ভ্যাটিকানের শীর্ষ কার্ডিনালের বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ | বিশ্ব | DW | 29.06.2017
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বিশ্ব

ভ্যাটিকানের শীর্ষ কার্ডিনালের বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ

ভ্যাটিকানের অর্থবিভাগের প্রধান অস্ট্রেলিয়ার কার্ডিনাল জর্জ পেলের বিরুদ্ধে ‘ঐতিহাসিক যৌন নিপীড়ন অপরাধ’-এর অভিযোগ আনা হয়েছে৷ অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করে আদালতে উপস্থিত হতে তিনি ছুটি নিয়েছেন৷

অস্ট্রেলিয়ার ভিক্টোরিয়া রাজ্যের পুলিশ কার্ডিনাল পেলের বিরুদ্ধে অভিযোগের তথ্য জানিয়ে জুলাইয়ের ১৮ তারিখ মেলবোর্নের এক আদালতে তাঁকে উপস্থিত হতে বলেছে৷

ডেপুটি কমিশনার শেন প্যাটন কার্ডিনাল পেলের বিরুদ্ধে ‘কয়েকটি অভিযোগ’ থাকার কথা জানিয়েছেন৷ তবে এর বেশি কিছু তিনি জানাননি৷

এদিকে, কার্ডিনাল পেল এই অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করে একে তাঁর ‘চরিত্র হরণের অবিশ্রান্ত’ চেষ্টা বলে মন্তব্য করেছেন৷ অভিযোগ থেকে নিজেকে মুক্ত করতে ভ্যাটিকান থেকে ছুটি নিয়ে অস্ট্রেলিয়া যাবেন বলেও জানিয়েছেন ৭৬ বছর বয়সি অস্ট্রেলিয়ার এই শীর্ষ ক্যাথলিক৷

অনানুষ্ঠানিক হিসাবে ভ্যাটিকানের তৃতীয় সর্বোচ্চ ক্ষমতাধর ব্যক্তি হিসেবে ধরা হয় কার্ডিনাল পেলকে৷ এর আগে ক্যাথলিক গির্জার এত উঁচু পর্যায়ের কোনো কর্মকর্তার বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ আনা হয়নি৷

অস্ট্রেলিয়ার অনলাইন ফোরাম ‘ক্যাথলিকা’র সম্পাদক ব্রায়ান কয়েন মনে করছেন, কার্ডিনাল পেলের বিরুদ্ধে এই অভিযোগ অস্ট্রেলিয়াসহ আন্তর্জাতিক পর্যায়ে ক্যাথলিক গির্জার উপর ব্যাপক প্রভাব ফেলবে৷

যাজকদের হাতে যৌন নিগ্রহের শিকারদের যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক সংস্থা এসএনএপি অস্ট্রেলীয় কর্তৃপক্ষের এই সিদ্ধান্তের প্রশংসা করেছে৷

এদিকে, ভ্যাটিকানের এক বিবৃতিতে কার্ডিনাল পেলের প্রতি পোপ ফ্রান্সিসের সমর্থন থাকার কথা জানানো হয়েছে৷

প্রাতিষ্ঠানিক পর্যায়ে শিশু নিগ্রহের বিষয়ে তদন্ত করতে ২০১২ সালে অস্ট্রেলিয়ায় ‘রয়েল কমিশন ইনটু ইনস্টিটিউশনাল রেসপন্সেস টু চাইল্ড সেক্স অ্যাবিউজ’ নামে একটি কমিশন গঠন করা হয়েছিল৷ গত ফেব্রুয়ারি মাসে এই কমিশন জানায়, অস্ট্রেলিয়ায় ১৯৫০ থেকে ২০১০ সাল পর্যন্ত সাত শতাংশ ক্যাথলিক যাজক শিশু নিগ্রহের সঙ্গে জড়িত ছিলেন৷

এর আগে ২০০২ সালে সিডনির আর্চবিশপ থাকাকালীন কার্ডিনাল পেলের বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ আনা হয়েছিল৷ তবে সেই অভিযোগ থেকে তিনি মুক্তি পেয়েছিলেন৷

জেডএইচ/এসিবি (এএফপি)

প্রিয় পাঠক, আপনি কিছু বলতে চাইলে লিখুন নীচে মন্তব্যের ঘরে...

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন