ভোটের ঢাকে পড়লো কাঠি | বিশ্ব | DW | 07.10.2013
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

ভোটের ঢাকে পড়লো কাঠি

ভারতের পাঁচটি রাজ্যের বিধানসভা ভোটের নির্ঘণ্ট ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন৷ সেগুলি হলো দিল্লি, রাজস্থান, মধ্যপ্রদেশ, ছত্তিশগড় ও মিজোরাম৷ ভোট শুরু হবে ১১ই নভেম্বর এবং শেষ হবে ৪ঠা ডিসেম্বর৷ আর ফলাফল পাওয়া যাবে ৮ই ডিসেম্বর৷

নির্বাচন পর্যবেক্ষকরা মনে করছেন, পাঁচটি রাজ্যের বিধানসভা ভোট হবে দুটি জাতীয় দল কংগ্রেস ও বিজেপির মধ্যে আগামী বছরে হতে চলা সাধারণ নির্বাচনের সেমি-ফাইনাল৷ এই বিধানসভা ভোটে ভারতের নির্বাচনি প্রক্রিয়ায় এই প্রথম একটা নতুন অধ্যায় সংযোজিত হলো সুপ্রিম কোর্টের সাম্প্রতিক নির্দেশে৷ সেটা হলো, এই প্রথম প্রার্থীদের পছন্দ না হলে তাঁদের প্রত্যাখ্যান করার অধিকার থাকবে ভোটারদের৷ এ জন্য ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে প্রার্থীদের নামের তালিকার শেষে থাকবে বিশেষ বোতাম, যার নাম ‘‘নান অফ দি অ্যাবোভ'', সংক্ষেপে ‘‘নোটা''৷ আগে যে ব্যবস্থাটা ছিল তাতে কোনো ভোটার কাউকে ভোট না দিতে চাইলে তা কাগজে কলমে নথিভুক্ত করতে হতো৷ অর্থাৎ, ঐ ভোটারের পরিচয় গোপন থাকতো না৷ এবারে, এই নতুন ব্যবস্থায় কিন্তু গোপনীয়তা থাকবে৷

Indien Narendra Modi Premierminister von Gujarat

অনেকের কাছে এবারের প্রতিদ্বন্দ্বীতা বিজেপির প্রধানমন্ত্রী পদপ্রার্থী নরেন্দ্র মোদী...

সব কটি রাজ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই কংগ্রেস বনাম বিজেপির, বিশেষ করে মিজোরাম ছাড়া অন্য চারটি গো-বলয়ের রাজ্যে৷ নির্বাচনি ইস্যু বলতে একদিকে যেমন মনমোহন সিং সরকারের নীতি-পঙ্গুত্ব, আর্থিক বেহাল দশা, দুর্নীতি ও দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি, অন্যদিকে মোদীর সাম্প্রদায়িক ভাবমূর্তি, সংখ্যালঘুদের কাছে তাঁর গ্রহণযোগ্যতা, দলের মধ্যে ঐকমত্যের অভাব এবং আর্থিক ও সামাজিক নীতি৷ ফলে কংগ্রেস ও বিজেপি কেউই স্বস্তিতে নেই৷

Rahul Gandhi Indien Kongress Partei

...এবং কংগ্রেসের সম্ভাব্য প্রধানমন্ত্রী পদপ্রার্থী রাহুল গান্ধীর মধ্যে

বিজেপির প্রধানমন্ত্রী পদপ্রার্থী নরেন্দ্র মোদী বিধানসভার ভোটের তারিখ ঘোষণার আগেই সর্বশক্তি দিয়ে নেমে পড়েছেন ভোট-ময়দানে৷ যদিও পাখির চোখ তাঁর কাছে দিল্লির মসনদ দখল৷ তবে এই পাঁচটি রাজ্যের বিধানসভা ভোটের ফলাফলে বোঝা যাবে মোদীর ‘ইমেজ' কতটা কাজ দিয়েছে৷ ফল ভালো না হলে তার দায় বর্তাবে মোদীর ওপর৷ প্রতিটি জনসভায় তুলোধুনো করছেন তিনি মনমোহন সিং সরকারকে৷ হালে অর্ডিন্যান্স বিতর্ক নিয়ে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে মনমোহন সিং-এর কর্তৃত্ব নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন৷

পাঁচটি রাজ্যের বিধানসভার মোট আসন সংখ্যা ৬৩০৷ ভোটারদের মোট সংখ্যা সাড়ে ১১ কোটির বেশি৷ মধ্যপ্রদেশ ও ছত্তিশগড়ে শাসকদল বিজেপি এবং দিল্লি, রাজস্থান ও মিজোরামে কংগ্রেস৷ কেন্দ্র শাসিত দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী শীলা দিক্ষিত চতুর্থবার মুখ্যমন্ত্রী পদের প্রার্থী৷ বিরোধী বিজেপি শীলা দিক্ষিত সরকারকে নানাভাবে বেকায়দায় ফেলার চেষ্টা করছে, কিন্তু খুব একটা সুবিধা করতে পারেনি৷

তবে এ বছর ‘আম আদমি পার্টি' নামে নতুন একটি দল ভোটে নেমেছে কংগ্রেস ও বিজেপির সঙ্গে সমদূরত্ব রেখে৷ অরবিন্দ কেজরিওয়ালের নেতৃত্বে তৃণমূল স্তরের এই দলের মূলধন স্বচ্ছ ভাবমূর্তি৷ সমীক্ষকদের ধারণা, সরকার গড়ার মতো সংখ্যাগরিষ্টতা না পেলেও ভোট ভাগাভাগিতে বড় ভূমিকা নেবে এই আম আদমি পার্টি৷ দিল্লির স্থানীয় সমস্যা, নাগরিক অভাব অভিযোগের সুরাহা করার অঙ্গীকারই এই দলের প্রধান হাতিয়ার৷ ফলে দলের জনপ্রিয়তা বেড়েছে তাড়াতাড়ি৷ দিল্লি মহানগরের নীচু তলার গরিব লোকজন আম আদমির মূল ভোট ব্যাংক বলে মনে করছেন অনেকে৷ প্রতিষ্ঠান-বিরোধী হাওয়া বইছে৷ বিজেপি দলীয় কোন্দলের জন্য এখনো মুখ্যমন্ত্রী পদের প্রার্থীর নাম ঘোষণা করতে পারেনি৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন