ভয়ের কিছু নেই, আটকের প্রথম বছরে আলেক্সি নাভালনি | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 18.01.2022

ডয়চে ভেলের নতুন ওয়েবসাইট ভিজিট করুন

dw.com এর বেটা সংস্করণ ভিজিট করুন৷ আমাদের কাজ এখনো শেষ হয়নি! আপনার মতামত সাইটটিকে আরো সমৃদ্ধ করতে পারে৷

  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

সমাজ সংস্কৃতি

ভয়ের কিছু নেই, আটকের প্রথম বছরে আলেক্সি নাভালনি

শর্তভঙ্গ এবং প্রতারণার অভিযোগে  গ্রেপ্তারের এক বছর পার করলেন রুশ আন্দোলনকারী আলেক্সি নাভালনি৷

মস্কো বিমানবন্দর থেকে গ্রেপ্তার করা হয় তাকে৷ প্রায় আড়াই বছর বন্দিশিবিরেও ছিলেন আলেক্সি৷

রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুটিনের কট্টর সমালোচক আলেক্সি জার্মানি থেকে ফিরছিলেন৷ বার্লিনের হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন তিনি৷ স্নায়ুতে বিষপ্রয়োগ করে হত্যার চেষ্টার অভিযোগ আনেন তিনি৷ দেশে ফেরার পরই আলেক্সির গ্রেপ্তার যেন আগুনে ঘি ঢেলেছিল৷ গ্রেপ্তারির বিরোধিতায় আন্দোলন চলেছিল সর্বত্র৷

সোমবার সোশ্যাল মিডিয়ায় গ্রেপ্তারির এক বছরে তিনি স্পষ্ট করলেন, রাশিয়ায় ফেরা নিয়ে কোনও অনুশোচনা নেই তার৷ এটা তাদের দেশ, কোনও ভয় যেন রাশিয়ার নাগরিকদের চালিত না করে এমন বার্তাও দিয়েছেন তিনি৷

ক্রেমলিনের সমালোচক বলেন, তার পোস্ট লাইক করার কারণে স্বরাষ্ট্র দপ্তরের কয়েকজন কর্মীকে বরখাস্ত করার খবরও তিনি শুনেছেন৷

তার কথায়, 'আজীবন ভয় নিয়ে বেঁচে কী লাভ?' আলেক্সির মুখপাত্র কিরা ইয়ারমিশের বক্তব্য, ১৭ জানুয়ারি জয়ের মুহূর্ত৷ পুটিন ভেবেছিলেন, নাভালনিকে হত্যা করবেন, কিন্তু তা হয়নি৷ আলেক্সি অক্ষত অবস্থায় ঘরে ফিরেছেন

আলেক্সির গ্রেপ্তারির পর বিশ্বজুড়ে সমালোচনার মুখে পড়েন পুটিন৷ জার্মানির মানবাধিকার কমিশনার তথা গ্রিন পার্টির লুই আমট্সবুর্গ নাভালনির দ্রুত মুক্তির দাবি তোলেন৷ অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালও নাভালনির মুক্তির দাবি জানায়৷ তার সমর্থকদের উপর নৃশংস অত্যাচারের কথাও উল্লেখ করা হয়েছে অ্যামনেস্টির টুইটারে৷  

নাভালনির রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডকে চরমপন্থা বলে দাগিয়ে নিষেধাজ্ঞা জারি হয়েছে৷ গ্রেপ্তারির পর এ নিয়ে চার বার আলেক্সির বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হল৷

২০২১  সালের ছবিঘর

আরকেসি/কেএম (ডিপিএ, এএফপি)