসুকে কি শাস্তি দেয়া যাবে?''

দিলীপ ঘোষ বলেছেন, দরকার হলে আরো অনেক শীতলকুচি হবে, আর রাহুলের মন্তব্য, চারজন কেন, আটজনকে মারা উচিত ছিল কেন্দ্রীয় বাহিনীর। দুজনকেই নোটিশ দিয়েছে কমিশন।

নির্বাচন কমিশন সিদ্ধান্ত নিয়েছে, এবার ৭২ ঘণ্টা আগে প্রচার বন্ধ করতে হবে। সেক্ষেত্রে মঙ্গলবার রাত দশটায় পঞ্চম পর্বের ভোটপ্রচার বন্ধ হয়ে যাবে। মমতার উপর থেকে নিষেধাজ্ঞা উঠবে রাত আটটায়। তারপর তিনি একটি জনসভা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, কমিশনের সিদ্ধান্ত অগণতান্ত্রিক ও অসাংবিধানিক। তাই তিনি প্রতিবাদে মেয়ো রোডে গান্ধী মূর্তির সামনে বেলা বারোটা থেকে বিক্ষোভে বসবেন।

জিএইচ/এসজি(পিটিআই)