1. কন্টেন্টে যান
  2. মূল মেন্যুতে যান
  3. আরো ডয়চে ভেলে সাইটে যান
Indien Paar Subhojit & Nazma Roy
ছবি: Payel Samanta/DW

ভিনধর্মে বিয়ে বনাম লাভ জিহাদ

পায়েল সামন্ত কলকাতা
৫ ডিসেম্বর ২০২০

ভারতে ‘লাভ জিহাদ'-এর রব তুলেছে বিজেপি৷ উত্তরপ্রদেশ সরকার ধর্মান্তরণের পর বিয়ে রোধ করতে আদেশ জারি করেছে৷ অথচ ভিনধর্মে বিয়ে নতুন কোন বিষয় নয়৷ সত্যিই কি এই সম্পর্কে প্রেম নেই, এর লক্ষ্য কেবল ধর্ম পরিবর্তন?

https://p.dw.com/p/3mGPi

কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগে একসঙ্গে পড়তেন সাদিক জামান ও মানসী সিনহা৷ প্রেম থেকে পরিণয় ৪২ বছর আগে৷ কলকাতার বাসিন্দা সাদিক ছিলেন সরকারি সংস্থার উচ্চ পদাধিকারী৷ পৃথক ধর্ম তাঁদের দাম্পত্য বা পারিবারিক সম্পর্কে ছাপ ফেলতে পারেনি৷ সেই সাদিক বৃদ্ধ বয়সে পৌঁছে ‘লাভ জিহাদ' শব্দবন্ধ শুনে বিস্মিত৷ ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘এ কোন ভারত? এটাও আমাদের দেখতে হচ্ছে৷ আমাদের দুই পরিবারই নাস্তিক৷ ধর্মীয় আচারকে ঘৃণা করি৷ আমার দুই ছেলেও সেটাই বিশ্বাস করে৷ আজ ভাবতে হচ্ছে, দেশে থাকতে পারব না হয়তো৷''

ভারতে বিজেপি সমর্থকদের একটি অংশ মুসলিম পাত্রের সঙ্গে হিন্দু পাত্রীর বিয়েতে ষড়যন্ত্র দেখছে৷ তাদের অভিযোগ, হিন্দু মেয়েদের সামনে ভালোবাসার ফাঁদ পেতে তাঁদের ধর্মান্তরিত করা হচ্ছে৷ এসব ‘ফাঁদ'-এর লক্ষ্য হল, ‘জিহাদি' তৈরি করা যারা ভারতের বিরুদ্ধে সক্রিয় হবে৷ এমন উদাহরণও দেখাবার চেষ্টা করছে বিজেপি নেতৃত্ব৷ উত্তরপ্রদেশে যোগী আদিত্যনাথের সরকার এই প্রবণতা রোধে আদেশ জারি করেছে৷ চলতি সপ্তাহে নয়া আইনে প্রথম গ্রেপ্তার হয়েছেন ওই রাজ্যের বরেইলির এক মুসলিম তরুণ৷ এই আইনে দোষী সাব্যস্ত হলে ১০ বছর পর্যন্ত কারাদণ্ড হতে পারে৷ বিরোধীদের বক্তব্য, একটি বিশেষ ধর্মের অনুসারীদের সমস্যায় ফেলার জন্য এটা বিজেপির কৌশল৷ এই চাপানউতোরের মধ্যে ডয়চে ভেলে কথা বলেছে পশ্চিমবঙ্গে কয়েকজন দম্পতির সঙ্গে যাঁরা ভিনধর্মে বিয়ে করেছেন৷

