ভেতরের দৃশ্যও দেখাতে চায় গুগল স্ট্রিটভিউ | বিজ্ঞান পরিবেশ | DW | 06.11.2011
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞান পরিবেশ

ভেতরের দৃশ্যও দেখাতে চায় গুগল স্ট্রিটভিউ

গুগল স্ট্রিটভিউ এবার শুধু রাস্তা ধরে এগিয়ে যেতে আগ্রহী নয়৷ রাস্তার আশেপাশের দোকানপাটেও প্রবেশ করতে চায় এই প্রযুক্তি, দেখাতে চায় ভেতরকার সব ব্যাপার-স্যাপার৷ ইতিমধ্যে গুগল শুরু করে দিয়েছে এই প্রকল্প৷

default

গুগলের কল্যাণে বিশ্বের বড় বড় শহরগুলো এখন চষে ফেলা যায় মুহূর্তে৷ ব্যাগ গুছিয়ে বিমানে চড়ার দরকার নেই৷ পাহাড়ি পথে হাঁটারও দরকার নেই৷ বরং একটি কম্পিউটার এবং একটু ভালো গতির ইন্টারনেট সংযোগ থাকলেই যথেষ্ট৷ কম্পিউটারের সামনে বসে চলে যান গুগল ওয়েবসাইটে৷ এরপর পছন্দের শহরটি খুঁজুন৷ সেই শহরের বিভিন্ন রাস্তা ধরে এগিয়ে যান৷ সেখানকার চারপাশটা পরিষ্কার ফুটে উঠবে কম্পিউটারের পর্দায়৷

এতকাল গুগলের স্ট্রিটভিউ শুধু রাস্তাঘাটের মধ্যেই সীমাবদ্ধ ছিল৷ কিন্তু গুগল এই প্রযুক্তিতে আর শুধু রাস্তায় আটকে রাখতে রাজি নয়৷ কী করা যায় তাহলে? গুগলের লক্ষ্য এবার রাস্তার পাশের দোকানপাট, ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান৷ যেসব সংস্থা স্বপ্রণোদিতভাবে নিজেদের ভেতরটা ইন্টারনেটে উম্মুক্ত করতে চায়, তাদের সহায়তায় এগিয়ে আসছে গুগল৷

ধরুন, লন্ডনের কোন একটি চকলেটের দোকান সম্পর্কে জানতে চান আপনি৷ দোকানটি কেমন? ভেতরের পরিবেশ কেমন? বসার ব্যবস্থা কেমন? ভেতরের দেয়ালটাই বা কেমন? খুব শীঘ্রই এসব প্রশ্নের উত্তর পাওয়া যাবে গুগল স্ট্রিটভিউতে৷ রাস্তাঘাটের মতই পুরো দোকানটির ছবিসম্বলিত ত্রিমাত্রিক ভিউ আপনার সামনে হাজির করবে সংস্থাটি৷

Google Street VIew Oberstaufen FLash-Galerie

গুগল অবশ্য ইতিমধ্যে বেশ কয়েকটি মিউজিয়াম'এর ইন্টারনেট সংস্করণ তৈরির উদ্যোগ শুরু করেছে৷ সংস্থাটির এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, একই প্রযুক্তিতে বিভিন্ন দোকানপাট, ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানকেও স্ট্রিট ভিউ প্রযুক্তির আওতায় আনা যাবে৷

বর্তমানে লন্ডন, প্যারিসসহ জাপান, অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড এবং যুক্তরাষ্ট্রের কয়েকটি শহরের নির্দিষ্ট কিছু এলাকা বেছে নিয়েছে গুগল৷ যে সমস্ত দোকানপাট ইন্টারনেটে বেশি খোঁজা হয়, আপাতত সেগুলো নিয়ে কাজ করার ইচ্ছা প্রকাশ করেছে সংস্থাটি৷ প্রথমে গুগলের ফটোগ্রাফাররা এসব প্রতিষ্ঠানে গিয়ে ৩৬০ ডিগ্রি অ্যাঙ্গেলে প্রয়োজনীয় ছবি তুলবেন, এরপর তা প্রযুক্তির মাধ্যমে জীবন্ত করে তোলা হবে ইন্টারনেটে৷ গুগল জানিয়েছে রেঁস্তোরা, হোটেল, দোকানপাট, ব্যায়ামাগার এবং গাড়ি মেরামতের কারখানার জন্য এই সেবা প্রযোজ্য হবে৷

বলাবাহুল্য, গুগলের স্ট্রিটভিউ সেবা নিয়ে বিতর্কও রয়েছে৷ অনেকে এটিকে মনে করেন ‘অনাহূত অতিথি'৷ জার্মানিতেও এই সেবা চালু নিয়ে গুগলকে অনেক ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে৷ সবচেয়ে বড় জটিলতা হচ্ছে, গুগল এই প্রকল্পের আওতায় যে সমস্ত ছবি তুলছে সেগুলোকে নিজেদের সম্পদ হিসেবেই বিবেবচনা করছে, এবং শুধু স্ট্রিটভিউ নয় সংস্থাটির অন্যান্য সেবাতেও ব্যবহারের এখতিয়ার রাখছে৷ কোন ব্যক্তি বা সংস্থা যদি এই বিষয়ে আপত্তি তোলে, তবে গুগল সেটি মুছে ফেলতে পারে৷

প্রতিবেদন: আরাফাতুল ইসলাম

সম্পাদনা: আব্দুল্লাহ আল-ফারূক

নির্বাচিত প্রতিবেদন