মনে রাখলেন প্রণব | বিশ্ব | DW | 07.06.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

ভারত

মনে রাখলেন প্রণব

আজীবন কংগ্রেসি, ধর্ম নিরপেক্ষতায় বিশ্বাসী, ভারতের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জি রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সঙ্ঘ-এর সভায়৷ অপেক্ষায় ছিল ভারত৷

Wahlen Indien Pranab Mukherjee (Reuters)

ফাইল ফটো

মুখ রাখলেন ভারতের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জি৷ নিজের এবং কংগ্রেস দলের ধর্মনিরপেক্ষতার আদর্শের, নিজের দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনের আদর্শকেই তিনি মান‍্যতা দিয়েছেন৷

রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সঙ্ঘের মঞ্চে দাঁড়িয়ে, দেশের সহিষ্ণুতা এবং বহুমতের সহাবস্থানের ঐতিহ‍্যকে ঊর্ধে তুলে ধরলেন৷ তার আগে তিনি আরএসএস-এর দুই প্রতিষ্ঠাতার স্মরণে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন৷ তখনও পর্যন্ত গোটা দেশ অপেক্ষায় ছিল, প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি কট্টর হিন্দুত্ববাদীদের পাশে দাঁড়িয়ে ঠিক কী বলেন৷

সেখানে প্রণব হতাশ করেননি৷ ভারতের সহিষ্ণুতা, সব ধর্ম, জাত ও জনজাতির লোককে জীবনের মূলস্রোতে শামিল করার দীর্ঘ ইতিহাসের কথা স্মরণ করিয়েছেন৷ বলেছেন, ভারতের বহুত্ববাদের মহত্বর আদর্শের কথা৷ মনে করিয়ে দিয়েছেন, এই সহিষ্ণুতা এবং বহুত্বের মধ‍্যেই নিহিত ভারতের শক্তি৷ বলেছেন, সমস্ত জাতি-ধর্মের সংহতিতেই ভারতে প্রকৃত জাতীয়তাবাদের বিকাশ, এটা স্মরণে রাখা দরকার৷

প্রণব মুখার্জি আরএসএসের সভায় যাবেন, ভাষণ দেবেন, এই খবরে কংগ্রেস দলে ব্যাপক বিভ্রান্তি ছড়ায়৷ বিশেষত যখন রটে যায়, প্রণব তাঁর কন্যা শর্মিষ্ঠা মুখার্জির বিজেপি প্রার্থী হওয়ার প্রস্তাবে সম্মতি জানিয়েছেন৷ বিরোধিতা করে প্রথম টুইটটি আসে শর্মিষ্ঠার অ্যাকাউন্ট থেকে৷ প্রণব-কন্যা রানিখেতের পাহাড়ে ছুটি কাটাচ্ছেন৷ সেখান থেকেই তিনি লেখেন, ‘‘পাহাড়ে সুন্দর একটা সূর্যাস্ত উপভোগ করার সময় চোরাগোপ্তা ক্ষেপণাস্ত্রের মতো আচমকা খবরটা এলো যে, আমি নাকি বিজেপিতে যোগ দিচ্ছি!‌ একটু শান্তিতে, সুস্থভাবে থাকার কি উপায় নেই!‌ আমি রাজনীতিতে যোগ দিয়েছি, কারণ, কংগ্রেসের আদর্শে আমি বিশ্বাসী৷ কংগ্রেস ছেড়ে যাওয়ার থেকে বরং রাজনীতিই ছেড়ে দেবো!''‌

  

এরপরই, নজিরবিহীনভাবে প্রকাশ্যে নিজের বাবা, দেশের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতিকে সতর্ক করতে চেয়েছেন শর্মিষ্ঠা৷ পরপর দু'টি টুইটে তিনি প্রণবের টুইট অ্যাকাউন্ট ‘‌সিটিজেন মুখার্জি'-কে ট্যাগ করে লিখেছেন, ‘‘আজকের ঘটনা থেকে বুঝতে পারলাম, বিজেপির নোংরা অপপ্রচার ঠিক কীভাবে কাজ করে৷ আরএসএস নিজেরাও বিশ্বাস করে না যে, আপনি ওদের আদর্শকে সমর্থন জানাবেন নিজের ভাষণে৷ কিন্তু ভাষণটা সবাই ভুলে গেলেও ছবি থেকে যাবে৷ মিথ্যে বক্তব্যের সঙ্গে সেই ছবি ছড়ানো হবে৷''

শর্মিষ্ঠার পরের টুইটটি আরও কড়া ভাষায়, যেখানে তিনি কার্যত অভিযুক্ত করছেন বাবাকে৷ লিখেছেন, ‘‘বিজেপি, আরএসএস-কে মিথ্যে খবর আর গুজব ছড়ানোর সুযোগ আজ আপনিই দিচ্ছেন, যা কিছুটা বিশ্বাসযোগ্যও মনে হচ্ছে৷ এবং এটা সবে শুরু!''

কংগ্রেস যদিও দল হিসেবে প্রণব মুখার্জির নাগপুর যাত্রা নিয়ে কোনও মন্তব্য করেনি৷ কেবল প্রাক্তন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী পি চিদাম্বরম প্রণবের উদ্দেশে বলেছিলেন, ‘‘যাচ্ছেনই যখন, আরএসএস মতাদর্শের ভুলগুলো বরং ওদের বুঝিয়ে দিয়ে আসুন৷'' আর আহমেদ প্যাটেল মন্তব্য করেছিলেন, ‘‘প্রণব'‌দার কাছে এটা প্রত্যাশিত ছিল না!''‌ পরে জানা যায়, স্বয়ং সোনিয়া গান্ধী, যিনি প্রণবের নাগপুর যাওয়া নিয়ে অত্যন্ত ব্যথিত এবং ক্ষুব্ধ, তিনিই আহমেদ প্যাটেলকে দিয়ে ওই মন্তব্য করিয়েছিলেন৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়