বিজেপির কেউ ধর্মান্তরিত হলে লাভ জিহাদ বলা যাবে না?: ইমানুল

এদের একজন ভাষা ও চেতনা সমিতির প্রধান, অধ্যাপক ইমানুল হক৷ তিনি ২৬ বছরের বিবাহিত জীবন কাটাচ্ছেন একজন হিন্দু রমণীর সঙ্গে৷ একই কাহিনী অধ্যাপকের ভাই জয়নুল হক ও তাঁর স্ত্রী সীমা সাহারও৷ ইমানুল বলেন, ‘‘বিয়ের জন্য আমাদের পরিবারের কোনো নারী ইসলাম ধর্মে ধর্মান্তরিত হননি৷ বরং তাঁরা এখনো নিজস্ব ধর্মাচরণ করেন৷ কিন্তু বিজেপি নেত্রী হেমামালিনী নিজেই ধর্মান্তরিত হয়েছিলেন বিয়ের সময়৷ বিজেপির শীর্ষ নেতা শাহনওয়াজ হুসেন ও মুখতার আব্বাস নকভির স্ত্রী হিন্দু৷ বিজেপি বলে কি একে লাভ জিহাদ বলা যাবে না?''

পশ্চিমবঙ্গে এমন অনেক উদাহরণও আছে, যেখানে পাত্র হিন্দু, পাত্রী মুসলিম৷ সেক্ষেত্রে কি ধর্মান্তরণের অভিযোগ উঠবে না? পশ্চিম মেদিনীপুরের ঘাটালের বাসিন্দা টুম্পা খাতুন মাধ্যমিক পরীক্ষা দেওয়ার পর বাড়ি ছেড়ে চলে যান৷ বিয়ে করেন মোনা দাঁ-কে৷ তিনি খাবারের দোকান চালান৷ টুম্পা বিয়ের জন্য ধর্মান্তরিত হন৷ পরিবারের একাংশের আপত্তি এখনো রয়েছে৷ তবু তা অগ্রাহ্য করে এক সন্তান নিয়ে সুখি দাম্পত্য তাঁদের৷ টুম্পা ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘আমি পুজো করি, ব্রত-উপবাসও করি৷ লাভ জিহাদ-এর কথা জানি না, শুধু লাভ জানি৷ আমরা বেশ ভালোই আছি৷''

লাভ জিহাদ জানি না, শুধু লাভ জানি: টুম্পা

বিয়ের আগেই হিন্দু ধর্মকে ভালোবেসে বেলুড় মঠে দীক্ষা নিয়েছিলেন ইসলাম ধর্মাবলম্বী ঝুমা মণ্ডল৷ এক বছর আগে বিয়ে করেন পশ্চিম মেদিনীপুরের পুলিশ আধিকারিক সোমনাথ সাহাকে৷ ঝুমা ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘আমরা দু'জনই লাভ জিহাদ-এর প্রচারকে ঘৃণা করি৷ প্রেমের সম্পর্ককে এভাবে কলুষিত করা ঠিক নয়৷ ভালোবাসা আর জিহাদ একসঙ্গে থাকতে পারে না৷''

বীরভূমের দুবরাজপুরের সরকারি হাসপাতালের চিকিৎসক শুভজিৎ রায় বিয়ে করেন নাজমা খাতুনকে৷ এখন তিনি নাজমা রায়৷ শুভজিৎ ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘আমার গুরুর শিক্ষা, ধর্মীয় বিভেদ ঘোচানোর সবচেয়ে বড় হাতিয়ার ভিনধর্মে বিয়ে করা৷ আমি অনেক প্রতিকূলতার মুখেও তা করেছি৷ সুখের পরোয়া করিনি৷''

তার প্রস্তাব, ‘‘অন্য ধর্মে বিয়ে একটা আন্দোলন হয়ে উঠতে পারে৷ সকলে এগিয়ে আসুন, ধর্মীয় পরিচয় ভুলে ভালোবাসুন৷ তাহলে লাভ জিহাদ-এর প্রচার হার মানবেই৷''

স্কিপ নেক্সট সেকশন এই বিষয়ে আরো তথ্য
স্কিপ নেক্সট সেকশন সম্পর্কিত বিষয়
স্কিপ নেক্সট সেকশন ডয়চে ভেলের শীর্ষ সংবাদ

ডয়চে ভেলের শীর্ষ সংবাদ

ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ মর্গ

আত্মবিশ্বাসের অভাবে অল্পতেই আত্মহত্যায় কমবয়সিরা

স্কিপ নেক্সট সেকশন ডয়চে ভেলে থেকে আরো সংবাদ

ডয়চে ভেলে থেকে আরো সংবাদ

প্রথম পাতায় যান