​​​​​​​মদ পানের লাইসেন্স আদালতে দিলেন আসিফ | বিষয় | DW | 21.11.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ

​​​​​​​মদ পানের লাইসেন্স আদালতে দিলেন আসিফ

নানা বিতর্ক আর অঘটন যেন পিছু ছাড়ছে না সংগীত শিল্পী আসিফ আকবরের৷ কপিরাইট নিয়ে এক মামলায় জেল খাটার পর এবার তার মদ খাওয়ার বিষয়টি ফের সামনে এসেছে৷

আসিফ আকবরের কার্যালয়ে চার বোতল মদ পাওয়ার পর তার বিরুদ্ধে মামলা করেছিল পুলিশ; সেই মামলার আসামি হিসেবে নিজের মদ পানের জন্য মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর থেকে পাওয়া ছাড়পত্র আদালতে জমা দিয়েছেন তিনি৷

গত বছরের ঘটনায় করা ওই মামলায় সম্প্রতি অভিযোগপত্র দেওয়ার পর বুধবার জামিনের আবেদন নিয়ে ঢাকার মহানগর হাকিম জিয়াউর রহমানের আদালতে হাজির হন আসিফ৷ তার বাসা থেকে উদ্ধার হওয়া মদের বিষয়ে ব্যাখ্যা দিয়ে মদ খাওয়ার অনুমতির লাইসেন্সও আদালতে দাখিল করেন তিনি৷

আসিফ বিচারককে বলেন, ‘‘আমার নির্দিষ্ট পরিমাণ মদ গ্রহণ করার জন্য অনুমোদন আছে৷ আমার ঘাড়ের পেছনের দিকে পেইন হয়, সে কারণে এটা মাঝে মধ্যে গ্রহণ করতে হয়৷ এ বিষয়ে চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া হয়েছে৷ এই বিষয়ে আমি লাইসেন্স নিয়েছি৷ প্রতিবছর আমি সরকারকে ট্যাক্স দিই৷''

আসামি পক্ষের আইনজীবীরা শুনানিতে বলেন, মাত্র চার বোতল মদ উদ্ধার হয়েছে৷ মেডিকেল গ্রাউন্ডে নির্দিষ্ট পরিমাণ মদ পানের সুযোগ রয়েছে৷ সেক্ষেত্রে আসামির ইনজুরি থাকায় সীমিত পরিমাণ মদ গ্রহণ করতে পারবেন৷

সংশ্লিষ্ট আদালতে পুলিশের সাধারণ নিবন্ধন কর্মকর্তা (জিআরও) এসআই ফরিদ মিয়া বলেন, ‘‘আসিফের আইনজীবী নিজের বক্তব্যের সমর্থনে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর কর্তৃক প্রদত্ত মদপানের লাইসেন্সসহ বিভিন্ন চিকিৎসা সনদপত্র আদালতে দাখিল করেন৷''

আসিফের আইনজীবীরা ঘটনার এক বছর পর মামলা দায়ের করা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন৷ এছাড়া অভিযোগপত্রে অনেক গরমিল রয়েছে বলেও দাবি করেন তারা৷

গত বছরের ৫ জুন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনের একটি মামলায় আসিফকে গ্রেপ্তার করা হয়৷ তখন আসিফের কার্যালয়ে চার বোতল টাকিলা পাওয়া যায়৷ ওই মদ পাওয়ার পর তা পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য মাদকদ্রব্য অধিদপ্তরে পাঠিয়েছিল সিআইডি৷

এরপর লাইসেন্স ছাড়া বিদেশি মদ নিজের দখলে রাখায় আসিফের বিরুদ্ধে চলতি বছরের ২৩ জুলাই তেজগাঁও থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা করেন সিআইডি পুলিশের সাইবার তদন্ত শাখার উপ-পরিদর্শক প্রশান্ত কুমার সিকদার৷ ওই মামলায় গত ১৩ নভেম্বর আসিফের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেয় পুলিশ৷ অভিযোগপত্র গ্রহণ করে বিচারক গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করলে আসিফ বুধবার আদালতে হাজির হয়ে জামিন নেন৷

কপিরাইট নিয়ে গীতিকার ও সুরকার শফিক তুহিনের করা মামলায় গ্রেপ্তার হয়ে গত বছর জেল খেটেছেন আসিফ৷

এসআই/এসিবি (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)

নির্বাচিত প্রতিবেদন